Latest News

ভারত মমতাদিকে চায়, টুইটারে নতুন ট্রেন্ডিং, পাল্টা ট্রেন্ডিংও আসরে

দ্য ওয়াল ব্যুরো: বিষ্যুদবার সন্ধ্যায় হঠাৎই নতুন ট্রেন্ডিং শুরু হয়ে গেল টুইটারে— #IndiaWantsMamataDi!

এ হেন টুইট ট্রেন্ডিংয়ের প্রেক্ষাপট বোধগম্য। কোভিডের দ্বিতীয় ঝড় সামলাতে কেন্দ্র নরেন্দ্র মোদী সরকার দৃশ্যতই হোঁচট খেয়েছে। ঘরোয়া রাজনীতি ও পরিবেশে প্রধানমন্ত্রী ও তাঁর সরকারের সমালোচনা তো হচ্ছেই, সেই সঙ্গে একের পর এক আন্তর্জাতিক সংবাদমাধ্যম কখনও সম্পাদকীয়তে কখনও বা বিশেষ প্রতিবেদনে তুলোধনা করছে মোদীর।

তা হলে এ বার মুশকিল আসান কে হতে পারেন?

অনেকের কাছে সহজ উত্তর হল মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। বস্তুত বিধানসভা ভোটের ফলপ্রকাশের পর থেকেই সর্বভারতীয় রাজনীতিতে মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের সম্ভাব্য গতিবিধি নিয়ে আলোচনা শুরু হয়ে গেছে। তা এ কারণেই যে মোদীর রথ তিনি রুখে দিয়েছেন।

এক সময়ে বিহারে লালু প্রসাদ যেমন লালকৃষ্ণ আডবাণীর রাম রথ রুখে দিয়েছিলেন, মমতা তেমনই রুখে দিয়েছেন নরেন্দ্র মোদীর অশ্বমেধের ঘোড়া। বিশেষ করে একুশের ভোটকে তো বিজেপি দিদি বনাম মোদীতেই পরিঁণত করেছিল। তাই এমন ব্যাখ্যা হওয়াও স্বাভাবিক বলেই মত অনেকের।

ওদিকে মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ও সাংবাদিকদের প্রশ্নের জবাবে বলেছেন, এটা (জাতীয় স্তরে মোদীকে মোকাবিলা করা) কোনও একার চেষ্টার ব্যাপার নয়। সমষ্টির ব্যাপার। বিজেপি বিরোধী শক্তিগুলোকে একজোট হতে হবে। কমন প্রোগ্রাম বানাতে হবে।

তবে টুইটারে #IndiaWantsMamataDi হ্যাশট্যাগ ট্রেন্ডিং হলে যা হওয়ার ছিল তাই হয়েছে। কোভিড মোকাবিলা নিয়ে মোদী সরকারের যতই সমালোচনা হোক, সোশাল সৈনিকের সংখ্যায় বিজেপির সঙ্গে এখনও পেরে ওঠা মুশকিল। ফলে কিছুক্ষণের মধ্যেই নতুন ট্রেন্ডিং শুরু হয়ে যায় টুইটারে—

You might also like