Latest News

X=Prem: নতুন টিম নিয়ে পুরনো মেজাজে ‘ফার্স্টবয়’ সৃজিত! শেষপাতে থ্রিলার যেন ‘চেরি অন দ্য টপ’

প্রসূন চন্দ

কী হবে যদি প্রেমের স্মৃতি হারিয়ে যায়? স্মৃতি ফিরিয়ে আনার চেষ্টা, নাকি ভুলে যাওয়া প্রেম পাশ কাটিয়ে ফের নতুন করে প্রেমে পড়া? ‘এক্স ইক্যুয়ালস টু প্রেম’ (X=Prem)-এ সেই উত্তরটাই খুঁজেছেন পরিচালক সৃজিত মুখোপাধ্যায় (Srijit Mukherjee)।

এই সিনেমায় কলেজ জীবনের প্রেম জয়ী আর খিলাৎ-এর। র‍্যাগিং করতে গিয়ে ধুতি পরে ট্যাঙ্গো ডান্স কীভাবে গুহার ভিতর আদরের সম্পর্কে গড়াল, তারই আভাস মিলবে সৃজিতের (Srijit Mukherjee) এই সাদা-কালো সিনেমার প্রথমার্ধে। দ্বিতীয়ার্ধে ‘কাহানি মে টুইস্ট’ তৃতীয় ব্যক্তির হাত ধরে। শেষমেশ এই সম্পর্ক কোনদিকে বাঁক নেয়, সেটা জানতেই ছবিটা দেখা। কলেজের প্রেম, ফেস্টে মারামারি, একতরফা ভালবাসা, লুকিয়ে দেখা, গোপন চিঠি, স্মৃতি নিয়ে কাটাছেঁড়া… সবমিলিয়ে ‘এক্স ইক্যুয়ালস টু প্রেম’ (X=Prem) যেন একমুঠো যৌবন!

আসা যাক অভিনেতাদের কথায়। সৃজিত মুখোপাধ্যায় এই ছবিতে বাজি লড়েছেন এক্কেবারে নতুন একটা টিম নিয়ে। কাস্টিং একদম নতুন। অনিন্দ্য সেনগুপ্ত, শ্রুতি দাস ও মধুরিমা বসাক বড়পর্দায় নবাগত, তাঁরাই এই ছবির প্রাণ।

Image - X=Prem: নতুন টিম নিয়ে পুরনো মেজাজে 'ফার্স্টবয়' সৃজিত! শেষপাতে থ্রিলার যেন 'চেরি অন দ্য টপ'
‘X=Prem’ ছবির তিন চরিত্র জয়ী, খিলাৎ ও অদিতি

প্রথমার্ধের একদম শেষে ব্যাট হাতে ক্রিজে নেমেই ছক্কা হাঁকিয়েছেন অর্জুন চক্রবর্তী। তারপর প্রায় পুরো দ্বিতীয়ার্ধটা জুড়েই ‘চালিয়ে খেলেছেন’। কখনও পাঞ্জাবি পরা কলেজ পড়ুয়া, কখনও ফর্মাল পোশাকের চাকুরিজীবী, সবেতেই তিনি মানানসই, ঝকঝকে।

‘X=Prem’ ছবিতে অর্ণব চরিত্রে অর্জুন চক্রবর্তী

পর্দায় যথেষ্ট সাবলীল নবাগতরা। নতুন ছাত্রছাত্রীদের থেকে এক্কেবারে সেরাটা বের করে এনেছেন সৃজিত, যেন স্কেল হাতে দাঁড়িয়ে থাকা কড়া হেডস্যার তিনি। সৃজিতের ছবির হাত ধরে টলিউডে পা ফেলেছেন, এখন দেখার ভবিষ্যতে এই তিনজন বাংলা সিনেমায় কতটা ছাপ রাখতে পারেন।

আরও পড়ুন: ‘হাবজি গাবজি’ শো পেল নন্দনে, বাদ সৃজিতের ছবি! ফেসবুকে কটাক্ষ পরিচালকের

যেটা না বললেই নয়, গোটা সিনেমাজুড়েই ক্যামেরার কাজ অসম্ভব ভাল। সাদা-কালো ছবি শুনে প্রথমে যাঁরা নাক সিঁটকেছিলেন, তাঁদেরও ছবি দেখতে বসে একফোঁটা একঘেয়েমি আসবে না। কৃতিত্ব ডিওপি শুভঙ্কর ভড়ের। প্রতিটা ফ্রেম তিনি যত্ন করে সাজিয়েছেন, যার ছাপ স্পষ্ট প্রথম থেকে শেষ অবধি।

