Latest News

অপারেশন হয়নি, তবুও পেট কাটা! পরিবারের দাবিতে ময়নাতদন্ত হল হুগলির বধূর দেহের

পরিবারের সন্দেহ মৌমিতার শরীর থেকে কোনও অঙ্গ তুলে নেওয়া হয়েছে। ময়নাতদন্তের দাবিতে এরপরে মৃতদেহ রেখে উত্তরপাড়া থানায় যান মৌমিতার পরিবারের সদস্যরা।

দ্য ওয়াল ব্যুরো, হুগলি: অনেক টালবাহানার পর অবশেষে ময়নাতদন্ত হল হিন্দমোটরের মৃত বধূর।

গত ৪ ডিসেম্বর হাওড়ার বেসরকারি হাসপাতালে মৃত্যু হয় মৌমিতা চক্রবর্তীর (৩২)। মৃতদেহ বাড়িতে নিয়ে আসার সময় পরিবারের লোক দেখতে পান কোভিড আক্রান্ত না হলেও কোভিডে মৃতের দেহের মতোই প্যাকিং করে দেওয়া হয়েছে তার দেহ। বাড়ি এনে তাঁরা দেখতে পান বধূর পেটে কাটা দাগ। কোনও অপারেশন হয়নি, অথচ পেট কেন কাটা হল তার উত্তর চাইতে হাসপাতাল কর্তৃপক্ষের সঙ্গে যোগাযোগের চেষ্টা করে মৃতার পরিবার। কিন্তু অভিযোগ, যোগাযোগ করেও কোনও লাভ হয়নি। ওই বধূর পরিবারের লোকেদের সঙ্গে দেখা করতে অস্বীকার করে হাসপাতাল কর্তৃপক্ষ।

পরিবারের সন্দেহ মৌমিতার শরীর থেকে কোনও অঙ্গ তুলে নেওয়া হয়েছে। ময়নাতদন্তের দাবিতে এরপরে মৃতদেহ রেখে উত্তরপাড়া থানায় যান মৌমিতার পরিবারের সদস্যরা। সেখানে পুলিশ জানিয়ে দেয় যেহেতু স্বাভাবিক মৃত্যুর শংসাপত্র দিয়েছে হাসপাতাল সেখানে ময়নাতদন্ত করতে পারবে না পুলিশ। মৃতদেহ মহামায়া হাসপাতালের মর্গে রেখে পরদিন শ্রীরামপুর আদালতে যায় মৃতার পরিবার। আদালত উত্তরপাড়া থানার পুলিশকে ঘটনার তদন্ত করার নির্দেশ দেয়।

স্বাভবিক মৃত্যুর শংসাপত্র দিয়েছে হাসপাতাল। তাই ময়নাতদন্তের জন্য গতকাল আদালতে আবেদন জানায় উত্তরপাড়া থানা। তার আগেই অবশ্য মৃতার পরিবারের আবেদনের ভিত্তিতে আদালত শুক্রবার ময়নাতদন্ত করার নির্দেশ দেয় পুলিশকে। আগামী ২৩ ডিসেম্বরের মধ্যে আইওকে রিপোর্ট জমা দিতে বলে আদালত। দুজন চিকিংসকের উপস্থিতিতে ভিডিওগ্রাফি করে ময়নাতদন্ত করতেও নির্দেশ দেয় আদালত।

এ দিন শ্রীরামপুর ওয়ালস হাসপাতালে মৌমিতার মৃতদেহের ময়নাতদন্তের সময় তাঁর প্রতিবেশী ও স্থানীয় বিজেপি কর্মীরা উপস্থিত ছিলেন। এর আগে বিজেপি মহিলা মোর্চার সভানেত্রী অগ্নিমিত্রা পাল মৌমিতার বাড়িতে গিয়ে পরিবারের সঙ্গে কথা বলেন। দেহ ময়নাতদন্তের দাবিতে সোচ্চার হন তিনি। তৃণমূল জেলা সভাপতি দিলীপ যাদব বলেন, ‘‘বিজেপি সবেতেই রাজনীতি খোঁজে। আদালতের নির্দেশে প্রশাসন ব্যবস্থা নেবে। কেউ দোষী হলে তার শাস্তি হবে। কেউ নির্দোষ হলে বিজেপির হইহই করাতে কিছু হবে না।’’

You might also like