Latest News

আদিবাসী কিশোরীকে গণধর্ষণে অভিযুক্তের গ্রেফতারের দাবিতে ভাতার থানায় তুমুল বিক্ষোভ

সোমবার নৃসিংহপুর গ্রামের বাসিন্দা আদিবাসী কিশোরী সন্ধেবেলা খালের ধারে শৌচকর্ম সারতে যায়। অভিযোগ, সেই সময় শেরুয়া গ্রামের বাসিন্দা শেখ রেজাউল, শেখ জামাল নামে দুই যুবক বাইকে চড়ে আসে। আদিবাসী কিশোরীকে জোর করে বেশ কিছুটা দূরে নির্জন জায়গায় তুলে নিয়ে যায়। বেশ কিছুক্ষণ পর কিশোরী বাড়ি ফিরে আসে। সে জানায় ওই যুবকেরা ধর্ষণ করেছে তাকে।

দ্য ওয়াল ব্যুরো, পূর্ব বর্ধমান: ভাতারের নৃসিংহপুর গ্রামের এক আদিবাসী কিশোরীকে গণধর্ষণ করা হয়েছে দাবি করে অপরাধীকে গ্রেফতারের দাবিতে বৃহস্পতিবার ভাতার থানার সামনে তুমুল বিক্ষোভ দেখালেন আদিবাসীরা। বর্ধমান কাটোয়া রাজ্যসড়কও দীর্ঘক্ষণ ধরে অবরোধ করেন তাঁরা।

সোমবার নৃসিংহপুর গ্রামের বাসিন্দা আদিবাসী কিশোরী সন্ধেবেলা খালের ধারে শৌচকর্ম সারতে যায়। অভিযোগ, সেই সময় শেরুয়া গ্রামের বাসিন্দা শেখ রেজাউল, শেখ জামাল নামে দুই যুবক বাইকে চড়ে আসে। আদিবাসী কিশোরীকে জোর করে বেশ কিছুটা দূরে নির্জন জায়গায় তুলে নিয়ে যায়। বেশ কিছুক্ষণ পর কিশোরী বাড়ি ফিরে আসে। সে জানায় ওই যুবকেরা ধর্ষণ করেছে তাকে।

প্রায় সঙ্গে সঙ্গে কিশোরীর পরিজনেরা ভাতার থানায় যান। তবে তাঁদের দাবি, পুলিশ গণধর্ষণের অভিযোগ নিতে রাজি হয়নি। পকসো আইনে শুধুমাত্র শ্লীলতাহানির অভিযোগ দায়ের করা হয়। এমনকী পুলিশ কিশোরীর শারীরিক পরীক্ষাও করায়নি বলে দাবি করেছেন তাঁরা। যদিও পুলিশের দাবি মেয়েটি বা তার পরিবার সেদিন ধর্ষণের কথা বলেনি। তাদের বয়ানের ওপর ভিত্তি করেই শ্লীলতাহানি ও পকসো আইনে মামলা দায়ের হয়েছে।যদিও কিশোরীর পরিবারের দাবি, তাঁরা শারীরিক পরীক্ষায় রাজি হয়নি, জোর করে এমন বয়ানেই সই করিয়ে নেয় পুলিশ।

এই ঘটনায় গত মঙ্গলবার শেখ রেজাউলকে গ্রেফতার করে পুলিশ। তবে এখনও অধরা শেখ জামাল। ঘটনার পর বেশ কয়েকদিন কেটে গেলেও কেন গ্রেফতার করা হল না অভিযুক্তকে তা নিয়েই তৈরি হয়েছে অসন্তোষ। বৃহস্পতিবার সকালে ভাতার থানার সামনে বিক্ষোভ দেখাতে শুরু করেন আদিবাসী সংগঠনের সদস্যরা। তীর, ধনুক, লাঠিসোঁটা হাতে বিক্ষোভ দেখান তাঁরা। বর্ধমান-কাটোয়া রাজ্য সড়ক অবরোধও করেন।

ভাতার থানার ওসি প্রণব বন্দ্যোপাধ্যায় বিক্ষোভকারীদের বুঝিয়ে অবরোধ তুলতে উদ্যোগী হন। তবে কোনও প্রতিশ্রুতি তাঁরা শুনবেন না বলেই জানান আন্দোলনকারী সুকল হাঁসদা। ১২ ঘণ্টার মধ্যে অভিযুক্তকে গ্রেফতার করা না গেলে অবরোধ জারি থাকবে বলেও দাবি তাঁদের। রাজ্য সড়কে অবরোধের জেরে ঘণ্টার পর ঘণ্টা সেখানে আটকে পড়ে একাধিক গাড়ি। অ্যাম্বুল্যান্স ছাড়া সমস্ত যানবাহনই আটকে দেওয়া হয়। শেষে ওসির আশ্বাস পেয়ে ঘন্টা দু’য়েক পর অবরোধ ওঠে।

You might also like