শুক্রবার, ডিসেম্বর ১৪

গণধোলাই, হিন্দু-মুসলিম দাঙ্গা বন্ধ হোক, আবেদন নিহত পুলিশের ছেলের

দ্য ওয়াল ব্যুরো : আজ আমার বাবা মারা গিয়েছেন। কাল হয়তো উচ্চপদস্থ এক পুলিশ অফিসার খুন হবেন। পরে কোনও মন্ত্রীও খুন হতে পারেন। উন্মত্ত জনতার হাতে এইরকম মৃত্যু কি ঘটতেই থাকবে? নিশ্চয় না।

এক বেসরকারি টিভি চ্যানেলের সাক্ষাৎকারে এমনই বলেছেন বুলন্দশহরে নিহত পুলিশ অফিসারের ছেলে অভিষেক সিং।

গত সোমবার বুলন্দশহরের কাছে মাহাউ গ্রামের কাছে কয়েকটি গরুর মৃতদেহ পড়ে থাকতে দেখা যায়। তারপরে স্থানীয় ৪০০ মানুষ ঘটনাস্থলে জড়ো হয়। দ্রুত সেখানে পৌঁছে যান বজরং দলের নেতারা। পৌঁছায় পুলিশও। অভিযোগ, বজরং দলের নেতারা পুলিশকে আক্রমণ করার জন্য জনতাকে উস্কানি দেন। জনতা পুলিশের দিকে ইটপাটকেল ছোঁড়ে। পুলিশ ফাঁড়িতে হামলা চালায়। পাথরের ঘায়ে আহত হয়েছিলেন পুলিশ ইনসপেক্টর সুবোধ কুমার সিং। তাঁকে গাড়িতে তুলে ড্রাইভার পালাতে চেষ্টা করেন। কিন্তু মাঠের ওপর দিয়ে পালাতে পারেননি। তিনি গাড়ি ফেলে পালিয়ে যান। জনতার মধ্যে থেকে সুবোধকে লক্ষ করে গুলি চালানো হয়। তিনি নিহত হন।

এর পরে উত্তরপ্রদেশের মুখ্যমন্ত্রী যোগী আদিত্যনাথ রাজ্যের নিরাপত্তা পরিস্থিতি খতিয়ে দেখেন। সেখানে তিনি গোহত্যাকারীদের বিরুদ্ধে কড়া ব্যবস্থা নিতে বলেন। কিন্তু পুলিশ হত্যা নিয়ে কিছু বলেননি।

পুলিশ হত্যায় মূল অভিযোগ যাঁর নামে, সেই বজরং দলের নেতা যোগেশ রাজ এখনও নিখোঁজ। বুধবার তিনি গোপন আস্তানা থেকে ভিডিও বার্তা পাঠিয়েছেন। তাতে দাবি করেছেন, বুলন্দশহরে হিংসার সময় তিনি ঘটনাস্থলে ছিলেনই না।

যোগেশ রাজের সমর্থনে প্রচার চলছে ফেসবুকে।

অভিষেক বলেছেন, কারা গোহত্যা করেছে তাদের খুঁজে বার করার চেয়ে কোনও মানুষের মৃত্যু বেশি গুরুত্বপূর্ণ। বুলন্দশহরের ঘটনার তদন্তে যে বিশেষ তদন্তকারী দল গঠন করা হয়েছে, তাদের খুঁজে বার করা উচিত, কীভাবে ওখানে গরুগুলির মৃতদেহ এল? কেউ কি অশান্তি সৃষ্টির জন্যই গ্রামের কাছে মৃতদেহগুলি ফেলে গিয়েছিল?

তাঁকে প্রশ্ন করা হয়, মুখ্যমন্ত্রীকে হিন্দু-মুসলিম রাজনীতি নিয়ে আপনি কী বলতে চান?

তিনি বলেন, শুধু মুখ্যমন্ত্রী নন, সারা দেশের কাছে আমি আবেদন করতে চাই, দয়া করে হিন্দু-মুসলিম দাঙ্গা বন্ধ করুন। এখন সামান্য প্ররোচনাতেই মানুষ হিংস্র হয়ে উঠছে। মানুষের বোঝা উচিত, দেশে আইনের শাসন আছে। আইন সবাইকেই মানতে হবে।

বাবার সম্পর্কে অভিষেক বলেন, তিনি বরাবরই বলতেন, সবার আগে দেশের সুনাগরিক হতে হবে।

Shares

Comments are closed.