Latest News

কচুরিপানা নেই জলে, বর্ধমানের কৃষ্ণসায়র থেকে উধাও পরিযায়ী দল, আস্তানা পাশের পুকুরে

পরিবেশ বিজ্ঞানের গবেষক, বর্ধমান বিশ্ববিদ্যালয়ের আধিকারিক সন্তু ঘোষ বলেন,‘‘সাধারণত যে জলে কচুরিপানা, জলঝাঁজি থাকে সেই জলে পরিযায়ী পাখি থাকে।  কিন্তু  বছর দু'য়েক আগে ওই ঝিল পরিষ্কার করা হয়। কচুরিপানা তুলে ফেলে দেওয়া হয়। তারপর ওই ঝিলে পাখি আসা বন্ধ হয়ে গেছে।  এবারও  জল পরিষ্কার থাকায় আবার কৃষ্ণসায়র থেকে মুখ ফিরিয়েছে পরিযায়ীর দল।’’

দ্য ওয়াল ব্যুরো, পূর্ব বর্ধমান: হিমেল হাওয়া বইতে শুরু করলেই পরিযায়ীরা ভিড় জমাতো বর্ধমান শহরের কৃষ্ণসায়রে।  কিন্তু জল পরিষ্কার করার পর গত দু’বছরে কোন পরিযায়ীর দেখা মেলেনি। শীত পড়তেই এবারও ভিন দেশ থেকে হাজির পরিযায়ী অতিথিরা। তবে জলে কচুরিপানা না থাকায় এবারও কৃষ্ণসায়র থেকে মুখ ফিরিয়েছে পাখিরা।  আস্তানা গেড়েছে কৃষ্ণসায়রের ঠিক উল্টোদিকে নেতাজী ছাত্রাবাসের পাশের পুকুরে। হাজার হাজার পরিযায়ীদের কিচিরমিচির শব্দে মুখরিত হচ্ছে গোটা এলাকা।

ডিসেম্বর থেকে জানুয়ারি  এই সময় প্রতিবছর বর্ধমান শহরের  কৃষ্ণসায়রে আসত হাজার হাজার পরিযায়ী পাখী। কিন্তু গত দু’বছর থেকেই এই চিত্রটা বদলে যায়। কৃষ্ণসায়রের জলে দেখা পাওয়া যায়নি পরিযায়ীদের। এবারও ডিসেম্বর মাসের শেষদিকেো জল ফাঁকা। কৃষ্ণসায়রের কর্মীরা জানান, ডিসেম্বর মাসের দ্বিতীয় সপ্তাহ থেকে জানুয়ারি পর্যন্ত থাকে শীতের অতিথিরা। গত দু’বছর ধরে অবশ্য কোনও পাখির দেখা মেলেনি।

পরিবেশ বিজ্ঞানের গবেষক, বর্ধমান বিশ্ববিদ্যালয়ের আধিকারিক সন্তু ঘোষ বলেন, শীতকালীন পরিযায়ী পাখী সাধারণত তিব্বত, চিন ও সাইবেরিয়া থেকে আসে। এই সময়ে ওই এলাকাতে তীব্র ঠাণ্ডার পাশাপাশি খাদ্যেরও অভাব দেখা যায়। তাই তারা উড়ে আসে ভারতে। সন্তুবাবু জানাচ্ছেন,  সাধারণত যে জলে কচুরিপানা, জলঝাঁজি থাকে সেই জলে পরিযায়ী পাখি থাকে।  কিন্তু  বছর দু’য়েক আগে ওই ঝিল পরিষ্কার করা হয়। কচুরিপানা তুলে ফেলে দেওয়া হয়। তারপর ওই ঝিলে পাখি আসা বন্ধ হয়ে গেছে।  এবারও  জল পরিষ্কার থাকায় আবার কৃষ্ণসায়র থেকে মুখ ফিরিয়েছে পরিযায়ীর দল।

পরিবেশবিদরা জানাচ্ছেন, কোন পুকুর বা জলাভূমির এক চতুর্থাংশ কচুরিপানা পূর্ণ হলে তবেই  পাখি আসে। কিন্তু কৃষ্ণসায়রের জল এখন কচুরিপানা শূন্য। তাই জলাশয় ফাঁকা।

পরিবেশবিদ অয়ন মণ্ডল জানান, এবারও পাখিরা সময় মতো এসেছে। কিন্তু কৃষ্ণসায় পরিষ্কার থাকায় ঠিক উল্টো দিকেই কচুরিপানা ভর্তি পুকুরে আস্তানা গেড়েছে। বর্ধমান বিশ্ববিদ্যালয়ের ছাত্রাবাসের আবাসিক কুন্তল মুখোপাধ্যায়, মণিকাঞ্চন মণ্ডলরা জানান, এই মাসের গোড়া থেকেই পাখিরা ওই জলাশয়ে হাজির হয়েছে। নতুন অতিথিদের নিয়ে তাঁরাও বেশ খুশি।

You might also like