Latest News

ইউটিউবের বিজ্ঞাপন অশ্লীল, ৭৫ লক্ষ ক্ষতিপূরণ চাই! আর্জি খারিজ করে উল্টে জরিমানা করল কোর্ট

দ্য ওয়াল ব্যুরো: পুলিশ হওয়ার পরীক্ষা দেওয়ার জন্য প্রস্তুতি নিচ্ছিলেন তিনি। কিন্তু তাতেই নাকি বাধা হয়ে দাঁড়াচ্ছিল ইউটিউবের অশ্লীল বিজ্ঞাপন (Obscene YouTube Ads)। তাই ইউটিউব সহ বিভিন্ন সোশ্যাল মিডিয়া প্ল্যাটফর্মে অশ্লীল বিজ্ঞাপন বন্ধ করার জন্য আবেদন করে এবং ইউটিউবের কাছ থেকে বিপুল টাকা ক্ষতিপূরণ চেয়ে সুপ্রিম কোর্টে (supreme Court) মামলা দায়ের করেছিলেন এক যুবক। দেশের শীর্ষ আদালত তাঁর মামলা যে শুধু খারিজ করে দিল তা-ই নয়, উল্টে ২৫ হাজার টাকা জরিমানা (fine) করল আবেদনকারীকেই।

আবেদনকারী মধ্যপ্রদেশের বাসিন্দা। সেখানকারী একটি বিশ্ববিদ্যালয়ের কলা বিভাগের স্নাতকোত্তরের পড়ুয়া তিনি। পড়াশোনার পাশাপাশি মধ্যপ্রদেশ পুলিশের পরীক্ষার জন্য প্রস্তুতি নিচ্ছিলেন তিনি। সেই সময় ইউটিউবে (Youtube) বেশ কয়েকটি চ্যানেল সাবস্ক্রাইব করেন ওই যুবক। কিন্তু সেই সব চ্যানেলে দেখানো যৌন উত্তেজক এবং অশ্লীল বিজ্ঞাপন নাকি তাঁর পড়াশোনার পথে বাধা হয়ে দাঁড়াচ্ছিল। তাই, ইউটিউবের কাছ থেকে ৭৫ লক্ষ টাকা ক্ষতিপূরণের দাবিতে সুপ্রিম কোর্টে মামলা দায়ের করেছিলেন ওই যুবক। তাঁর আরও দাবি ছিল, ইউটিউব সহ অন্যান্য সোশ্যাল মিডিয়া প্ল্যাটফর্মগুলিতে নগ্নতাকে নিষিদ্ধ ঘোষণা করতে হবে।

শুক্রবার আনন্দ কিশোর চৌধুরী নামে ওই যুবকের সেই আবেদন খারিজ করে দিয়েছে শীর্ষ আদালত। সেই সঙ্গে আদালত আবেদনকারীকে ২৫ হাজার টাকা জরিমানা করেছে। বিচারপতি সঞ্জয় কিষাণ কৌল এবং অভয় এস ওকার একটি বেঞ্চ আনন্দের ডায়ের করা পিটিশনকে ‘নৃশংস’ বলে দাবি করে জানিয়েছে, এই ধরনের আবেদন করা আসলে আদালতের সময় নষ্ট করা ছাড়া আর কিছুই নয়।

আদালত জানিয়েছে, আবেদনকারী চাইলে বিজ্ঞাপনগুলি নাও দেখতে পারতেন। ‘যদি আপনার বিজ্ঞাপনগুলি ভাল না লাগে, তাহলে আপনি দেখবেন না। উনি কেন বিজ্ঞাপনগুলি দেখেছেন সেটা ওঁর ব্যাপার। কিন্তু এই ধরনের আবেদন আসলে বিচার ব্যবস্থার সময় নষ্ট করার সামিল,’ জানিয়েছে আদালত। এরপরেই আনন্দকে ১ লক্ষ টাকা ক্ষতিপূরণ দেওয়ার নির্দেশ দেয় আদালত।

যদিও এরপরেই আদালতের কাছে ক্ষমা চান আনন্দ। তিনি জানান, তাঁর বাবা মা মজুরের কাজ করে পেট চালান। তিনি আবেদনটি তুলে নেওয়ার জন্য আদালতের অনুমতি চান।

উত্তরের বিচারপতি কৌল জানান, ‘আপনার মনে হয় আপনি প্রচার পাওয়ার জন্য যখন ইচ্ছা এখানে আসতে পারেন? জরিমানার অঙ্ক কমিয়ে দেব, কিন্তু ক্ষমা করব না।’

আনন্দ জানান, তিনি বর্তমানে বেকার। তাতে বিচারপতি কৌল বলেন, ‘রোজগার না থাকলে আমরা উদ্ধার করে দেব।’ আনন্দকে ইতিমধ্যেই সুপ্রিম কোর্টের মধ্যস্থতা কেন্দ্রে ২৫ হাজার টাকা জমা দেওয়ার জন্য নির্দেশ দিয়েছেন দুই বিচারপতি।

আকণ্ঠ মদ খেয়ে বিয়ে করতে এল বর, অশান্তি খাবার নিয়ে! মালাবদল করেও বিয়ে ভাঙলেন কনে

You might also like