Latest News

পার্থ, অরূপ, ববিরা কি কমিটিতে রইলেন, নাকি রদবদলে তাঁদের দলীয় পদ গেল

দ্য ওয়াল ব্যুরো: একুশের বিধানসভা ভোটের ফল প্রকাশের পর দ্য ওয়ালেই সবার প্রথম প্রকাশিত হয়েছিল যে এ বার তৃণমূলে এক ব্যক্তি এক পদ নীতি অনিবার্য ভাবেই বাস্তবায়িত হতে চলেছে। শেষমেশ হয়েছেও তাই। সোমবার সাংগঠনিক রদবদলে দেখা গেল, রাজ্য কমিটিতে বেশ কিছু নতুন মুখ তুলে আনা হয়েছে। তাঁরা কেউ সহ-সভাপতি তো কেউ সাধারণ সম্পাদক। আর সেই তালিকায় সংগঠনে অরূপ বিশ্বাস, ববি হাকিম, পার্থ চট্টোপাধ্যায়দের ভবিষ্যৎ নিয়ে বড় প্রশ্ন তুলে দিয়েছে। তাঁদের সাংগঠনিক পদ কি রইল, না কি রদবদলে তাঁরা পদ খোয়ালেন।

পার্থ চট্টোপাধ্যায় বর্তমানে দলের মহা সচিব পদে রয়েছেন। ববি-অরূপ হলেন সাধারণ সম্পাদক। সোমবার দল যে নতুন নিয়োগের তালিকা প্রকাশ করেছে তাতে দেখা গিয়েছে, রাজ্য কমিটিতে নতুন দু’জনকে সহ সভাপতি করা হয়েছে—বাঁকুড়ার শুভাশিস বটব্যাল ও মালদহের মহম্মদ শোহরাব। সেই সঙ্গে সাধারণ সম্পাদক করা হয়েছে গৌতম দাস, কৃষ্ণ কল্যাণী, শান্তিরাম মাহাতো, রমেন্দ্রনাথ বিশ্বাস, মিনতি অধিকারী, প্রতুল চক্রবর্তী, শওকত মোল্লা ও কৃষ্ণেন্দু নারায়ণ চৌধুরীকে।

তবে সেই তালিকার নিচে ছোট হরফে লেখা রয়েছে যে, এ সব হল নতুন নিয়োগ, বর্তমানে যে রাজ্য কমিটি রয়েছে তাতে নতুন নাম অন্তর্ভূক্ত হল। অর্থাৎ পার্থ চট্টোপাধ্যায়, অরূপ বিশ্বাস, ববি হাকিমরা আপাতত রাজ্য কমিটিতে থাকলেন।

তবে গুরুত্বপূর্ণ হল, এদিনের রদবদলে সাংগঠনিক পদ হারিয়েছেন একাধিক মন্ত্রী। বন মন্ত্রী জ্যোতিপ্রিয় মল্লিক তথা বালুকে উত্তর চব্বিশ পরগনার সভাপতির পদ থেকে সরানো হয়েছে। হাওড়ায় অরূপ রায় ও পুলক রায় দুজনকেই জেলা সংগঠনের দায়িত্ব থেকে অব্যহতি দেওয়া হয়েছে। পূর্ব বর্ধমানের নেতা তথা প্রাণী বিকাশ মন্ত্রী স্বপন দেবনাথেরও জেলা সভাপতি আর নেই।

তৃণমূলের একাধিক নেতার কথায়, এর মধ্যেই ইঙ্গিত পরিষ্কার। ববি হাকিম, অরূপ বিশ্বাসদের সাংগঠনিক পদ আপাতত থাকলেও, এক যাত্রায় পৃথক ফল হবে না।

আগামী দিনে তাঁদেরও সাংগঠনিক পদ ছাড়তে হতে পারে। দলের এক নেতার কথায়, হতে পারে এক ঝটকায় অনেককে সরিয়ে দিলে দল আন্দোলিত হয়ে উঠতে পারে। তাই ধাপে ধাপে রদবদল করা হচ্ছে।

You might also like