Latest News

লকডাউনের মধ্যেই তৃণমূলের গোষ্ঠীকোন্দল ঘিরে গুলি চলল মালদহে, জখম ১

অঞ্চল তৃণমূল সহ-সভাপতিকে গুলি করে খুনের চেষ্টার অভিযোগ উঠল দলেরই পঞ্চায়েত প্রধানের স্বামীর বিরুদ্ধে।

দ্য ওয়াল ব্যুরো, মালদহ: গোষ্ঠীকোন্দলের জেরে চলল গুলি। অঞ্চল তৃণমূল সহ-সভাপতিকে গুলি করে খুনের চেষ্টার অভিযোগ উঠল দলেরই গ্রাম পঞ্চায়েত প্রধানের স্বামীর বিরুদ্ধে। লক্ষ্যভ্রষ্ট হয়ে গুলি ছিটকে গিয়ে লাগে একজন গ্রামবাসীর গায়ে। লকডাউনেই মধ্যেই এমন ঘটনায় চাঞ্চল্য ছড়িয়েছে মালদহের কালিয়াচক থানার খালতিপুর বাজার এলাকায়।

জানা গেছে, মঙ্গলবার সকালে খালতিপুর সবজি বাজারে মোটরবাইকে করে বাজার করতে আসেন সিলামপুর ২ অঞ্চলের তৃণমূল সহ-সভাপতি মহম্মদ নাসিম শেখ। অভিযোগ, সেই সময় তাঁকে লক্ষ্য করে একাধিক গুলি চালায় সিলামপুর ২ গ্রাম পঞ্চায়েত প্রধান রেশমা বিবির স্বামী, অঞ্চল তৃণমূল নেতা মোশারফ শেখ। তবে গুলি লক্ষ্যভ্রষ্ট হয়ে বাজারে আসা জিয়াউল শেখ নামে এক ব্যক্তির হাতে লাগে। এদিকে ছুটে আসা গুলি থেকে নিজেকে বাঁচাতে গিয়ে মোটরবাইক নিয়ে পড়ে যাওয়ায় সামান্য চোট পান নাসিম শেখ। গুলির শব্দে হইচই পড়ে যায় খালতিপুর বাজারে। তখনই ঘটনাস্থল থেকে পালিয়ে যায় অভিযুক্ত মোশারফ শেখ। গুলিতে জখম জিয়াউল শেখকে সিলামপুর গ্রামীণ হাসপাতালে নিয়ে যান এলাকার মানুষ।

আক্রান্ত অঞ্চল সহ-সভাপতি মোহাম্মদ নাসিম শেখ জানান, সিলামপুর ২ গ্রাম পঞ্চায়েতের প্রধান রেশমা বিবির বিভিন্ন দুর্নীতি নিয়ে সরব হয়েছিলেন তিনি। এই নিয়েই প্রধানের স্বামী মোশারফ শেখের সঙ্গে বিবাদ ছিল। তিনি বলেন, ‘‘এ দিন বাজারে একজনের সঙ্গে কথা বলছিলাম। হঠাৎই দুই হাতে বন্দুক নিয়ে গুলি চালায় মোশারফ শেখ। মাটিতে পড়ে গিয়ে কোনওরকমে প্রাণে বাঁচি। আগে থেকেই মোশারফ আমাকে প্রাণে মারার চেষ্টা করছিল।’’

অভিযুক্ত তৃণমূল নেতা মোশারফ শেখের বিরুদ্ধে কালিয়াচক থানায় লিখিত অভিযোগ দায়ের করেছেন আক্রান্ত অঞ্চল তৃণমূল সহ-সভাপতি মোহাম্মদ নাসিম শেখ। পুলিশ জানিয়েছে, ঘটনার তদন্ত শুরু হয়েছে। অভিযুক্তের খোঁজ চলছে।

You might also like