বুধবার, আগস্ট ২১

দোষীদের শাস্তির প্রতিশ্রুতি যেন রাজনৈতিক প্রহসন! ভোট দেবেন না নির্ভয়ার মা-বাবা

দ্য ওয়াল ব্যুরো: ভোট দেবেন না নির্ভয়ার মা-বাবা। তাঁরা জানিয়েছেন, সুবিচার না পাওয়া অবধি কোনও দলকেই ভোট দেবেন না তাঁরা। তাঁদের উপলব্ধি, শুধুমাত্র ভোট পেতেই রাজনৈতিক দলগুলি নিরন্তর প্রতিশ্রুতি দিয়ে থাকে ৷ ভোট মিটে গেলেই ফের সব ভুলে যান তাঁরা। এই কথাটা যেহেতু তাঁরা জীবন দিয়ে বুঝেছেন, তাই তাঁরা আর ভোটের ফাঁদে পা দেবেন না।

২০১২ সালে ১৬ ডিসেম্বর দিল্লিতে চলন্ত বাসের মধ্যে গণধর্ষণের শিকার হন নির্ভয়া। তার পরে চূড়ান্ত শারীরিক নিগ্রহের ফলে, হাসপাতালে লড়াইয়ের পরে প্রাণ হারান তিনি। দেশ জুড়ে প্রতিবাদ বিক্ষোভের আগুন জ্বলে ওঠে। প্রতিটি রাজনৈতিক দলও উঠেপড়ে লাগে, এই ঘটনার বিচার চেয়ে। কিন্তু বাস্তব পরিস্থিতি তেমন জোরদার হয়নি।

নির্ভয়ার মা-বাবাকে সুবিচারের প্রতিশ্রুতি দিয়েছিল প্রতিটি রাজনৈতিক দলই। কিন্তু অভিযোগ, তা বাস্তবায়িত করার জন্য আদৌ কেউ উদ্যোগ নেয়নি। নির্ভয়ার বাবা-মা এই সাত বছরে বুঝেছেন, নেতাদের সহানুভূতি এবং দোষীদের শাস্তি দেওয়ার প্রতিশ্রুতি আসলে রাজনৈতিক প্রহসন ছাড়া কিছুই নয়। সেই কারণেই সারা দেশে তোলপাড় ফেলে দেওয়া নির্ভয়া ধর্ষণ ও হত্যা মামলায় দোষী সাব্যস্ত হওয়া কোনও অপরাধীর এখনও পর্যন্ত মৃত্যুদণ্ড কার্যকর করা হয়নি।

ক্ষমা করুন। আস্থা নেই এই প্রশাসনের উপর।

নির্ভয়ার বাবা-মা মনে করেন, শুধু বিচারের অভাবই নয়। তাঁদের সন্তানের এমন মর্মান্তিক পরিণতির পরেও এ দেশে মহিলা ও শিশুদের নিরাপত্তা সুনিশ্চিত করতে ব্যর্থ দেশের প্রশাসন। নির্ভয়ার মায়ের অভিযোগ, রাস্তায় রাস্তায় সিসিটিভি ক্যামেরা এখনও বসেনি। গোটা দেশে এখনও নিরাপত্তার প্রবল অভাব রয়েছে। রোজ কোথাও না কোথাও থেকে খবর আসে গণধর্ষণের। সন্তানরা স্কুল থেকে বাড়ি না ফেরা পর্যন্ত অভিভাবকদের এখনও উদ্বেগের প্রহর গুনতে হয়। এই প্রশাসন কোনও ভোট পাওয়ার যোগ্যই নয় বলে মনে করেন তাঁরা।

তাই এবার আর কোনও দলকেই ভোট দেওয়ার ইচ্ছা নেই নির্ভয়ার মা-বাবার। নির্ভয়ার বাবার বক্তব্য, গত সাত বছরে কিছুই বদলায়নি। তাই এই প্রশাসনের প্রতি তিনি সম্পূর্ণ আস্থা হারিয়েছেন৷

Comments are closed.