Latest News

রাহুল খারাপ তো কিছু বলেনি, ঋদ্ধি আচমকা এমন প্রতিক্রিয়া জানাল কেন!

উৎপল চট্টোপাধ্যায়

 

ঋদ্ধিমান সাহার বিষয়টি এতটা স্পর্শকাতর হয়ে যাবে, ভাবা যায়নি। ঋদ্ধি বিশ্বের অন্যতম সেরা উইকেটকিপার। তাঁর বাদ যাওয়া নিয়ে কথা হবে, এটাই স্বাভাবিক বিষয়। কিন্তু বাদ পড়ার পরে পাপালি (ঋদ্ধির ডাকনাম) যেভাবে প্রতিক্রিয়া জানিয়েছে, সেটি আমার মতে ঠিক নয়।

ঋদ্ধি বরাবরই কম কথার ছেলে, এটাই ওর বৈশিষ্ঠ্য। আমার মনে হয়, এটাই ওকে বেশি মানায়, সেই জন্য সকলের ভালবাসাও পেয়ে এসেছে। কিন্তু বাদ পড়ার পরে এমন একজনকে ও কাঠগড়ায় দাঁড় করিয়েছে, সেটি অনেকেই মানতে পারিনি। রাহুল দ্রাবিড় আর যাইহোক রবি শাস্ত্রী নন, একটা স্বচ্ছ ধারণার মধ্যে চলতে ভালবাসেন রাহুল।

ঋদ্ধির ক্ষেত্রে তো দুম করে ওকে কেউ বাদ দিয়ে দেয়নি। বরং দলের কোচ আগে থেকে ওকে জানিয়ে সম্মান জানিয়েছে, সেটি ওর বোঝা উচিত ছিল। দ্রাবিড় ওকে অবসর নিয়ে ভাল একটি প্রস্তাব দিয়েছিল। বহুক্ষেত্রে তো দেখা যায়, কোনও কারণ ছাড়াই বাদ দিয়ে দেওয়া হয়, সেটি তো করেনি ঋদ্ধির ক্ষেত্রে। তা হলে ও বিষয়টি সহজভাবে নিতে পারল না কেন!

আমি বলছি না যে ঋদ্ধিকে বাদ দেওয়া ঠিক হয়েছে। আমি বরং উলটোটাই বলব, কারণ বয়স কারোর বাদ যাওয়ার মাপকাঠি হতে পারে না। আগে দেখতে হবে সেই ক্রিকেটার ফিট রয়েছে কিনা। ডেভিড হাসির ৩৪ বছরে অভিষেক হয়েছিল। রোহিত শর্মা তো এই বয়সে টেস্ট দলের অধিনায়ক হল। তা হলে বয়স কেন মাপকাঠি হতে যাবে?

ঋদ্ধি দলে থাকলে বরং লাভ হতো তরুণ কিপারদের। কারণ ঋষভ পন্থ এমন কোনও অভিজ্ঞ তারকা হয়ে যায়নি যে ভগতদের পরামর্শ দেবে, তাদের সহায়তা করতে পারবে। ঋদ্ধি সেদিক থেকে পাশে থেকে বাকিদের সহায়তা করতে পারত। বাদ গিয়ে ওর হতাশা থাকাটাই স্বাভাবিক বিষয়। কিন্তু তার মানে এই নয় যে, বাস্তব বিষয়গুলিকে অগ্রাহ্য করে প্রকাশ্যে কোচ ও বোর্ড প্রেসিডেন্টকে নিয়ে বলতে হবে।

বিসিসিআই প্রেসিডেন্ট ওকে কী বার্তা দিল, সেটি প্রকাশ্যে নাও বলতে পারত। এগুলি তো ব্যক্তিগত সম্পর্ক ও অনুভূতির বিষয়। এমনকি কোচ দ্রাবিড়ের বিষয়টিও সবার সামনে বলা উচিত হয়নি। এতে করে ঋদ্ধির বিশ্বাসযোগ্যতা কোথাও না কোথাও টলে গিয়েছে। বরং নিজের যুক্তি দিয়ে বলতে পারত, আমি যখন ফিট রয়েছি, সেইসময় আমাকে অন্যভাবে কী ভাবে ব্যবহার করা যায়, সেটি আপনারা বিচার করুন।

এই লড়াইতে ঋদ্ধি বুদ্ধি করে সিএবি-কে পাশে নিতে পারত, তা হলে ওর হয়ে বোর্ড ও নির্বাচকদের সঙ্গে সংস্থার পদাধিকারীরা লড়তে পারতেন। সেই প্রতিবাদ আরও জোরালো হতে পারত।

 

You might also like