Latest News

আপনারা কাকে সমর্থন করছেন? খুনের মামলা নিয়ে প্রশ্ন করতেই মেজাজ হারালেন নীতীশ

দ্য ওয়াল ব্যুরো : গত ১২ জানুয়ারি বেসরকারি বিমান সংস্থার ম্যানেজার রূপেশ কুমার সিং পাটনায় নিজের বাড়ির কাছেই খুন হন। মুখ্যমন্ত্রীর বাসভবন থেকে মাত্র দু’কিলোমিটার দূরে ছিল রূপেশের বাড়ি। তিনি বাড়ির গেটের সামনে দাঁড়িয়ে গাড়ির জন্য অপেক্ষা করছিলেন। এমন সময় দুই বাইক আরোহী তাঁকে গুলি করে। শুক্রবার ওই খুন নিয়ে প্রশ্ন করতেই মেজাজ হারালেন মুখ্যমন্ত্রী নীতীশ কুমার। ‘ভুল ও অযৌক্তিক’ প্রশ্ন করার জন্য সাংবাদিকদের রীতিমতো তিরস্কার করেন তিনি।

এদিন নীতীশ কুমার একটি অনুষ্ঠানে গিয়েছিলেন। এক ফাঁকে সাংবাদিকরা রূপেশ খুন নিয়ে প্রশ্ন করেন। তিনি বলেন, “আপনারা তো মহান! কাকে আপনারা সমর্থন করছেন? আমি আপনাদের সরাসরি একথা জিজ্ঞাসা করছি।”

রূপেশ সিং-এর মৃত্যুর পরে অনেকে অভিযোগ করেছেন, বিহারে আইন-শৃঙ্খলা বলে কিছু নেই। মুখ্যমন্ত্রী এদিন পালটা প্রশ্ন করেন, “কারা এই রাজ্যে ১৫ বছর ক্ষমতায় ছিল? সেই স্বামী-স্ত্রীর শাসনকালে রাজ্যে বহু অপরাধ হয়েছে। তখন আপনারা কিছু বলেননি কেন?” এক্ষেত্রে নীতীশ আরজেডি প্রধান লালুপ্রসাদ যাদব ও তাঁর স্ত্রী রাবড়ি দেবীর শাসনকালের কথা উল্লেখ করেছেন।

পরে মুখ্যমন্ত্রী বলেন, “রাজ্যে কোনও অপরাধ ঘটলেই আমরা ব্যবস্থা নিই।” তাঁর দাবি, “সাংবাদিকদের প্রশ্ন ভুল ও অযৌক্তিক। একজন খুন হয়েছেন। খুনীদের নিশ্চয় কোনও মোটিভ ছিল। আমাদের দেখতে হবে কেন তিনি খুন হয়েছেন। পুলিশ তদন্ত করছে।”

নীতীশ সাংবাদিকদের বলেন, তাঁদের কাছে যদি খুনের ব্যাপারে কোনও সূত্র থাকে, তাঁরা যেন পুলিশকে তা জানান। পরে তিনি বলেন, “এভাবে পুলিশের মনোবল ভেঙে দেবেন না। ২০০৫ সালের আগে রাজ্যে কী হত? তখন অনেক অপরাধ হয়েছে।”

সভা থেকে বেরোনর সময় মুখ্যমন্ত্রী বলেন, তিনি রাজ্যের পুলিশ প্রধানকে বলবেন, সাংবাদিকদের কাছে যে তথ্য আছে, তা যেন পুলিশ বিবেচনা করে দেখে। তাঁকে বলা হয়, পুলিশ প্রধান সাধারণত সাংবাদিকদের ফোন ধরেন না। নীতীশ সঙ্গে সঙ্গে পুলিশ প্রধানকে ফোন করে জিজ্ঞাসা করেন, আপনি ফোন ধরেন না কেন?

নীতীশের এই রাগারাগির একটি ভিডিও ক্লিপ টুইটারে পোস্ট করেছেন লালু। তাঁর ছেলে তেজস্বী যাদব টুইট করে বলেছেন, “নীতীশ কুমার অপরাধীদের কাছে আত্মসমর্পণ করেছেন। তিনি বলছেন কেউ অপরাধ দমন করতে পারবে না। তিনি অতীতের সঙ্গে তুলনা করছেন। সেভাবে দেখলে বলা যায়, হরপ্পা সভ্যতার সময়েও অপরাধ হত।”

You might also like