Latest News

আমার বুক সুডোল নয়, তো! আমি গর্বিত মা

দ্য ওয়াল ব্যুরো: সোশ্যাল মিডিয়া জুড়ে নারী দিবসের উদযাপনের জোয়ারে ঝলসে উঠেছে তাঁর পোস্ট। কয়েকশো লাইক-শেয়ারে দেওয়ালে দেওয়ালে ভাগ হয়ে গেছে তাঁর বক্তব্য। সে বক্তব্যের প্রধান বিষয় হল, নারীত্বের নামে শরীরসচেতনতার অভ্যাস বন্ধ হোক। সে বক্তব্যের উপজীব্য হল, এক জন নারী একই সঙ্গে এক জন মা। তাই পুরুষতন্ত্রের দৃষ্টিতে নারীর শরীরকে মাপা বন্ধ হওয়ার দাবিতে গলা তুলেছেন তিনি।

তিনি স্বস্তিকা মুখোপাধ্যায়। এই সময়ের অন্যতম অভিনেত্রী। তাঁর অভিনয়ের ও সৌন্দর্যের আবেদনে মুগ্ধ আট থেকে আশি। নারী দিবসে সেই স্বস্তিকাই প্রশ্ন তুলে দিলেন, দিন যতই স্থির করা থাক, পুরুষতন্ত্রের চোখে নারীকে শরীর হিসেবে দেখার দৃষ্টিভঙ্গিটা কি আদৌ বদলায়?

শুক্রবারের ফেসবুক পোস্টে স্বস্তিকা জানান, সম্প্রতি তিনি নিজের ইনস্টাগ্রাম অ্যাকাউন্টে একটি ছবি পোস্ট করেন। আর সেই ছবি দেখে তাঁকে প্রশ্ন করা হয় কেন তাঁর স্তনের আকার সুগঠিত নয়, কেন তাঁর স্তনগুলি শিথিল হয়ে গিয়েছে?

স্বস্তিকা এই প্রসঙ্গেই লিখেছেন, ‘‘এক জন নারীকে দেখার সময়ে সব পুরুষের চোখে কি প্রথম এটাই বিবেচ্য যে তার স্তনের আকার কেমন? এটাই কি তাঁদের মন্তব্য করার মতো একমাত্র বিষয়?”

i had posted this picture on Instagram and all I heard was ‘WHY DO YOU HAVE SAGGY BOOBS?!’ Why are men and Women always…

Swastika Mukherjee এতে পোস্ট করেছেন বৃহস্পতিবার, 7 মার্চ, 2019

এ ধরনের অশালীন মন্তব্যকারীদের মুখ বন্ধ করে দিতে অভিনেত্রী আরও লিখেছেন, ‘‘অভিনেত্রী হওয়ার পাশাপাশি আমি এক জন মা। আর বেশ কিছু বছর সন্তানকে স্তন্যপান করিয়েছি। পাম্প ব্যবহার করিনি। সুযোগ পেলে আবারও স্তন্যপান করাব আমি। আর সে জন্য অমি এক জন গর্বিত মা। আপনার যদি আমার স্তন নিয়ে কিছু বলার থাকে, যান, কয়েক বছর ধরে কোনও শিশুকে বুকের দুধ খাইয়ে আসুন আগে।”

তিনি আরও লেখেন, “আমি যখন নায়িকা হিসেবে অভিনয় করি, তখন আমার দায় থাকে টানটান অন্তর্বাস পরে বুকের গঠন সুডোল রাখার। কারণ পৃথিবী আমায় সেভাবেই দেখতে চায়। কিন্তু সেটা যখন আমি করছি না, তখন আমার কিচ্ছু এসে যায় না। হ্যাঁ, আমার স্তনজোড়া শিথিল, আর আমি ওদের ওভাবেই ভালবাসি।”

এর পরে আরও একটি পোস্ট শেয়ার করেন অভিনেত্রী। সেখানে তিনি লেখেন, ‘‘আজ বিশ্ব নারী দিবস। কিছু ক্ষণ পর থেকেই চতুর্দিকে নানা সার্কাস শুরু হয়ে যাবে। এখনও এটাই আশা করা হয় যে এক জন মেয়েকে সব সময়ে সব দিক থেকে ছবির মতো সুন্দর এবং নিখুঁত হতে হবে। তার স্তন, কোমর, নিতম্ব, ঠোঁটের চুলচেরা বিচার করা হবে। যদি সেগুলো যথেষ্ট ‘সুন্দর’ না হয়, তা হলে অস্ত্রোপচারের মাধ্যমে সেগুলো ঠিক করাতে হবে। আর তা না করালে সেই মহিলাকে আবার ট্রোলের শিকার হতে হবে। কী ব্যঙ্গ!”

It’s #InternationalWomensDay⁠ ⁠ and all the circus around it will start and this is what the actual scene is. We are…

Swastika Mukherjee এতে পোস্ট করেছেন বৃহস্পতিবার, 7 মার্চ, 2019

You might also like