Latest News

থানাতেই মানবাধিকার লঙ্ঘন হয় সবচেয়ে বেশি, পুলিশকে বার্তা সুপ্রিম কোর্টের প্রধান বিচারপতির

দ্য ওয়াল ব্যুরো: এদেশে থানাতেই সবচেয়ে বেশি মানবাধিকার লঙ্ঘন হয়, রবিবার এক অনুষ্ঠানে গিয়ে এমনটাই মন্তব্য করলেন সুপ্রিম কোর্টের প্রধান বিচারপতি এনভি রামানা। পুলিশি হেফাজতে বন্দির উপর শারীরিক নিগ্রহ নিয়ে এদিন যথেষ্ট উদ্বেগ প্রকাশ করেছেন তিনি। বন্দিদের উপর পুলিশের এই অত্যাচারকে সমাজের অন্যতম বড় সমস্যা বলে উল্লেখ করেছেন রামানা।

এদিন শীর্ষ আদালতের প্রধান বিচারপতি বলেন, সাংবিধানিক ঘোষণা, আশ্বাস সত্ত্বেও বিভিন্ন থানায় আইন যথাযথভাবে পালন করা হয়না। গ্রেফতার হওয়া বা আটক করে রাখা মানুষের উপর যথেচ্ছ অত্যাচার চলে অনেক থানাতেই। আর এতে গভীর প্রভাব পড়ে বিচার ব্যবস্থার উপর।

কী প্রভাব? রামানা বলেছেন, আটক করার পরপরই যদি বন্দির উপর শারীরিক নির্যাতন চালানো হয়, বন্দিকে প্রচুর মারধর করা হয়, তবে তারপর সে নিজের পাশেই আর ঠিকভাবে দাঁড়াতে পারে না। নিজেকে রক্ষা করতে পারে না। ওই মামলার বিচার যখন আদালতে হয়, বন্দি আর নিজের হয়ে ঠিকঠাক কথা বলতে পারে না। পুলিশি অত্যাচার তার উপর মানসিক চাপ সৃষ্টি করে।

দিল্লির বিজ্ঞান ভবনে ন্যাশানাল লিগাল সার্ভিস অথরিটি আয়োজিত একটি অনুষ্ঠানে উপস্থিত হয়েছিলেন রামানা। সেখানেই পুলিশি হেফাজতে বন্দিদের উপর আচরণ নিয়ে উদ্বেগ প্রকাশ করেছেন প্রধান বিচারপতি।

তিনি আরও বলেন, আইন সকলের জন্য সমান। তবে আজকাল শুধু সমাজের পিছিয়ে পড়া মানুষ বা আর্থিক ভাবে অস্বচ্ছলদের উপর অত্যাচার হয় না। থানাগুলিতে সকলের উপরেই থার্ড ডিগ্রি প্রয়োগ করা হয়। তবে এক্ষেত্রে নির্দিষ্ট কোনও মামলার কথা খোলসা করে বলেননি রামানা।

কীভাবে এই পরিস্থিতি বদলানো সম্ভব?

রামানা বলেন, সংবিধানে এ ব্যাপারে কী লেখা আছে তা পরিষ্কার করে প্রত্যেক থানায় টাঙানো উচিত। যাতে পুলিশ এবং বন্দি দুজনেই সে সম্পর্কে সচেতন হন। সারা দেশের পুলিশ অফিসারদের এ বিষয়ে বার্তা দেওয়াও প্রয়োজন বলে জানিয়েছেন রামানা।

You might also like