Image - X=Prem: নতুন টিম নিয়ে পুরনো মেজাজে 'ফার্স্টবয়' সৃজিত! শেষপাতে থ্রিলার যেন 'চেরি অন দ্য টপ'
ডিওপি-ডিরেক্টর জুটি

গানে গানে অনবদ্য X=Prem

ভাল লাগে সপ্তক সানাই দাসের সুরে সিনেমার গানগুলিও। বারিষের লেখা ‘ভালবাসার মরসুম’ ইতিমধ্যেই সোশ্যাল মিডিয়া মাতিয়ে দিয়েছে। তবে হল থেকে বেরোনোর পরেও যেই গান মনের ভেতর বাজবে, তা হল ‘রোদের নিশানা’। গানটি লিখেছেন ধ্রুবজ্যোতি চক্রবর্তী।

‘X=Prem’ ছবির দুই গীতিকার ধ্রুবজ্যোতি চক্রবর্তী ও বারিষ

এছাড়াও তাঁর লেখা ‘বায়নাবিলাসী’ ও ‘সিন্ড্রেলা মন’ এবং সৃজিত মুখোপাধ্যায়ের ‘রাইকিশোরী’ শুনতেও ভাল লাগবে। প্রতিটা গানই স্বতন্ত্র এবং সুন্দর।

Image - X=Prem: নতুন টিম নিয়ে পুরনো মেজাজে 'ফার্স্টবয়' সৃজিত! শেষপাতে থ্রিলার যেন 'চেরি অন দ্য টপ'
নতুন টিমের সঙ্গে ‘ক্যাপ্টেন’ সৃজিত মুখোপাধ্যায়

তবে এত ভালর মধ্যেও কোথাও কোথাও মন খুঁতখুঁত করেছে। আজকালকার দিনে কলেজের প্রথম দিন কেউ ধুতি পরে এসেছে, এ বোধহয় রুপোলি পর্দার ওপারেই সম্ভব। তর্কের খাতিরে মেনেও নিলাম, ছেলেটি ধুতিপ্রিয় বাঙালি। কিন্তু কলেজের ওই প্রথম দিনের পর গোটা সিনেমায় আর একবারও তাঁকে কিন্তু ধুতি পরতে দেখা গেল না, এমনকি বিয়েতেও নয়!

আরও পড়ুন: ঘুম ভাঙতেই পায়ের পেশিতে টান, মোচড় দিচ্ছে আঙুল, কেন হয় এমন?

তাছাড়া, যে গতিতে, সৃজিতের যে চেনা ঝকঝকে ক্যারিশ্মায় ছবির শুরু, তা গল্পের মাঝে এসে খানিক ফিকে হয়ে গেছে। শেষে যদিও থ্রিলারের ছোঁয়া রেখে চমক দিয়েছেন সৃজিত। গানে, গল্পে, অভিনয়ে সেই পুরনো সৃজিত মুখোপাধ্যায়ের ছায়া দেখা গিয়েছিল ট্রেলারে। পুরো ছবি দেখে সিনেমাহল থেকে বেরনোর পর মনে একটা কিন্তু কিন্তু ভাব যেন থেকেই যায়। চিত্রনাট্য নিয়ে আরও খানিক ঘষামাজা করতে পারতেন টলিউডের ‘ফার্স্টবয়’।

‘X=Prem’ ছবির পরিচালক সৃজিত মুখোপাধ্যায়

কিন্তু করোনার পর বাংলা সিনেমার এই দুর্দিনে (গত ঈদ থেকে বাংলা ছবির দর্শক আবার হলে ফিরেছে বলা যায়) একটা সম্পূর্ণ নতুন টিম নিয়ে সৃজিত মুখোপাধ্যায় যেভাবে ফাটকা খেললেন, তাতে তাঁকে স্যালুট না জানিয়ে উপায় নেই। তাই ‘নির্বাক’, ‘বাইশে শ্রাবণ’ বা ‘হেমলক সোসাইটি’ না হলেও পর্দায় একটা সৎ প্রচেষ্টা দেখতে পাবেন দর্শক, এটুকু বলাই যায়।

You might also like