Latest News

সরানো হচ্ছে বিবেক সহায়কে! মুখ্যমন্ত্রীর বাড়িতে অনুপ্রবেশের ঘটনায় কি কড়া পদক্ষেপ?

দ্য ওয়াল ব্যুরো: মুখ্যমন্ত্রীর (Chief Minister) বাড়িতে লোক ঢুকে যাওয়ার জের, সরানো হচ্ছে রাজ্যের ডিরেক্টর অফ সিকিউরিটি (Director of Security) বিবেক সহায়কে (Vivek Sohay)।

শনিবার মাঝরাতে হঠাৎই মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের (Mamata Banerjee) বাড়ির পাঁচিল টপকে ঢুকে পড়েন এক ব্যক্তি। সারা রাত ঘাপটি মেরে বাড়ির মধ্যেই লুকিয়ে ছিলেন তিনি। বয়স তার বছর তিরিশ। নাম হাফিজুল মোল্লা (Hafizul Molla)। রবিবার সকালে হাফিজুল ধরা পড়তেই মুখ্যমন্ত্রীর নিরাপত্তা নিয়ে প্রশ্ন উঠে যায়। মুখ্যমন্ত্রীর আঁটোসাটো নিরাপত্তা বলয়ের মধ্যে কীকরে এমনভাবে বাড়ির মধ্যে ঢুকে পড়লেন ওই ব্যক্তি?

সূত্রের খবর, শনিবার রাত একটা নাগাদ নিরাপত্তারক্ষীদের চোখের আড়ালে ওই ব্যক্তি মুখ্যমন্ত্রীর বাড়ির পাঁচিল টপকে ঢুকে পড়েন ভেতরে। এমনকি সারা রাত বাড়ির মধ্যেই ঘাপটি মেরে বসে থাকেন তিনি। সকাল বেলা তাঁকে দেখতে পেয়েই হইচই পড়ে যায়। তাঁকে আটক করে কালীঘাট থানার পুলিশ।

হাফিজুলের বাবা মইনুল মোল্লা বলেন, “ও একবার নবান্নেও গেছিল। ওখানে তখন বলে অনুমতি ছাড়া ঢোকা যাবে না। কিন্তু আমার ছেলে শোনেনি। জবরদস্তি করে। তারপর ওকে পুলশ ধরেছিল।” তিনি আরও বলেন, “সেই সময়ে পুলিশ আমায় ফোন করেছিল। আমি তাঁদের বলি, স্যর ছেলেটার মাথার ঠিক নেই। তারপর এখন আবার শুনছি মুখ্যমন্ত্রীর বাড়িতে চলে গেছে।”

হাফিজুলের বাবা জানিয়েছেন, কলকাতার কোনও একটি মানসিক চিকিৎসা কেন্দ্রে তার চিকিৎসা চলছে। কিন্তু যখনতখন যেখানে খুশি চলে যায়। ফলে চিকিৎসাও ঠিক মতো হচ্ছে না। তবে অনেকের মতে, হাফিজুলের মাথার ব্যমো যা-ই থাকুক তার জন্য তার চিকিৎসা হতে পারে। কিন্তু কী ভাবে সে মুখ্যমন্ত্রীর বাড়ি পর্যন্ত পৌঁছে গেল তা নিঃসন্দেহে উদ্বেগের। আবার তার কাছে লোহার রডও ছিল। দিদিকে ভালবাসার সঙ্গে লোহার রডের ব্যাপারটার কোনও সঙ্গতি নেই।

তাই প্রশ্ন উঠছে অন্য জায়গায়। মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের জেড প্লাস ক্যাটগরি নিরাপত্তা বলয়ের মধ্যেও কীভাবে একজন ঢুকে পড়লেন? উল্লেখ্য, দিন কয়েক আগেই মুখ্যমন্ত্রীর বাড়ির অনতিদূরে ঘটে যায় জোড়া খুন। সেই সময়ও নিরাপত্তা নিয়ে প্রশ্ন জেগেছিল। এমনকি দেখা গেছে, মুখ্যমন্ত্রীর বাড়ির কাছের বেশ কয়েকটি সিসিটিভি ক্যামেরা খারাপ ছিল।

এর মধ্যেই শনিবারের ঘটনা নতুন করে উদ্বেগ সৃষ্টি করেছে। সূত্রের খবর, ওই ব্যক্তির মানসিক অবস্থা কেমন ছিল তাও খতিয়ে দেখা হচ্ছে। নিছকই ভুলবশত তিনি এমন কাণ্ড ঘটিয়েছেন নাকি এর পেছনে অন্য কোন কারণ আছে তাও তদন্ত করে দেখা হবে।

মন্ত্রিসভার বৈঠকেও আজ মুখ্যমন্ত্রী বাড়িতে লোক ঢুকে যাওয়া প্রসঙ্গ তোলেন শোভনদেব-সহ কয়েকজন মন্ত্রী। তাঁরা উদ্বেগ প্রকাশ করেন। যদিও মুখ্যমন্ত্রী তখন চুপ ছিলেন। সেখানে হোম সেক্রেটারি উপস্থিত ছিলেন। সেই সময় এই প্রসঙ্গ তোলা হয় বলে সূত্রের খবর।

এসবের মাঝে সরিয়ে দেওয়া হল রাজ্যের ডিরেক্টর অফ সিকিউরিটি বিবেক সহায়কে।

চাকরি মিলবে, এই ভরসায় টাকা দিয়ে প্রতারিত জলপাইগুড়ির বধূ, পলাতক অভিযুক্ত শিক্ষক

You might also like