Latest News

অভিষেক যাচ্ছেন সোমবার, পুরভোটে ত্রিপুরায় বিচারপতিকে বিশেষ পর্যবেক্ষক চাইল তৃণমূল

দ্য ওয়াল ব্যুরো: ত্রিপুরায় (Tripura) পুরভোট ২৫ নভেম্বর বৃহস্পতিবার। প্রচার শেষ হবে ২৩ তারিখ মঙ্গলবার। প্রচার শেষের মুখে ঝড় তুলতে ২২ নভেম্বর আগরতলা যাচ্ছেন তৃণমূলের সাধারণ সম্পাদক অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায়। আজ শনিবার সেখানে যাচ্ছেন কলকাতার পুর-প্রশাসক তথা পরিবহন মন্ত্রী ফিরহাদ হাকিম।

টিকার সেকেন্ড ডোজ নেয়নি বহু মানুষ, খুঁজতে বেরোচ্ছে নবান্ন

অভিষেকের সোমবারের কর্মসূচি এখনও চূড়ান্ত করেনি তৃণমূল। দল চাইছে আগরতলায় বড় পদযাত্রা করতে। কিন্তু রাজ্য নির্বাচন কমিশন কোভিড বিধির কারণে বড় মাপের মিছিলের অনুমতি দেবে কি না তা নিয়ে দলের অনেকেই সন্দিহান। চেষ্টা চলছে বড় কোনও হলঘরে কর্মীসভা করার।

তৃণমূলের অভিযোগ, নির্বাচন কমিশন ঠুঁটো। কমিশনের নীরবতাকে ঢাল করে বিজেপি বিরোধীদের প্রচার করতে দিচ্ছে না। তাদের প্রধান টার্গেট তৃণমূল। অন্যদিকে, বিজেপি এবং অন্য বিরোধী দলগুলি একান্তে বলছে, তৃণমূল বুঝে গিয়েছে তারা পুরভোটে সুবিধা করতে পারবে না। তাই সন্ত্রাসের গল্প ফাঁদছে আগাম।

তৃণমূল নেতাদের বক্তব্য, বিজেপি ও প্রশাসনের ভয়ে মানুষ গুটিয়ে আছে। অবাধ ভোট হলে বিজেপির ভরাডুবি কেউ ঠেকাতে পারবে না। এই অবস্থায় কর্মীদের মনোবল চাঙ্গা করতে অভিষেককে দিয়ে ঘরোয়া সভাও করাতে চাইছে রাজ্য নেতৃত্ব।

প্রচারের শেষ প্রহরে ত্রিপুরার রাজ্য প্রশাসনের পাশাপাশি সেখানকার নির্বাচন কমিশনের বিরুদ্ধেও জোর লড়াই শুরু হয়েছে তৃণমূলের। শুক্রবার দিনভর রাজ্য নির্বাচন কমিশনের দপ্তরের সামনে তৃণমূলের নেতারা অবস্থান বিক্ষোভ করেন। সেখানে বাবুল সুপ্রিয়, সাংসদ সুস্মিতা দেব, সুবোল ভৌমিক প্রমুখ উপস্থিত ছিলেন। তৃণমূলের অভিযোগ, ত্রিপুরায় রাজ্য নির্বাচন কমিশনের অধীনে অবাধ ভোট সম্ভব নয়। তাদের দাবি, হাইকোর্ট কিংবা সুপ্রিম কোর্টের কোনও অবসরপ্রাপ্ত বিচারপতিকে বিশেষ পর্যবেক্ষক নিয়োগ করে ভোট করানো হোক।

পড়ুন দ্য ওয়ালের সাহিত্য পত্রিকা ‘সুখপাঠ’

You might also like