Latest News

টিকাকরণের পর মৃত্যু প্রায় নেই, তবু এখনও ভ্যাকসিনের প্রথম ডোজই পাননি বহু ডাক্তার

দ্য ওয়াল ব্যুরো: করোনার দ্বিতীয় ঢেউয়ে প্রাণ হারিয়েছেন বহু ডাক্তার। সম্প্রতি ইন্ডিয়ান মেডিকেল অ্যাসোসিয়েশনের তরফে বলা হয়েছে দ্বিতীয় ঢেউ কেড়ে নিয়েছে দেশের মোট ৩২৯ জন ডাক্তারকে। কিন্তু অতিমারী পরিস্থিতিতে যে ডাক্তাররাই একমাত্র ভরসা, তাঁদের টিকাকরণের ব্যবস্থাই এখনও করা হয়নি ঠিক ভাবে।

আইএমএ-র দিন কয়েক আগের পরিসংখ্যান অনুযায়ী দেখা গেছে, করোনার জেরে যে ২৪৪ জন ডাক্তারের মৃত্যু হয়েছিল তাঁদের মধ্যে মাত্র ৭ জনের পুরোপুরি ভ্যাকসিন নেওয়া হয়ে গিয়েছিল। অর্থাৎ তাঁরা ভ্যাকসিনের দুটি ডোজই পেয়েছিলেন। কিন্তু বাকিরা কেউই সম্পূর্ণ ভ্যাকসিন পাননি। কেউ হয়তো করোনা টিকার প্রথম ডোজ পেয়েছিলেন, আবার কেউ হয়তো কোনওটাই পাননি।

টিকার দুটি ডোজ নেওয়া হলে তা যে করোনায় মৃত্যুর সম্ভাবনা অনেকটাই কমিয়ে দেয় এ নিয়ে বিশেষ সংশয় নেই বিশেষজ্ঞদের মধ্যে। ম্যাক্স হেলথকেয়ারের তরফেও এই কথা স্বীকার করে নেওয়া হয়েছে। কর্তৃপক্ষ জানিয়েছেন তাঁদের মোট ১৩ হাজার ৯৬৫ জন কর্মী ভ্যাকসিনের দুটি ডোজই নিয়েছেন। তাঁদের মধ্যে করোনা আক্রান্ত হয়েছেন মাত্র ৬ শতাংশ। সেই আক্রান্ত কর্মীদের মধ্যেও বেশিরভাগই সেরে উঠেছেন বাড়িতেই। মারা গেছেন মাত্র ১ জন। প্রায় একই ধরনের ফলাফল পেয়েছেন অ্যাপোলো হেলথকেয়ারের কর্তারাও।

আইএমএ-র প্রেসিডেন্ট ডঃ জয়লাল বলেছেন, “যে তথ্য আমাদের হাতে আসছে তাতে মনে হচ্ছে ভ্যাকসিনের দুটি ডোজ না পাওয়াই ডাক্তারদের মৃত্যু্র মূল কারণ। গড়ে আমরা ২০ জন করে ডাক্তারকে হারাচ্ছি রোজ। সরকারি বেসরকারি সব প্রতিষ্ঠানের ক্ষেত্রেই এই তথ্য প্রযোজ্য।”

এ পর্যন্ত দেশে করোনার থাবায় মৃত্যু হয়েছে মোট ১ হাজার ৬৫ জন ডাক্তারের। তার মধ্যে ৭৩৬ জন গত বছর মারা গিয়েছিলেন।

দিল্লি এইমসের ডাক্তাররা জানিয়েছেন, অবিলম্বে তাঁরা ভ্যাকসিনের দুটি ডোজ নিয়ে সুরক্ষিত হতে চান। তাঁদের মধ্যে অনেকেই প্রথম ডোজটিও পাননি। প্রায় ২০০ জন অপেক্ষা করে আছেন দ্বিতীয় ডোজের জন্য। একটিও ডোজ পাননি আরও প্রায় ২০০ জন ডাক্তার।

গত ১৬ জানুয়ারি থেকে দেশের ডাক্তারদের টিকাকরণ প্রক্রিয়া শুরু হয়েছে। তবু এখনও এত ডাক্তার টিকা পাননি। কেন্দ্র সরকারের টিকাকরণ পদ্ধতি নিয়ে স্বভাবতই প্রশ্ন উঠেছে।

You might also like