Latest News

ডিএ মামলার শুনানি শুরু হল সুপ্রিম কোর্টে, রাজ্যের থেকে ‘শর্ট নোট’ চাইল আদালত

দ্য ওয়াল ব্যুরো: সোমবার অবশেষে পশ্চিমবঙ্গ রাজ্য সরকারি কর্মচারীদের মহার্ঘ ভাতা (West Bengal DA Case) তথা ডিএ (DA- Dearness Allowance) নিয়ে মামলার শুনানি শুরু হল সুপ্রিম কোর্টে (Supreme Court)।

এ ব্যাপারে সুপ্রিম কোর্টে রাজ্য সরকারের তরফে আর্জি জানানো হয় যে মামলার শুনানি পিছিয়ে দেওয়া হোক। সেই সঙ্গে ডিএ নিয়ে কলকাতা হাইকোর্টে আদালত অবমাননার মামলা চলছে তার উপর স্থগিতাদেশ জারি করুক সর্বোচ্চ আদালত। কিন্তু সুপ্রিম কোর্টের বিচারপতিরা সেই প্রস্তাবে রাজি হননি। তাঁরা বলেন, মামলার শুনানি একবার পিছোনো হয়েছে। আর পিছোনো হবে না। তবে ডিএ নিয়ে হাইকোর্টে যে আদালত অবমাননার মামলা চলছে, তার উপর স্থগিতাদেশ দিয়েছে সুপ্রিম কোর্ট।

কর্মচারীদের পক্ষের আইনজীবী বিকাশ ভট্টাচার্য পরে জানান, যে হেতু সুপ্রিম কোর্টে মামলার শুনানি চলছে তাই হাইকোর্টে যেন আদালত অবমাননা মামলার শুনানি না হয় সেটা বলেছেন বিচারপতিরা।

গত মে মাসে কলকাতা হাইকোর্টের রায়ে বলা হয়েছিল, রাজ্য সরকারি কর্মচারীদের বকেয়া ডিএ তিন মাসের মধ্যে মেটাতে হবে। রাজ্য সরকার তা না করে, ওই নির্দেশ পুনর্বিবেচনার জন্য আবেদন জানিয়েছিল। এর পরই হাইকোর্টের বিচারপতিরা প্রশ্ন করেন যে, তিন মাসের মধ্যে রাজ্য সরকার বকেয়া না মেটানোয়, কেন তাদের বিরুদ্ধে আদালত অবমাননার মামলা করা হবে না? এদিন সেই মামলার শুনানির উপরেই স্থগিতাদেশ দিয়ে সুপ্রিম কোর্ট।

রাজ্য সরকারি কর্মচারীদের পক্ষে এদিন সওয়াল করেছেন প্রয়াত বিদেশ মন্ত্রী তথা বিজেপি নেত্রী সুষমা স্বরাজের মেয়ে বাঁসুরি স্বরাজ, বিকাশ ভট্টাচার্য প্রমুখ। অন্যদিকে রাজ্য সরকারের তরফে সওয়াল করেন কংগ্রেস নেতা তথা প্রবীণ আইনজীবী অভিষেক মনু সিঙ্ঘভি। সুপ্রিম কোর্টে সওয়াল করার সময়ে রাজ্যের আইনজীবী বলেন, হাইকোর্ট যেভাবে ডিএ দিতে বলছে তাতে ৪১ হাজার কোটি টাকা খরচ হবে। রাজ্যের কাছে এখন এত অর্থ নেই। তাই দিতে পারছে না।

এর পাল্টা সওয়াল করেছেন কর্মচারীদের পক্ষের আইনজীবী। সব শুনে বিচারপতিরা বলেন, আপনারা দুই পক্ষ যে যা বললেন, তা প্রত্যেকেই একটি ‘শর্ট নোট’ আকারে আদালতে পেশ করুন। এই মামলার পরবর্তী শুনানি হবে ১৪ ডিসেম্বর।

গুজরাতে ভোটের দিন মোদীর রোড শো, প্রশ্ন তুললেন মমতা

You might also like