Latest News

দিঘায় প্রবল জলোচ্ছ্বাস, গার্ডরেল পেরিয়ে গেল উত্তাল ঢেউ, ইয়াস আর ৮০ কিলোমিটার দূরে

দ্য ওয়াল ব্যুরো: আইএমডি-র শেষ আপডেট বলছে, দিঘা থেকে আর মাত্র ৮০ কিলোমিটার দূরে রয়েছে অতি শক্তিশালী ঘূর্ণিঝড় ইয়াস। এদিন ভোর থেকেই প্রবল উত্তাল হয়ে উঠেছে দিঘার সমুদ্র। গার্ডরেল টপকে জল ঢুকে পড়েছে সমুদ্রতটের এলাকায়। জলোচ্ছ্বাসের দাপট রীতিমতো আতঙ্ক ধরিয়েছে স্থানীয়দের।

এদিন সকাল থেকেই সমুদ্র থেকে দূরে বিচ্ছিন্ন কিছু ভিড় দেখা যায়, সমুদ্রের উত্তাল রূপ দেখে শঙ্কিত তাঁরা। ৩০ ফুটেরও উঁচু ঢেউ উঠছে বলে জানা গেছে। ইতিমধ্যেই জলমগ্ন উপকূলবর্তী বিস্তীর্ণ এলাকা।

যশ মোকাবেলায় দিঘায় ইতিমধ্যেই নেমেছে সেনাবাহিনী। ৬০ জনের একটি দল নিউ দিঘার একটি হোটেলে রয়েছে। সেনাবাহিনীর কাছে রয়েছে গাছ কাটার মেশিন, বড় বড় মই। ইয়াস আছড়ে পড়লে তার মোকাবিলা করতে প্রস্তুত তারা।

অন্যদিকে, ওড়িশার ধামড়া থেকে এর দূরত্ব ৪৫ কিলোমিটার। প্রবল শক্তি ও বেগে হু হু করে ছুটে আসছে ইয়াস। দুপুরের বদলে সকালেই ল্যান্ডফল হতে পারে ইয়াসের। আবদুল কালাম দ্বীপের অদূরে ওড়িশার ধামড়া বন্দরের কাছেই আছড়ে পড়বে ইয়াস। ল্যান্ডফলের সময় ঝড়ের গতিবেগ থাকবে ঘণ্টায় ১৩০-১৪০ কিলোমিটার, বেড়ে হতে পারে ১৫৫ কিলোমিটার (গাস্টিং)।

অতি শক্তিশালী ঘূর্ণিঝড় ইয়াসের দাপট বেশি দেখা যাবে ওড়িশার চার জেলায়—কেন্দ্রপাড়া, ভদ্রক, জগৎসিংপুর ও বালাসোর। এই চার জেলায় লাল সতর্কতা জারি করা হয়েছে। নিচু এলাকাগুলি থেকে মানুষজনকে সরিয়ে নিয়ে যাওয়া হচ্ছে। ওড়িশার উপকূলবর্তী জেলাগুলি থেকে এখনও অবধি ৮১ হাজারের বেশি মানুষকে নিরাপদ জায়গায় সরিয়ে নিয়ে যাওয়া হয়েছে। তাছাড়া ওড়িশার ময়ূরভঞ্জ, জয়পুর, কটকেও ঘূর্ণিঝড়ের সতর্কতা জারি করা হয়েছে। ওড়িশায় প্রবল ঝড়বৃষ্টি চলছে একটানা।

হাওয়া অফিস বলছে সাইক্লোনটি বাংলায় সবচেয়ে বেশি প্রভাব ফেলবে পূর্ব মেদিনীপুরে। ভারী থেকে অতি ভারী বৃষ্টির সম্ভাবনা রয়েছে দুই মেদিনীপুর ও দক্ষিণ চব্বিশ পরগণায়। ভারী বৃষ্টি হবে কলকাতা, হাওড়া, হুগলি, উত্তর চব্বিশ পরগনার বিভিন্ন এলাকায়।

You might also like