Latest News

‘আমার বউকে ফিরিয়ে দাও’, হরিণঘাটায় শ্বশুরবাড়ির সামনে ধর্নায় বসলেন যুবক

যতক্ষণ পর্যন্ত নিজের স্ত্রীকে বাড়িতে ফিরিয়ে নিয়ে যেতে না পারবেন, ততক্ষন পর্যন্ত ধর্না চালিয়ে যাবেন বলে জানিয়েছেন ওই যুবক।

দ্য ওয়াল ব্যুরো, নদিয়া: সোমবার সাতসকালে হইহই পড়ে গেল হরিণঘাটায়। ঘুম ভেঙেই গোটা সোনাখালি গ্রাম দেখল ধর্নায় বসেছেন জামাই। হাতে প্ল্যাকার্ড। অভিযোগ, রেজিস্ট্রি করা বউকে আটকে রেখেছে শ্বশুরবাড়ির লোক। দু’মাস ধরে সূর্যের মুখ দেখতে দেওয়া হচ্ছে না তাঁকে!

বিরোহী হালদারপাড়ার বছর ২৮-এর যুবক বাবু.মল্লিক। তাঁর দাবি, সোনাখালি গ্রামের সঙ্গীতাকে তিনি গত অগস্ট মাসে বিয়ে করেন। সিঁদুর দান না হলেও ১৮ বছরের তরুণীর সঙ্গে তাঁর রেজিস্ট্রি হয়েছেন বলে জানিয়েছেন তিনি। গলায় ঝোলানো প্ল্যাকার্ডে লেখা, ‘আমার বউকে ফিরিয়ে দাও!’

যুবকের অভিযোগ, রেজিস্ট্রি হয়েছে জানতে পেরেই সঙ্গীতাকে জবরদস্তি গৃহবন্দি করে রাখা হয়েছে। বাইরে বেরোতে দেওয়া হচ্ছে না। মাঝে তবু লুকিয়েচুরিয়ে ফোনে কথা হচ্ছিল। কিন্তু এখন সেটাও বন্ধ।

এই ঘটনা জানাজানি হতে সকাল থেকে ওই এলাকায় উৎসুক মানুষের ভিড় বেড়ে যায়। যদিও ধর্নায় বসা ওই যুবকের শ্বশুরবাড়ির লোকজনের দাবি, মেয়েকে আটকে রাখা হয়নি। সে আত্মহত্যা করতে গিয়েছিলো। তাই তাকে অন্য জায়গায় রাখা হয়েছে।

যতক্ষণ পর্যন্ত নিজের স্ত্রীকে বাড়িতে ফিরিয়ে নিয়ে যেতে না পারবেন, ততক্ষন পর্যন্ত ধর্না চালিয়ে যাবেন বলে জানিয়েছেন ওই যুবক।

এর আগে জলপাইগুড়িতে দেখা গিয়েছিল প্রেমিকার জন্য প্রেমিকের লাগাতার ধর্না। শেষ পর্যন্ত ঠিক হয়ে যাওয়া বিয়ে ভেস্তে দিয়ে প্রেমিকের সঙ্গে ঘর বাঁধার সিদ্ধান্ত নেন প্রেমিকা। এর মাঝে রাজ্যে আরও বেশ কয়েকটি প্রেমঘটিত ধর্নার ঘটনা সামনে এসেছে। এবার সেই তালিকায় সংযোজন হরিণঘাটা।

You might also like