Latest News

নিত্যযাত্রীদের বিক্ষোভে উত্তাল মল্লিকপুর স্টেশন, পুলিশকে লক্ষ্য করে ইট, গাড়ি ভাঙচুর

দ্য ওয়াল ব্যুরো, দক্ষিণ ২৪ পরগনা: লোকাল ট্রেন চালানোর দাবিতে বিক্ষোভে উত্তাল হল শিয়ালদহ দক্ষিণ শাখার সোনারপুর ও মল্লিকপুর-সহ একাধিক স্টেশন। বিক্ষোভ নিয়ন্ত্রণে আনতে গিয়ে আক্রান্ত হয় পুলিশ। জখম হন রেলের এক আধিকারিকও। বুধবারেও একই দাবিতে বিক্ষোভে রণক্ষেত্রের চেহারা নিয়েছিল সোনারপুর স্টেশন সংলগ্ন এলাকা। বৃহস্পতিবারও সকাল থেকে তেতে উঠল একাধিক স্টেশন।

মল্লিকপুর স্টেশনে বিক্ষোভ থামাতে গিয়ে আক্রান্ত হয় পুলিশ। ভাঙচুর করা হয় পুলিশের গাড়ি। পুলিশকে লক্ষ্য করে ইটবৃষ্টি করা হয় বলে অভিযোগ। তীব্র উত্তেজনা সৃষ্টি হয় গোটা এলাকায়। রেলের উচ্চ পদস্থ আধিকারিকরা ঘটনাস্থলে আসেন। তাঁদের লক্ষ্য করেও ইট বৃষ্টি করা হয়। জখম হন রেলের এক আধিকারিক।

করোনা রুখতে আংশিক লকডাউন চলছে গোটা রাজ্যে। বন্ধ রয়েছে লোকাল ট্রেন চলাচল। তাই নাভিশ্বাস উঠেছে নিত্যযাত্রীদের। কর্মস্থলে পৌঁছতে রেলের চালানো হাতেগোনা স্টাফ ট্রেনেই উঠে পড়তে চাইছেন তাঁরা। কিন্তু স্থান সংকুলান হচ্ছে না সেখানে। তাই ক্ষোভ বাড়ছে। ট্রেন চালানোর দাবিতে বুধবার যাত্রী বিক্ষোভে উত্তাল হয়ে ওঠে সোনারপুর স্টেশন। বৃহস্পতিবার একই ঘটনার পুনরাবৃত্তি মল্লিকপুর স্টেশনে।

নিত্যযাত্রীদের বক্তব্য, বুধবার বিক্ষোভের পর ট্রেন বাড়ানোর আশ্বাস দিয়েছিলেন রেল কর্তৃপক্ষ। কিন্তু আজ তার কোনও প্রতিফলন দেখা যায়নি। তাই সকালবেলা থেকে বিক্ষোভে উত্তাল হয় জনতা। রণক্ষেত্রের চেহারা নেয় মল্লিকপুর স্টেশন সংলগ্ন এলাকা।

ঘটনাস্থলে গেলে পুলিশের উপর চড়াও হয় উন্মত্ত জনতা। তাঁদের বক্তব্য ‘‘ঘরে বসে পেট চলছে না, তাই কর্মস্থলে যেতেই হবে। রেলের স্টাফদের জন্য একটা বা দুটো ট্রেন চালানো যাবে না। চললে সব ট্রেন চলবে, না হলে কোনও ট্রেন চলবে না।’’ পুলিশকে লক্ষ্য করে ইট ছুড়তে থাকে তারা। ভাঙচুর করা হয় পুলিশের গাড়ি। খবর পেয়ে রেলের উচ্চপদস্থ কর্তারা ঘটনাস্থলে যান। তাঁদের লক্ষ্য করেও পাথরবৃষ্টি করে জনতা। এখনও এলাকায় তীব্র উত্তেজনা রয়েছে।

 

You might also like