Latest News

তথাগতর মুখে কমিউনিস্ট হরেকৃষ্ণর কথা, তৃণমূলে ফিরতে চলা নেতাদের তীব্র কটাক্ষ

দ্য ওয়াল ব্যুরো: ভোটের আগে তৃণমূল ভাঙার ফ্রেম তৈরি হতো বিজেপির হেস্টিংস অফিসে। বড় বড় সভামঞ্চে যোগ দিতেন বড় বড় নেতা, প্রাক্তন মন্ত্রীরা। কিন্তু দুশো পার করে তৃতীয়বার মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় নবান্নে পৌঁছনোর পর উল্টো ছবি দেখা যাচ্ছে। তৃণমূলের একাধিক নেতা, যাঁরা বিজেপিতে যোগ দিয়েছিলেন তাঁরা আবার পুরনো দলে ফিরতে চাইছেন। তাঁদের বিরুদ্ধে আক্রমণ শানাতে গিয়ে প্রয়াত কমিউনিস্ট নেতা, প্রথম বামফ্রন্ট সরকারের ভূমি রাজস্বমন্ত্রী হরেকৃষ্ণ কোঙারের কথাকে উদ্ধৃত করলেন প্রবীণ বিজেপি নেতা তথাগত রায়।

এদিন সকালে টুইটে তথাগত রায় লিখেছেন, “তৃণমূল থেকে বিজেপিতে আসা যে সব নেতা আবার তৃণমূলে ফিরে গেছেন তাঁদের সম্বন্ধে আমি প্রয়াত সিপিএম নেতা হরেকৃষ্ণ কোঙারের একটি মন্তব্যের পুনরাবৃত্তি করছি। ‘মল মূত্র ত্যাগ করলে মানুষ দুর্বল হয় না, সবলই হয়’। ১৯৬৪ সালে যখন কম্যুনিস্ট পার্টি ভাঙে তখন সিপিআই নেতাদের সম্বন্ধে এই উক্তি।”

হরেকৃষ্ণ কোঙার ছিলেন কৃষক আন্দোলনের নেতা। তাঁর ভাষণ একটা সময়ে গ্রাম বাংলায় আলোড়ন তুলত। মতাদর্শগত ভাবে কমিউনিস্ট শিবিরের একেবারে বিপরীত দিকের হলেও, তৃণমূলে ফিরতে চলা নেতাদের আক্রমণ করতে সেই মেমারির কৃষক নেতার বক্তব্যকেই হাতিয়ার করলেন তথাগত।

তথাগতবাবু সকালে যখন এই টুইট করেছেন, তখনও মুকুল রায়ের কালীঘাটে গিয়ে মমতার সঙ্গে দেখা করার খবর সামনে আসেনি। তবে রাজীব বন্দ্যোপাধ্যায়-সহ যে নেতারা ইতিমধ্যেই উল্টো সুরে গান গাইছেন তাঁদের উদ্দেশ্য করেই মূলত এই টুইট করেছিলেন ত্রিপুরা ও মেঘালয়ের রাজ্যপাল। তা ছাড়া মুকুলবাবুর সঙ্গে বিজেপির যে দূরত্ব বাড়ছিল তাও স্পষ্ট বোঝা যাচ্ছিল। তৃণমূলের কাছে আসার ছবিটাও আড়াল করা যাচ্ছিল না।

ইতিমধ্যেই, লকেট চট্টোপাধ্যায়ের মতো বিজেপি সাংসদরা বলা শুরু করেছেন, যাঁরা তৃণমূলে যাবেন তাঁরা যেন দ্রুত বিদায় নেন। আবার নতুন করে লড়াই শুরু করবে বিজেপি। তথাগত সেটাই বললেন। তবে আরও কড়া করে।

You might also like