Latest News

রক্তচোষা বাদুড় রাতের অন্ধকারে ডুব দেয় গভীর চুম্বনে, কেন জানেন

দ্য ওয়াল ব্যুরোঃ রক্ত চুষে খেয়ে পেট ভরায় তারা। রাতের অন্ধকারেই জমিয়ে বসে আসর। গাছের আড়ালে-আবডালে, কিংবা পুরনো কোনও বাড়ির ছাদে, রক্তচোষা বাদুড় (Vampire Bats) ঘুরে বেড়ায় রাতবিরেতে। আর চালায় নিজেদের মধ্যে পারস্পরিক ভাব বিনিময়।

মাস্কে মুখ ঢাকা বন্ধুদের চিনতে পারলাম, সেটা দারুন অনুভূতি

ভ্যাম্পায়ার ব্যাট বা রক্তচোষা বাদুড়ের ভাব বিনিময়ের অন্যতম কায়দা হল চুম্বন। যে সে চুম্বন নয়। একেবারে যাকে বলে ফ্রেঞ্চ কিস, তাই এই বাদুড়দের রোজকার অভ্যেস। একে অপরের মুখে মুখ ডুবিয়ে মন ভরে চলে চুম্বনপর্ব।

তবে না, একে প্রেমালাপ বলা চলে না। কারণ ভালবাসার কোনও আবেগ বা যৌন চাহিদায় ফ্রেঞ্চ কিস করে না বাদুড়েরা। বরং এতেই রক্ষা পায় তাদের সামাজিকতা। এক-একটি বাদুড়ের সঙ্গে তার আশেপাশের বাদুড়ের যোগাযোগ, বোঝাপড়া, বন্ধন এতেই দৃঢ় হয়। এভাবে চুম্বনের মাধ্যমে তারা মুখের রক্ত বিনিময় করে একে অন্যের সঙ্গে।

বিশেষজ্ঞরা বলেন, যদি কোনও বাদুড় না খেয়ে টানা তিন দিন থাকে, তবে খাবারের অভাবেই সে মারা যেতে পারে। আর তখনই নাকি দরকার হয় এই ফ্রেঞ্চ কিসের। মুখের ভিতর রক্তের আদান-প্রদানের মাধ্যমেই বেঁচে থাকে তারা।

বাদুড়ের মতো উড়ন্ত স্তন্যপায়ীরা কীভাবে নিজেদের মধ্যে পারস্পরিক সম্পর্ক গড়ে তোলে, তা নিয়ে একটি গবেষণা করা হয়েছিল। সেখান থেকেই এই তথ্য সামনে এনেছেন বিজ্ঞানীরা।

ভ্যাম্পায়ার ব্যাট হল পৃথিবীর একমাত্র স্তন্যপায়ী প্রাণী যারা শুধুমাত্র রক্ত খেয়ে বেঁচে থাকে। নিজেদের থেকে বড় কোনও প্রাণীর দেহে কামড় বসিয়ে রক্ত চোষে তারা। নিজেদের দেহের ওজনের প্রায় অর্ধেকের সমান রক্ত তারা একদিনে খেতে পারে।

পড়ুন দ্য ওয়ালের সাহিত্য পত্রিকা ‘সুখপাঠ’

You might also like