Latest News

আসন্ন পঞ্চায়েতেও কি ভোট হিংসা!‌ পুজোর উদ্বোধনে সুকান্তর মন্তব্যে জল্পনা

দ্য ওয়াল ব্যুরো:‌ ‘‌পঞ্চায়েত নির্বাচনে যেন কোনও মায়ের কোল খালি না হয়, এটাই আমার প্রার্থনা। মায়ের কাছে প্রার্থনা করি বাংলা যেন এই দুর্গতি থেকে রক্ষা পায়।’‌ পুজো উদ্বোধন করে একথাই বললেন সুকান্ত মজুমদার (Sukanta Mazumdar)। শনিবার বিধাননগরের ইস্টার্ন জোনাল কালচারাল সেন্টারে ষষ্ঠীর সকালে পুজোর উদ্বোধন করেন বিজেপির রাজ্য সভাপতি। উদ্বোধনে ছিলেন না কোনও কেন্ত্রীয় স্তরের নেতা।

এবার বিজেপির (BJP) পুজো মণ্ডপে ফুটে উঠেছে ভোট পরবর্তী হিংসা থেকে শিক্ষক নিয়োগ দুর্নীতির চিত্র। পুজো উদ্ধোধন করে সুকান্ত আরও বলেন, ‘আমরা যখন মণ্ডপে মণ্ডপে ঘুরে বেড়াচ্ছি তখন কলকাতার ফুটপাথে যুবক যুবতীরা তাদের চাকরির দাবিতে অবস্থান করছেন। আদালত (Kolkata Highcourt) বলছে ৭,০০০ ভুয়ো চাকরি দেওয়া হয়েছে। কলকাতার বিভিন্ন জায়গা থেকে কোটি কোটি টাকা উদ্ধার হচ্ছে। এই দুর্গতি থেকে মা দুর্গা আমাদের রক্ষা করুন’। তিনি আরও বলেন, ‘পশ্চিমবঙ্গে যেহেতু কোনও কর্মসংস্থানের ব্যবস্থা নেই, তাই তৃণমূল করাই এখন গ্রামে গঞ্জে রোজগারের একমাত্র উপায়। রাজনীতির সঙ্গে জীবিকা জড়িয়ে গেলে সেই রাজনীতিতে হিংসা হবেই। পশ্চিমবঙ্গকে এই জায়গা থেকে বেরোতে হবে।’‌

তবে এবছর বিজেপির দুর্গাপুজোর (Durga Puja 2022) কোনও জাঁকজমক নেই। পুজোর সূচনা হল রাজ্য় বিজেপির নেতৃত্বের হাতে। দেখা মেলেনি কোনও ‘‌হেভিওয়েটে’‌র। ছিলেন রাহুল সিনহা, অগ্নিমিত্রা পাল-সহ রাজ্য বিজেপি নেতৃত্ব। অথচ এই পুজো প্রথমবার উদ্বোধন করেছিলেন প্রধানমন্ত্রী। তৃতীয় বছরেই যা প্রায় জৌলুসহীন।

মণ্ডপে ফুটিয়ে তোলা হয়েছে, একশো দিনের কাজে দুর্নীতি, শিক্ষক নিয়োগে দুর্নীতি, আর্থিক কেলেঙ্কারির বিষয়গুলিকে। মণ্ডপে ঢোকার মুখেই রয়েছে ইডি-র প্রতীকী গাড়ি। বিজেপি পুজোকে নিছকই পুজো হিসেবে দেখছে না। পুজোর মধ্যেও রাজ্যের জ্বলন্ত ইস্যুগুলোতেই চর্চা হচ্ছে। যেকারণেই থিমেও ইস্যু। পাশাপাশি, এবারের পঞ্চায়েত ভোটেও কি অশান্তি, প্রাণহানি হতে চলেছে?‌ পঞ্চায়েত নির্বাচন নিয়ে মা দুর্গার কাছে সুকান্তর প্রার্থনার পর জল্পনা শুরু হয়েছে।

পেনশন পেতে জেরবার বৃদ্ধা, মমতা,অভিষেকের মুখ চেয়ে স্বজনেরা

You might also like