Latest News

তাজমহলের ইতিহাস বদলে হস্তক্ষেপ করবে না সুপ্রিম কোর্ট

দ্য ওয়াল ব্যুরো: ইতিহাসের বই থেকে তাজমহল (Taj Mahal) নির্মাণ সংক্রান্ত ‘তথাকথিত ভুল’ তথ্য মুছে ফেলা এবং স্মৃতিস্তম্ভের বয়স অনুসন্ধানের অনুমতি চেয়ে হওয়া একটি মামলা খারিজ করে দিয়েছে সুপ্রিম কোর্ট (Supreme Court)। বিচারপতি এমআর শাহ এবং সিটি রবিকুমারের বেঞ্চ আবেদনকারীকে আর্কিওলজিক্যাল সার্ভে অফ ইন্ডিয়ার (এএসআই) কাছে যেতে।বলেছে। তাজমহল নিয়ে ওই দুটি দাবি জানিয়ে সর্বোচ্চ আদালতে জনস্বার্থের মামলা হয়েছিল।

আদালত বলেছে, জনস্বার্থের মামলা ঘোলা জলে মাছ ধরার জন্য নয়। আমরা এখানে ইতিহাস পুনরায় লিখতে বসিনি। ইতিহাসকে আপন গতিতে চলতে দিন।

আদালত অবশ্য আবেদনকারীকে পুরোপুরি হতাশ করেনি। বলেছে এএসআই-এর কাছে যেতে। এরফলে ওই সরকারি সংস্থাকে যেমন আবেদনকারীর বক্তব্য শুনতে হবে, তেমনই অবস্থান স্পষ্ট করতে হবে। হালে লালকেল্লা নিয়ে মামলায় এএসআই ওই প্রাচীন নির্মাণের কোনও অংশে খোঁড়াখুঁড়ি, বিকৃতি এবং জনসাধারণের পরিদর্শন নিষিদ্ধ বলে চিহ্নিত এলাকা উন্মুক্ত করতে অস্বীকার করেছে। তারা বলেছে, এগুলি দেশে অশান্তির কারণ হবে। মামলাটির এখনও চূড়ান্ত নিষ্পত্তি হয়নি।

ইতিহাস বই এবং পাঠ্যপুস্তকে তাজমহল নির্মাণ সংক্রান্ত অনেক তথ্য ভুল আছে বলে চলতি মামলায় আবেদনকারীর দাবি। সুরজিৎ সিং যাদব নামে এক আবেদনকারী তাজমহলের ইতিহাস নতুন করে লেখার দাবি জানিয়েছেন।

আবেদনে তাজমহলের বয়স নিয়ে তদন্ত করার জন্য এএসআইকে নির্দেশ দেওয়ার আবেদন করা হয়েছে।

আবেদনকারীর দাবি তিনি গবেষণা করে এই তথ্য উদ্ধার করেছেন যে মোঘল সম্রাট শাহজাহানের স্ত্রী মুমতাজের দেহ সমাধিস্থ করার আগে থেকেই সেখানে একটি প্রাসাদ ছিল।

মামলাকারির বক্তব্য, এটা আশ্চর্যের এবং দুর্ভাগ্যের যে ইতিহাসবিদরা এই দুর্দান্ত সমাধিটির স্থপতির নাম উল্লেখ করেননি। অতএব, এটি বেশ স্পষ্টভাবে ইঙ্গিত করে যে রাজা মান সিংয়ের প্রাসাদটি ভেঙে ফেলা হয়নি বরং তাজমহলের বর্তমান চেহারা তৈরি করার জন্য শুধুমাত্র সংশোধন ও সংস্কার করা হয়েছিল। এ কারণেই শাহজাহানের দরবারের ইতিহাস লেখকদের দলিলে কোনও স্থপতির নামের উল্লেখ নেই।

কার্ড সোয়াইপ করলেই বেরোবে সোনা! পৃথিবীর প্রথম ‘সোনার এটিএম’ চালু ভারতের এই শহরে

You might also like