Latest News

মুখে নেই মাস্ক, করোনাকে বুড়ো আঙুল দেখিয়েই হরিদ্বারে পূণ্যস্নান লক্ষাধিক ভক্তের

দ্য ওয়াল ব্যুরো: দেশ জুড়ে বেড়ে চলেছে করোনা সংক্রমণ। প্রায় প্রতিদিনই সংক্রমণের হারে নতুন করে তৈরি হচ্ছে রেকর্ড। কিন্তু করোনার সতর্কতার প্রচারই সার, আদতে কাজের কাজ হচ্ছে না কিছুই। অতিমহামারীর দ্বিতীয় ঢেউতেও সচেতন হলেন না সাধারণ মানুষ। অসচেতনতার সেই ছবিই আরও একবার চোখে আঙুল দিয়ে দেখিয়ে দিল কুম্ভ মেলা।

উত্তরাখণ্ডের হরিদ্বারের গঙ্গা পাড়ে কুম্ভ মেলা উপলক্ষ্যে জড়ো হলেন হাজার হাজার মানুষ। রবিবার করোনা আবহে মাস্ক ছাড়াই ধর্মীয় উৎসবের সাক্ষী থাকল গোটা দেশ। হরিদ্বারের গঙ্গায় শাহী স্নানের একদিন আগে এভাবে নির্বিচারে করোনা বিধি ভঙ্গের বিরুদ্ধে সমালোচনায় সামিল হয়েছেন অনেকেই।

জানা গেছে, রবিবার কুম্ভ মেলা উপলক্ষ্যে গঙ্গাস্নানের জন্য হরিদ্বারে জড়ো হয়েছিলেন এক লক্ষেরও বেশি মানুষ। কেন স্বাস্থ্য দফতরের নির্দিষ্ট করোনা বিধি মানার প্রয়োজন মনে করলেন না পূণ্যার্থীরা? উত্তরে উঠে এসেছে আজব যুক্তি।

হরিদ্বারে ঢুকতে হলে করোনা টেস্টের নেগেটিভ রিপোর্ট বাধ্যতামূলক করেছে সরকার। আর সেই কারণেই আপাতত হরিদ্বারে করোনা নিয়ে বিশেষ মাথাব্যথার কারণ নেই, এদিন সাংবাদিকদের প্রশ্নের উত্তরে এমনটাই জানিয়েছেন একাধিক পূণ্যার্থী। তাঁদের দাবি, করোনা নিয়ে অত ভাবার দরকার নেই।

প্রতি ১২ বছর অন্তর কুম্ভ মেলা অনুষ্ঠিত হয়। এবছর করোনা আবহে কুম্ভ মেলার পরিস্থিতি খানিক অন্যরকম।দেশ জুড়ে লাগাতার বেড়ে চলেছে করোনা আক্রান্তের সংখ্যা। গত ২৪ ঘণ্টাতেই ভাইরাসে সংক্রমিত হয়েছেন দেড় লাখের বেশি মানুষ। কিন্তু অতিমহামারী নিয়ে উদ্বেগটা কেবলমাত্র চিকিৎসা মহলেই সীমাবদ্ধ। সাধারণ মানুষের মধ্যে এখনও সেই দুশ্চিন্তা প্রভাব বিস্তার করতে পারেনি।

কুম্ভ মেলা উপলক্ষ্যে হরিদ্বারের গঙ্গার ঘাটে ঘাটে করোনার জন্য বাড়তি সতর্কতার ব্যবস্থা করা হয়েছে। পূণ্যার্থীদের ভিড় জমাতে বারংবার নিষেধ করেছেন বিশেষজ্ঞরা। কিন্তু তীর্থযাত্রার সময় এই ধরণের গাইডলাইন মেনে চলা একেবারেই অসম্ভব বলে দাবি করেছেন ভক্তরা।

হরিদ্বারে গত ২৪ ঘণ্টায় করোনা আক্রান্ত হয়েছেন মোট ৩৮৬ জন। এই মুহূর্তে শহরে সক্রিয় করোনা রোগীর সংখ্যা ২ হাজার ৫৬ জন। মাত্র এক সপ্তাহের মধ্যেই হরিদ্বারের করোনা সংক্রমণের হার বেড়ে গেছে ১০০ শতাংশ।

You might also like