Latest News

‘মার খাবে ধর্মনিরপেক্ষতা’, স্টুডেন্ট পুলিশ ক্যাডেট প্রজেক্টে হিজাব নয়, মুসলিম ছাত্রীকে কেরল সরকার 

দ্য ওয়াল ব্যুরো: স্টুডেন্ট পুলিশ ক্যাডেট প্রজেক্টে (student police cadet) হিজাব (hijab) ও ফুল স্লিভ পোশাক পরার অনুমতি চেয়েছিল। কিন্তু নিজের ধর্মীয় পরিচিতি, স্বাতন্ত্র্যের প্রতীক হিসাবে এক মুসলিম ছাত্রীর (muslim girl) ওই পোশাক পরার আবেদন খারিজ করে দিল কেরল সরকার (kerala government)। পিনারাই বিজয়ন সরকারের সাফ কথা, স্টুডেন্ট পুলিশ ক্যাডেটের হিজাব পরায় ধর্মনিরপেক্ষতা (secularism) মার খাবে। তাকে ছাড় দেওয়া যাবে না।

কেরলে হাইস্কুলের পড়ুয়াদের আগামী দিনের গণতান্ত্রিক সমাজের নেতা হিসাবে গড়ে তোলার জন্য তাদের মধ্যে আইন, শৃঙ্খলা, নাগরিক বোধ, সমাজের বিপন্ন অংশের প্রতি সমব্যাথী হওয়া, সামাজিক কুপ্রথার বিরুদ্ধে রুখে দাঁড়ানোর ট্রেনিং দিতেই চালু হয়েছে স্টুডেন্ট পুলিশ ক্যাডেট (এসপিসি) প্রজেক্ট।
রাজ্যের স্বরাষ্ট্র দপ্তর তাদের অর্ডারে বলেছে, ওই ছাত্রীর আবেদন গুরুত্ব দিয়ে বিবেচনা করার পর সরকার সম্পূর্ণ নিশ্চিত যে, তার আবেদন গ্রহণযোগ্য নয়। তাছাড়া স্টুডেন্ট পুলিশ ক্যাডেট প্রজেক্টে মেয়েটিকে ছাড় দেওয়া হলে অন্য ধর্মের পড়ুয়ারাও নিজের নিজের মতো একই ধরনের দাবি তুলতে পারে, যাতে রাজ্যে ধর্মনিরপেক্ষতার বড় ক্ষতি হবে। তাই স্টুডেন্ট  পুলিশ ক্যাডেট প্রজেক্টে ইউনিফর্মে ধর্মীয় পরিচিতির চিহ্নকে গুরুত্ব দেওয়ার কোনও আভাস বা ইঙ্গিত দেওয়া ঠিক হবে না।

ওই ছাত্রীর আবেদন প্রথমে কেরল হাইকোর্ট খারিজ করে দেয়। সেখানে সে বলেছিল, স্টুডেন্ট পুলিশ ইউনিফর্ম হিসাবে সে হিজাবে মাথা ঢাকতে, ফুল স্লিভস পোশাক পরতে চায়। কিন্তু আদালতে তা খারিজ হয়। যদিও আদালত তাকে চাইলে রাজ্য সরকারের কাছে দাবি জানানোর রাস্তা খোলা আছে বলে জানিয়েছিল। হাইকোর্টের পরামর্শ মেনে সে রাজ্য সরকারের কাছে আর্জি জানায়।

একেবারে প্রথমে ওই ছাত্রীকে স্টুডেন্ট পুলিশ ক্যাডেটের ফ্যাকাল্টির পক্ষ থেকে জানিয়ে দেওয়া হয়, ইসলামি রীতি, বিশ্বাস মেনে হিজাব  ও ফুল স্লিভ পোশাকে অনুমতি দেওয়া  হবে না। তারপরই মেয়েটি হাইকোর্টে যায়।

 

You might also like