Latest News

বিহারের গ্রামে ৫ মিনিটের ব্যবধানে কোভিশিল্ড, কোভ্যাক্সিনের ডোজ মহিলাকে! রিপোর্ট চাইল সরকার

দ্য ওয়াল ব্যুরো: কোভিড ভ্যাকসিনের প্রথম দুটি ডোজের মধ্যে কতদিনের ফারাক থাকা উচিত, তা নিয়ে গবেষক, সরকারি মহলে নানারকম বক্তব্য থাকলেও বিহারের সুনীলা দেবী যাবতীয় মতামতের ঊর্ধ্বে। কারণ তিনি কোভিশিল্ড ও কোভ্যাক্সিনের একটি করে ডোজ পেয়েছেন, মাত্র  ৫ মিনিটের ব্যবধানে! গত ১৬ জুন বিহারের পটনার গ্রামাঞ্চলে পুনপুনের এক গ্রামে এই চাঞ্চল্যকর ঘটনা ঘটেছে বলে খবর। বর্তমানে সুনীলা দেবী মেডিকেল টিমের নজরদারির আওতায় রয়েছেন। তিনি ভালই আছেন, কোনও অস্বাভাবিকতা ধরা পড়েনি তাঁর মধ্যে।

সংবাদ সংস্থাকে সুনীলা দেবী জানিয়েছেন, তিনি গ্রামের বেলদারিচকের স্কুলে ভ্যাকসিনেশন শিবিরে গিয়েছিলেন। রেজিস্ট্রেশন পর্ব সম্পূর্ণ করে তিনি লাইনে দাঁড়ান। তাঁকে কোভিশিল্ডের ডোজ দেওয়া হয়।  তাঁকে ক্যাম্পের স্বাস্থ্যকর্তারা ৫ মিনিট সেখানে অপেক্ষা করে যেতে বলেন। তিনি অবজারভেশন রুমে বসেছিলেন। হঠাত্ আরেকজন নার্স সেখানে এসে সুনীতা দেবীকে বলেন, তাঁকে ভ্যাকসিনের ডোজ দেবেন।  সুনীতা দেবী আপত্তি তুলে তাঁকে জানান, কিছুক্ষণ আগেই তিনি একটি ডোজ নিয়েছেন। কিন্তু তাতে ভ্রুক্ষেপ না করে নার্স জানান, আরেকটি ডোজ দেওয়া হবে, যে হাতে আগেরটা নিয়েছেন, সেই হাতেই। তাঁকে  দ্বিতীয়বার কোভ্যাক্সিনের ডোজ দেওয়া হয়।

সুনীতা দেবীর দাবি, যারা এমন উদাসীনতা, গাফিলতির জন্য দায়ী, তাদের বিরুদ্ধে কর্তৃপক্ষকে উপযুক্ত ব্যবস্থা নিতে হবে।

অভিযোগ পেয়ে ওই ভ্যাকসিনেশন শিবিরের দুই নার্স চঞ্চলা দেবী ও সুনীতা কুমারীর ব্যাখ্যা চেয়েছে রাজ্য স্বাস্থ্য দপ্তর। দায়িত্বজ্ঞানহীন আচরণের জন্য তাঁদের জবাবদিহি তলব করে শোকজ নোটিস পাঠানো হয়েছে বলে জানিয়েছেন পুনপুনের ব্লক ডেভেলপমেন্ট অফিসার শৈলেশ কুমার কেশরী। একটি মেডিকেল টিমকে লাগাতার কিছুদিন সুনীতা দেবীর ওপর নজরদারি চালানোর নির্দেশ দেওয়া হয়েছে।

 

 

You might also like