Latest News

নাজেহাল ক্রেতাদের নাগালে আনতে সস্তায় আলু বিক্রি বর্ধমানে

কিছু না থাকলে আলু সেদ্ধ-ভাত খেয়ে পেট ভরাতে অভ্যস্থ বাঙালির সামনে গভীর সঙ্কট আলুর দাম লাগামছাড়া হওয়ায়। এই অবস্থায় গত কয়েকদিন ধরে পূর্ব বর্ধমানে কৃষি বিপণন দফতর ও নিয়ন্ত্রিত বাজার কমিটি কম দামে আলু বিক্রির ব্যবস্থা করেছে।

দ্য ওয়াল ব্যুরো, পূর্ব বর্ধমান: আলুর দামের ঊর্ধ্বগতিতে নাজেহাল ক্রেতারা। তাই কৃষি বিপণন দফতরের পক্ষ থেকে ২৫ টাকা কিলো দরে আলু দেওয়া হচ্ছে বর্ধমানে। ইতিমধ্যেই খোলাবাজারে জ্যোতি আলুর দাম চল্লিশ পেরিয়েছে। চন্দ্রমুখী আলুর দাম কেজিতে আরো পাঁচ টাকা বেশি।

বছরের এই সময় আলুর দাম একটু বেশি থাকলেও এবারে তা সব সীমা পেরিয়ে গেছে। বাজারে গিয়ে তাই নাকাল হচ্ছেন সাধারণ মানুষ। কিছু না থাকলে আলু সেদ্ধ-ভাত খেয়ে পেট ভরাতে অভ্যস্থ বাঙালির সামনে গভীর সঙ্কট আলুর দাম লাগামছাড়া হওয়ায়। এই অবস্থায় গত কয়েকদিন ধরে পূর্ব বর্ধমানে কৃষি বিপণন দফতর ও নিয়ন্ত্রিত বাজার কমিটি কম দামে আলু বিক্রির ব্যবস্থা করেছে।

দপ্তরের আধিকারিক সুদীপ পাল জানিয়েছেন গোটা জেলায় ১৯ টি কেন্দ্র থেকে আলু বিলি করা চলছে। রায়না-গলসি সহ বিভিন্ন এলাকায় কাউন্টার খোলা হয়েছে। বর্ধমান শহরে এই মুহূর্তে দুটি কাউন্টার চলছে। একটি বংপুরে অন্যটি বর্ধমান ১ এর কিষাণমান্ডিতে। আলু কিনতে আসা উল্লাসকর দত্ত বললেন, ‘‘তরকারিতে আলু না হলে আমাদের চলে না। আর আলুর দাম শুনে আর কেনার উপায় থাকে না। এখানে সস্তায় আলু বিক্রি হচ্ছে শুনে তাই ছুটে এসেছি।’’

সকাল থেকেই সস্তায় আলু কিনতে লাইন পড়ে যাচ্ছে। খবর পেয়ে মানুষ ভিড় করছেন। আরো কাউন্টার খোলার দাবি ক্রেতাদের। আধিকারিক বিভাস পালা জানান, প্রত্যেক ব্যক্তিকে তিন কেজি করে আলু দেওয়া হচ্ছে। সকাল ৯ টা থেকে ১২ এভাবে আলু বিক্রি চলছে। যতক্ষণ মজুত আছে আলু ততক্ষণ দিয়ে যাওয়া হবে।

You might also like