Latest News

শরীরের ৯৯% ট্যাটুতেই ঢাকা, চোখের মণিতেও উঁকি দিচ্ছে উল্কি! চাকরিই পাচ্ছেন না যুবতী

দ্য ওয়াল ব্যুরো: নিজের সৌন্দর্য বাড়াতে আজকাল পুরুষ-মহিলা নির্বিশেষে ট্যাটু (Tattoo) করেন শরীরের বিভিন্ন অংশে।  ছোট সাদামাটা ট্যাটুর পাশাপাশি অনেকেই হাত কিংবা পা জুড়ে ট্যাটু করিয়ে থাকেন।  তবে ট্যাটুর জন্য কর্মক্ষেত্রে (workplace) কেউ সমস্যায় পড়েছেন, এমনটা বোধহয় হয় না সচরাচর।  কিন্তু এই ট্যাটুর কারণেই নাকি চাকরি (Job) পাচ্ছেন না ‘ড্রাগন গার্ল। ’ (Dragon girl)

অস্ট্রেলিয়ার (Australia) মডেল (Model) অ্যাম্বার লিউক (Amber Luke), যিনি ড্রাগন গার্ল নামেই নেটমাধ্যমে বিখ্যাত।  শরীর-জোড়া ট্যাটু এবং পিয়ার্সিং-এর (Piercing) জন্য একসময় খবরের শিরোনামে উঠে এসেছিলেন অ্যাম্বার।  অস্ট্রেলিয়ান এই মডেলের শরীরের ৯৯ শতাংশই নাকি ট্যাটুতে ঢাকা। অ্যাম্বারের অভিযোগ, সেই কারণেই নাকি নামীদামি কোম্পানিগুলি চাকরি দিতে চাইছে না তাকে।

১০০টিরও বেশি ট্যাটু ছাড়াও অ্যাম্বারের শরীরে রয়েছে একাধিক পিয়ার্সিং।  এমনকি, অস্ত্রোপচারের মাধ্যমে জিভ এবং কানের গঠনও বদলে ফেলেছেন তিনি।  জিভের অগ্রভাগ কেটে কাঁটা চামচের মতো আকার দিয়েছেন তিনি। কসমেটিক সার্জেনের ছুরি-কাঁচির সাহায্যে কানের গড়ন বদলে খাড়া ও লম্বাটে করে ফেলেছেন এই মডেল।  এছাড়াও, গত বছর চোখের মণিতেও ‘ড্রাগন ব্লু’ ট্যাটু করিয়েছিলেন অ্যাম্বার।  এর জেরে ৩ সপ্তাহ চোখে কিছুই দেখতে পাননি তিনি।  শুধু তাই নয়, তাঁর চোখের জলের রংও হয়ে গিয়েছিল নীল!

তবে কোনও রকম শারীরিক যন্ত্রণা নিজেকে নিয়ে পরীক্ষানিরীক্ষা করা থেকে আটকাতে পারেনি অ্যাম্বারকে।  সম্প্রতি দাঁতের গঠন বদলে আরও ধারালো করে শ্বদন্ত তৈরি করেছেন তিনি।  এছাড়া, স্তন, পশ্চাদ্দেশ, গাল এবং ঠোঁটও ফিলারের সাহায্যে আকর্ষণীয় করে তুলেছেন তিনি।

কিন্তু চেহারায় এই আমূল পরিবর্তনই তাঁর কাল হয়েছে । একটি ইন্টারভিউতে অ্যাম্বার জানিয়েছেন,  এই অদ্ভুত চেহারার কারণে বহু চাকরি তাঁর হাতছাড়া হয়ে যাচ্ছে।  তবে এই নিয়ে খুব একটা দুঃখিত নন তিনি।  তাঁর বোধ, প্রজ্ঞা, কর্মক্ষমতার বাইরে শুধুমাত্র তাঁর চেহারাকে গুরুত্বপূর্ণ মনে করছে যে সমস্ত কোম্পানি, তাদের পাত্তা দিতে নারাজ অ্যাম্বার। সৌন্দর্যের বিষয়ে প্রত্যেকের ধারণা আলাদা, সেটা মেনে নিয়েই অ্যাম্বারের দাবি, ‘আমি কোনও সংকীর্ণমনা কোম্পানির জন্য কাজ করতে চাই না, যারা আমার চেহারার বাইরে আর কিছু দেখতে পায় না।

প্রসঙ্গত, অ্যাম্বার নিজেকে ‘শয়তানের অনুরাগী’ বলে দাবি করেন। তাঁর শরীরে আঁকা ট্যাটুগুলিও বিভিন্ন স্যাটানিক চিহ্ন দ্বারা অনুপ্রাণিত।  কালি দিয়ে তাঁর হাতে লেখা রয়েছে ‘মৃত্যু।’ এছাড়া একটি ওল্টানো ক্রুশ, ৬৬৬ এবং একটি সাপের ট্যাটু রয়েছে তাঁর মুখে।

তেলের ট্যাঙ্কে বজ্রপাত! দাউদাউ জ্বলছে চারদিক, কিউবায় আহত ১২১

You might also like