Latest News

Tripura: জনজাতিদের নিয়ে বিরাট সমাবেশ প্রদ্যোতের, আগরতলার আস্তাবলে শক্তি প্রদর্শনের হ্যাটট্রিক

দ্য ওয়াল ব্যুরো : তেইশে ভোট ত্রিপুরায় (Tripura)। কিন্তু বাইশের বসন্ত থেকেই সেই ভোটের ওয়ার্মআপ (Warm Up) শুরু হয়ে গিয়েছে। যা আগরতলার আবহাওয়াকে ক্রমশ সরগরম করে তুলছে।

ফেব্রুয়ারির ২২ তারিখ রাজ্য সম্মেলন উপলক্ষে আগরতলার (Tripura) ব্রিগেড প্যারেড গ্রাউন্ড বলে খ্যাত আস্তাবল মাঠে বড় সমাবেশ করে নিজেদের শক্তি দেখিয়েছিল সিপিএম (CPIM)। তারপর ৮ মার্চ ওই মাঠেই সমাবেশ করে পালটা নিজেদের তাকত জানান দেয় বিজেপি। ভাষণ দেন কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী অমিত শাহ। শনিবার আস্তাবল মাঠে সমাবেশ করল ত্রিপুরার (Tripura) নতুন দল তিপ্রা মথা। রাজবাড়ির সন্তান প্রদ্যোত কিশোর দেববর্মনের ডাকে সেই সমাবেশে কার্যত উপচে পড়ল আস্তাবল মাঠ। জনজাতি অংশের এই জমায়েত দেখে অনেকেই বলছেন, ত্রিপুরার ভোটে এবার অনেক সমীকরণ ওলটপালট হয়ে যেতে পারে।

এদিন মথার ডাকা সমাবেশে জমায়েত ছিল দেখার মতো। যেমন তার রং, তেমন তার মেজাজ। সেই সমাবেশ থেকে নিজেদের দাবিতে আরও জোরালো সওয়াল করলেন প্রদ্যোত। উঠল গ্রেটার তিপ্রা ল্যান্ডের দাবিও।

এই প্রদ্যোৎ ছিলেন ত্রিপুরা প্রদেশ কংগ্রেসের সভাপতি। ২০২০ সালের সেপ্টেম্বর মাসে প্রদেশ কংগ্রেস সভাপতি পদ থেকে ইস্তফা দেন বুবাগ্রা (মহারাজ)। তারপর নিজের দল গড়েন। সেই দল চমকে দেয় গত বছর। আত্মপ্রকাশ করে প্রথম নির্বাচনে লড়েই ত্রিপুরার স্বশাসিত জেলা পরিষদ দখল করে প্রদ্যোতের দল।

গতবার সিপিএমকে সরিয়ে বিজেপি সরকারে এসেছিল আইপিএফটির সঙ্গে জোট করে। কিন্তু এখন আর ওই দলটির কোনও অস্তিত্ব নেই। গোটাটাই প্রায় মিশে গিয়েছে মথার সঙ্গে। এখন প্রশ্ন হচ্ছে তেইশের ভোটে মথা কী করবে। এখানে বলে রাখা ভাল, ৬০ আসনের ত্রিপুরার বিধানসভার অন্তত ১৮টি আসন জনজাতি অধ্যুষিত। সেখানে মথা কী করবে তার উপর অনেক কিছু নির্ভর করছে। আবার এও ঠিক, ১৯টি জনজাতি অংশের মধ্যে যে প্রদ্যোতের দলের দুরন্ত সমর্থন রয়েছে তেমন নয়। যেমন, দেববর্মাদের মধ্যে প্রদ্যোতের দলের গণভিত্তি ব্যাপক। আবার রিয়াংদের মধ্যে বিজেপির প্রভাব রয়েছে। সিপিএমের গণমুক্তি পরিষদও নতুন করে কাজ শুরু করেছে পাহাড়ে। ত্রিপুরার ভোটে যে জনজাতিরা রঙ ছড়াবেন তা স্পষ্ট। এদিন সেই রঙের কিছুটা আভা হয়তো ছড়িয়ে দিয়ে গেল মথার সমাবেশ।

You might also like