Latest News

অনুমতি না নিয়েই সিউড়িতে দুঃস্থদের খাবার দিতে প্যান্ডেল তৃণমূলের, খবর পেয়েই বাঁশ খুলে দিয়ে এল পুলিশ

তৃণমূলের জেলা সহ সভাপতি অভিজিৎ সিংহ বলেন, "ওঁদের লক্ষ ভাল ছিল। কিন্তু নিয়মটা জানা ছিল না। তাই ভুল করে ফেলেছে।"

দ্য ওয়াল ব্যুরো, বীরভূম: দুঃস্থ মানুষদের খাওয়ানোর জন্য পুলিশের অনুমতি না নিয়ে প্যান্ডেল করেছিল তৃণমূল কংগ্রেস। অভিযোগ এমনটাই। খবর পেয়ে পুলিশ পৌঁছে খুলে দিল সেই প্যান্ডেল। সোমবার সকালে সিউড়ি-২ ব্লকের হাটজনবাজারের ঘটনা।

তৃণমূল সুত্রে জানা গিয়েছে, গত ২৪ এপ্রিল দুঃস্থ মানুষদের মধ্যে বণ্টনের জন্য জেলার বিভিন্ন ব্লকে খাদ্য সামগ্রী পাঠান জেলা তৃণমূল সভাপতি অনুব্রত মণ্ডল। ব্লকে ব্লকে বিলি হয় সেই রসদ। এরপরেই সিউড়ি-২ ব্লকের হাটজনবাজার বুথ কমিটির পক্ষ থেকে লকডাউনের জেরে সমস্যায় পড়ে যাওয়া বেশ কিছু দুঃস্থ পরিবারকে রান্না খাবার দেওয়ার উদ্যোগ নেওয়া হয়। সোমবার এই খাবার বিলির জন্যই প্যান্ডেল করা হয়েছিল।

গোটা দেশে চলছে লকডাউন। সামাজিক দূরত্ব মেনে চলার জন্য বারবার আবেদন জানাচ্ছে প্রশাসন। এই অবস্থায় প্যান্ডেল করে খাবার বিলির খবর পেয়েই তড়িঘড়ি সিউড়ি থানার আইসির নেতৃত্বে পুলিশ ঘটনাস্থলে পৌঁছে ওই প্যান্ডেল খুলে দেয়। জেলা পুলিশের এক কর্তা বলেন, ‘‘লকডাউন চলছে। জনসমাগম করা যাবে না বলে নির্দেশ রয়েছে। প্যান্ডেল করে খাওয়ানোর ব্যবস্থা হলেই প্রচুর মানুষের ভিড় হবে। তাই পুলিশের পক্ষ থেকে প্যান্ডেল খুলে দেওয়া হয়েছে।’’

এ দিকে সব জেনেও কেন রাজ্যের শাসক দল প্যান্ডেল করে খাওয়ানোর ব্যবস্থা করল তা নিয়ে জল্পনা তুঙ্গে। তবে পুলিশের অনুমতি না নিয়ে প্যান্ডেল করে খাওয়ানোর পরিকল্পনা ভুল ছিল বলে স্বীকার করে নিয়েছেন তৃণমূলের কেন্দুয়া অঞ্চল সভাপতি শেখ জালালুদ্দিন। তিনি বলেন,‘‘অনেক মানুষ খুবই খারাপ অবস্থার মধ্যে রয়েছেন। তাঁদের কথা ভেবেই এই উদ্যোগ নেওয়া হয়েছিল। তবে প্রশাসনের অনুমতি না নিয়ে এমন কাজ করা উচিৎ হয়নি।’’

তৃণমূলের জেলা সহ সভাপতি অভিজিৎ সিংহ বলেন, “ওঁদের লক্ষ ভাল ছিল। কিন্তু নিয়মটা জানা ছিল না। তাই ভুল করে ফেলেছে।”

You might also like