Latest News

ফের ভারতের প্রসাধনী ব্যবসায় বিনিয়োগ করছে টাটা

দ্য ওয়াল ব্যুরো : ২৩ বছর আগে প্রসাধনী দ্রব্যের (Cosmetics) ব্যবসা থেকে সরে গিয়েছিল টাটা গ্রুপ। সম্প্রতি তারা ফের ওই ব্যবসায় বিনিয়োগ করার সিদ্ধান্ত নিয়েছে। একটি সূত্রে খবর, ২০২৫ সালের মধ্যে ‘বিউটি বিজনেস’-এ ওই গোষ্ঠী বিনিয়োগ করবে ২০০০ কোটি ডলার। অর্থাৎ দেড় লক্ষ কোটি টাকার বেশি। ট্রেন্ট লিমিটেডের নন এক্সিকিউটিভ চেয়ারম্যান নোয়েল টাটা বলেন, “বিউটি প্রোডাক্টের ওপরে আমরা এখন সবচেয়ে বেশি গুরুত্ব দিচ্ছি। এর পাশাপাশি জুতো এবং অন্তর্বাসের ব্যবসাতেও আমরা গুরুত্ব দেব।”

ট্রেন্ট লিমিটেড টাটা গ্রুপের একটি সংস্থা। তারা মূলত খুচরো পণ্যের দোকান চালায়। এক সাক্ষাৎকারে নোয়েল জানান, “আমাদের প্রোডাক্ট আরও বাড়ানো হবে। নানা ক্ষেত্রে আমরা পরীক্ষা-নিরীক্ষা চালাব। আমাদের ধারণা, খুচরো ব্যবসার ক্ষেত্রে বিকাশের যথেষ্ট সুযোগ আছে।”

২০১৭ সালে ভারতে প্রসাধনী দ্রব্যের বাজার ছিল ১১০০ কোটি ডলারের। অর্থাৎ ভারতীয় মুদ্রায় তার মূল্য ছিল ৮৩ হাজার কোটি টাকার বেশি। ২০২৫ সালের মধ্যে ওই বাজারের আয়তন বাড়বে দ্বিগুণ। অতিমহামারীর মধ্যেও প্রসাধনী দ্রব্যের বাজার বেড়েছে বিপুল হারে। মিলেনিয়াল এবং জেনারেশন জেড অর্থাৎ এযুগের তরুণ-তরুণীরা দামি প্রসাধনী দ্রব্য নিয়ে যথেষ্ট আগ্রহ দেখাচ্ছে।

কয়েক দশক আগে ভারতে বিউটি প্রোডাক্টসের বাজারে টাটার প্রাধান্য ছিল প্রশ্নাতীত। নোয়েল টাটার মা সিমোনে টাটার সহায়তায় ফরাসী প্রসাধনী সংস্থার ল্যাকমে ভারতে ব্যবসা শুরু করে। এদেশে তাদের কোম্পানির নাম হয় লক্ষ্মী। ১৯৯৮ সালে ওই কোম্পানি কিনে নেয় ইউনিলিভার।

ওয়েলথমিলস সিকিউরিটিজের ইকুইটি স্ট্র্যাটেজিস্ট ক্রান্তি বাথিনি বলেন, টাটা গ্রুপ এখন ব্যবসা বাড়ানোর জন্য বড় উদ্যোগ নিয়েছে। প্রসাধনী দ্রব্য, জুতো এবং অন্তর্বাসের ব্যবসায় তারা যথেষ্ট মুনাফা করবে বলে আশা করে।

ট্রেন্ট চেষ্টা করছে যাতে তারা প্রসাধনী দ্রব্যের কয়েকটি ব্র্যান্ডকে জনপ্রিয় করতে পারে। ওই পণ্যগুলি ট্রেন্টের নিজস্ব রিটেল চেন ওয়েস্ট সাইডের মাধ্যমে বিক্রি করা হবে। এছাড়া অনলাইনেও মিলবে ওই ব্র্যান্ডগুলি। পর্যবেক্ষকরা বলেন, ভারতে বেশিরভাগ মহিলা তাঁদের বাড়ির কাছের দোকান থেকে প্রসাধনী দ্রব্য কেনাকাটা করেন। সেখানে পছন্দের জিনিসটি বেছে নেওয়ার সুযোগ থাকে কম। তাছাড়া ট্রায়ালও দেওয়া যায় না। এই পরিস্থিতিতে অনলাইনে প্রসাধনী দ্রব্যের ব্যবসা বিশেষ লাভজনক হয়ে দাঁড়াতে পারে। অনলাইনে নিজেদের বিউটি প্রোডাক্টস বিক্রির ওপরে গুরুত্ব দিচ্ছে টাটাও।

You might also like