Latest News

দমদমে বোর্ডিং স্কুল থেকে নিখোঁজ দুই ছাত্র, চিন্তায় পরিবার

দ্য ওয়াল ব্যুরো: সোমবার স্কুল ছুটির পর থেকেই আর কোনও খোঁজ নেই। বাকি ছাত্রেরা বোর্ডিংয়ে ফিরে এলেও ফেরেনি ক্লাস সেভেনের দুই ছাত্র প্রশান্ত বিশ্বাস ও সুজিত রায় (Students Missing)। গরমের ছুটির পরে গতকাল থেকে স্কুল খুলেছে। দমদম কুমার আশুতোষ বোর্ডিং স্কুলে পঠনপাঠনের শেষে বিকেল ৪টে নাগাদ ছুটি হয়। তারপরেই জানা যায়, দুই ছাত্রের কোনও খোঁজ মিলছে না।

স্কুল কর্তৃপক্ষ জানিয়েছেন, প্রশান্ত নদিয়ার তাহেরপুরের বাসিন্দা। সুজিতের বাড়ি আনোয়ার শাহ রোডে। বোর্ডিংয়ে থেকেই পড়াশোনা করত দু’জনে। গতকাল থেকে তাদের খোঁজ মিলছে না। নিখোঁজ ডায়রি করা হয়েছে সিঁথি থানায়।

প্রশান্তর পরিবার বলছে, বিকেল ৫টা নাগাদ স্কুল থেকে ফোন করে জানানো হয়, বিকেল চারটে নাগাদ স্কুল ছুটি হওয়ার পর থেকে প্রশান্তকে খুঁজে পাওয়া যাচ্ছে না (Students Missing)। এরপরেই প্রশান্তর পিসেমশাই স্কুলে গিয়ে খোঁজাখুঁজি করেন। এই বিষয়ে এখনও পর্যন্ত স্কুল কর্তৃপক্ষের তরফে কোনও বক্তব্য পাওয়া যায়নি।

জ্বালানির জন্য হাহাকার, দু’সপ্তাহ পেট্রল-ডিজেল বিক্রি বন্ধ হল শ্রীলঙ্কায়

দমদম রেল স্টেশনের কাছেই স্কুল। পাঁচ তলা বিল্ডিংয়ের পঞ্চম তলায় বোর্ডিংয়ের ব্যবস্থা রয়েছে। প্রায় ৪৫ জনের মত আবাসিক ছাত্রছাত্রী থাকেন। স্কুল কর্তৃপক্ষের অনুমান, দুই ছাত্র ট্রেনে করে কোথায় গিয়ে থাকতে পারে। দমদম জিআরপিতেও বিষয়টা জানিয়ে রাখা হয়েছে। স্কুল ও আশপাশের এলাকায় সিসিটিভি ফুটেজ খতিয়ে দেখা হচ্ছে। স্কুলের সহকারী প্রধান শিক্ষকের দাবি, ” অতীতেও এই ধরনের ঘটনা ঘটেছে। ছাত্র-ছাত্রীরা স্কুল থেকে বেরিয়ে বাড়ি ফিরে গিয়েছে, পরে তাদের পাওয়া গিয়েছে। এই ক্ষেত্রে ঠিক কী হয়েছে, তা খতিয়ে দেখা হচ্ছে।”

পাঁচ তলা স্কুলের পঞ্চম তলায় বোডিংয়ের ব্যবস্থা রয়েছে। সেখানে থেকেই স্কুলে পড়াশুনা করত নিখোঁজ দুই ছাত্র, এমনটাই স্কুল ও পরিবার সূত্রে খবর। দমদমের এই বোডিং স্কুলে প্রায় ৪৫ জনের মত আবাসিক ছাত্রছাত্রী থাকেন। এই মুহূর্তে স্কুলের দুই জন কর্মচারী দমদম জিআরপিতে গিয়েছেন প্রশান্তর পরিবারের সদস্যকে নিয়ে।সোমবার স্কুলের একটি সিসিটিভি ফুটেজ সামনে এসেছে, যেখানে বাকি পড়ুয়াদের দেখা গেলেও, নিখোঁজ দুই ছাত্রই নেই। স্কুলের সহকারী প্রধান শিক্ষক চন্দন ঘোষের দাবি, ” অতীতেও এই ধরনের ঘটনা ঘটেছে। ছাত্র-ছাত্রীরা স্কুল থেকে বেরিয়ে বাড়ি ফিরে গিয়েছে, পরে তাদের পাওয়া গিয়েছে। এই ক্ষেত্রে ঠিক কী হয়েছে, তা খতিয়ে দেখা হচ্ছে।”

You might also like