Latest News

কাল তো কন্ডোম চাইবে, পরদিন জিনস, ছাত্রী স্যানিটারি প্যাডের কথা বলতেই ঝাঁঝিয়ে উঠলেন আমলা

দ্য ওয়াল ব্যুরো: বিহারের (Bihar) এক স্কুল ছাত্রী (student) শুধু জিজ্ঞেস করেছিল, সরকার কি আমাদের বিশ-ত্রিশ টাকার মধ্যে স্যানিটারি ন্যাপকিনের (sanitary pads) প্যাকেট দিতে পারে?

ব্যস! এই প্রশ্ন শুনেই এক পদস্থ সরকারি আমলা (officer) ঝাঁঝিয়ে জবাব দেন, “কাল বলবে সরকার তো জিনস (Jeans) দিতে পারে। কেন একটা সুন্দর জুতোই বা দেবে না!” এখানেই না থেমে তিনি বলেন, “এর পর তোমরা আশা করবে যে সরকার পরিবার পরিকল্পনার জন্য কন্ডোমও (condom) দেবে!”

বিহারে মহিলা কল্যাণের একটি প্রকল্প চলে। তার নাম ‘সশক্ত বেটি সমৃদ্ধ বিহার’! সেই প্রকল্পেরই একটি কর্মশালা চলছিল এক বস্তিতে। ওই কর্মশালায় উপস্থিত ছিলেন বিহারের মহিলা ও শিশু কল্যাণ নিগমের চেয়ারম্যান তথা আইএএস অফিসার হরজোৎ কউর ব্রহ্ম! ছাত্রীকে এমন কথা তিনিই বলেছেন।

এ কথা শুনে ছাত্রী যখন বলে, ‘ম্যাডাম! সরকার তো মানুষের ভোটেই তৈরি হয়!’ তা শুনে ফের তিরিক্ষি মেজাজে ওই মহিলা আমলা বলেন, “এ তো চরম বোকার মতো কথা! তা হলে ভোট দিও না। পাকিস্তানে (Pakistan) যাও। তোমরা কি শুধু টাকা আর পরিষেবার জন্য ভোট দাও?” কিন্তু পাকিস্তানের কথা শুনে ছাত্রীরাও চুপ থাকেনি। তারা বলে, ‘কেন পাকিস্তানে যাব! আমরা ভারতীয়।’

এর পরে অবশ্য ওই মহিলা আমলা কথা ঘোরানোর চেষ্টা করেন। তিনি বলেন, সবই সরকার দেবে কেন? এই ভাবনা ভুল। নিজেরা কিছু করার চেষ্টা করো।

মূলত নবম ও দশম শ্রেণির ছাত্রীরাই ওই কর্মশালায় উপস্থিত ছিল। হরজোৎ কউরের কথা শুনে যারা হতচকিত হয়ে যায়। কিন্তু ব্যাপারটা এখানেই থামে না। কর্মশালায় এক ছাত্রী অভিযোগ করে যে, ‘স্কুলে মেয়েদের টয়লেট প্রায়ই ভাঙা থাকে, সেখানে ছেলেরাও ঢুকে যায়’। সে কথা শুনে ওই শীর্ষ আমলা বলেন, তোমার বাড়িতে কি সবার জন্য আলাদা টয়লেট রয়েছে নাকি? এরকম হয় নাকি!

ছাত্রীদের সঙ্গে হরজোতের ওই কথোপকথনের ভিডিও ভাইরাল হয়েছে। তারপর তিনি আবার গোটা বিষয়টা অস্বীকার করেছেন। সেই সঙ্গে তাঁর দাবি, মহিলাদের কল্যাণ ও ক্ষমতায়ণের জন্য তিনি নাকি ধারাবাহিক লড়াই চালিয়ে যাচ্ছেন!

তৃণমূল নেতাদের গাছে বাঁধবে মানুষ, ওএমআর শিট উধাও নিয়ে আগ্রাসী সেলিম

You might also like