শুক্রবার, আগস্ট ২৩

ফুটপাথে প্রতারিত গণতন্ত্র, পুলিশ ও রাজ্যকে ভর্ৎসনা আদালতের

দ্য ওয়াল ব্যুরো: ফুটপাথে পড়ে গণতন্ত্র। প্রতারণা করা হয়েছে গণতন্ত্রের সঙ্গে। বনগাঁ পুরসভার অনাস্থা ভোট সংক্রান্ত মামলার শুনানিতে এমনই পর্যবেক্ষণ কলকাতা হাইকোর্টের বিচারপতি সমাপ্তি চট্টোপাধ্যায়ের। তিনি বলেন, দুই দলের সমর্থকরা নিজেদের মধ্যে গন্ডগোল জড়িয়ে পড়তে পারেন। কিন্তু পুলিশের কাজ হচ্ছে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনা। যাঁরা অনাস্থা এনেছেন তাঁরা সভা করতে পারেননি। এটা গণতন্ত্রের সঙ্গে প্রতারণা বলে উল্লেখ করেন বিচারপতি। বুধবার এই মামলার পরবর্তী শুনানি। ওই দিনই রায় ঘোষণা হতে পারে।

এ দিন বিচারপতি স্পষ্টতই বলেন, “ভোটের (অনাস্থা) সম্মুখীন হয়ে তো দেখো। পুলিশের কাজ হচ্ছে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনা। পুলিশ যদি আইন-শৃঙ্খলা রক্ষা করতে ব্যর্থ হয়, তা হলে রাজ্যকে জবাবদিহি করতে হবে। পুলিশের কাজ কাউন্সিলাররা যাতে নির্বিঘ্নে বৈঠকে যোগ দিতে পারে, সে দিকে নজর রাখা। কাউন্সিলাররা এক বার বলছেন, পুলিশ তাঁদের আটকেছে, আবার বলছে শাসক দলের লোকজন তাঁদের আটকেছে, তা হলে এ ক্ষেত্রে চেয়ারম্যানের উচিত ছিল বিকেল চারটে পর্যন্ত অপেক্ষা করা। যাঁরা অনাস্থা এনেছিলেন, বৈঠকে তাঁরাই যোগ দিতে পারলেন না। গণতন্ত্রের পক্ষে এর থেকে দুর্ভাগ্যজনক আর কী হতে পারে।”

শুনানির শুরু থেকেই রাজ্য সরকার এবং পুলিশের সমালোচনা করেন বিচারপতি সমাপ্তি চট্টোপাধ্যায়। তিনি বলেন, “এটা গণতন্ত্রের সঙ্গে প্রতারণা৷ গণতন্ত্র ফুটপাথে এসে দাঁড়িয়েছে। গায়ের জোরে নির্দেশ না মানার প্রবণতা খুবই দুর্ভাগ্যজনক। গণতন্ত্রকে ফিরিয়ে আনতেই হবে। এই মামলা ক্রমাগত চলতে পারে না।”

Comments are closed.