Latest News

চোপড়ায় সার্ভিস রাইফেলের গুলিতে আত্মঘাতী জওয়ানের দেহ আনা হল মেদিনীপুরের বাড়িতে

পরিবারে স্ত্রী ও একটি ১১ বছরের সন্তান রয়েছে। বাবা-মা নেই। কী কারণে নিজের সার্ভিস রাইফেলের গুলিতে ওই জওয়ান আত্মঘাতী হয়েছেন, তা এখনও স্পষ্ট নয়। তবে মৃতের এক ভাইয়ের দাবি, পারিবারিক অশান্তির জেরেই আত্মঘাতী হয়েছেন তিনি।

দ্য ওয়াল ব্যুরো, পশ্চিম মেদিনীপুর: কর্মরত অবস্থায় নিজের সার্ভিস রাইফেলের গুলিতে আত্মঘাতী বিএসএফ জওয়ান কেদারনাথ হাঁসদার দেহ নিয়ে আসা হল চন্দ্রকোণা থানার কেঁচকাপুর গ্রামে তাঁর বাড়িতে।

সোমবার চন্দ্রকোনা থানার পুলিশ ও বিএসএফের সাঁজোয়া গাড়ি এসকোর্ট করে ওই জওয়ানের দেহ তাঁর বাড়িতে পৌঁছে দেয়। কফিনবন্দি দেহ গ্রামে পৌঁছতেই শোকের পরিবেশ তৈরি হয়। ভিড় জমে যায় ওই জওয়ানের বাড়িত। কান্নায় ভেঙে পড়ে পরিবার। সেখানেই সমস্ত নিয়ম মেনে গান স্যালুটে ওই জওয়ানকে বিএসএফের তরফে শেষ শ্রদ্ধা জানানো হয়। এরপর সমস্ত রীতি মেনে গ্রামের শ্মশানে দাহ করা হয় আত্মঘাতী ওই জওয়ানকে।

পরিবারে স্ত্রী ও একটি ১১ বছরের সন্তান রয়েছে। বাবা-মা নেই। কী কারণে নিজের সার্ভিস রাইফেলের গুলিতে ওই জওয়ান আত্মঘাতী হয়েছেন, তা এখনও স্পষ্ট নয়। তবে মৃতের এক ভাইয়ের দাবি, পারিবারিক অশান্তির জেরেই আত্মঘাতী হয়েছেন তিনি।

ভারত-বাংলাদেশ সীমান্তবর্তী দাসপাড়া গ্রাম পঞ্চায়েতের কেসিগছ গ্রামে একটি চা বাগানের ভেতরে শনিবার মৃতদেহ পড়ে থাকতে দেখা যায় ওই বিএসএফ জওয়ানের। ৯৪ নম্বর ব্যাটালিয়নে কর্মরত ছিলেন ওই জওয়ান। বিএসএফের আধিকারিকরা জানান, কেসিগছ সীমান্তচৌকিতে কর্মরত কেদারনাথ শুক্রবার রাতে সীমান্ত প্রহরায় ছিলেন। শনিবার ভোর চারটে নাগাদ তাঁর সঙ্গে যোগাযোগ বিচ্ছিন্ন হয়ে যায় ক্যাম্পের। তাঁর লোকেশন পাওয়া যাচ্ছিল না। কিছুক্ষণ পরেই গুলির আওয়াজ পাওয়া যায়। এরপরেই ওই সীমান্ত চৌকির ইনচার্জ দুজন জওয়ানকে কেদারনাথের খোঁজে পাঠান। তাঁরা সীমান্ত লাগোয়া একটি চা বাগানের ভেতরে কেদারনাথের দেহ দেখতে পান।

কেদারনাথের গলার উপরে থুতনির নীচে তিনটে গুলির চিহ্ন মেলে। তাঁর দেহের পাশেই ওয়াকিটকি, টর্চ লাইট এবং তাঁর বুকের উপর স্বয়ংক্রিয় রাইফেলটি উদ্ধার করে বিএসএফ। খবর পেয়েই ঘটনাস্থলে ছুটে আসেন বিএসএফের ঊর্ধ্বতন কর্তারা। খবর দেওয়া হয় চোপড়া থানার পুলিশকেও। মৃতদেহ ময়নাতদন্তের জন্য ইসলামপুর মহকুমা হাসপাতালের পাঠায় পুলিশ। সোমবার মেদিনীপুরের গ্রামের বাড়িতে পৌঁছে দেওয়া হয় দেহ।

You might also like