Latest News

জামালপুরের ঐতিহ্য ঢেঁকিছাঁটা চালে ভাপা পিঠে! বানাতে পারেন আপনিও, রইল রেসিপি

দ্য ওয়াল ব্যুরো: এবার শীত তেমন না জমলেও মকরসংক্রান্তি কাছে এসে পড়ল। পিঠেপুলির উৎসবও শুরু হল বলে। তবে এখন দিনকাল বদলেছে, আধুনিক হয়েছে পিঠেপুলিও। আগে পৌষমাস পড়লেই গ্রাম বাংলার ঘরে ঘরে ঢেঁকিতে পার দেওয়ার শব্দ শোনা যেত। কিন্তু সেসব এখন গল্পকথা, ইতিহাস।

এক সময় বাংলার ঘরে ঘরে ঢেঁকিতে ভাঙা চালের গুঁড়ি দিয়েই তৈরি হত রকমারি পিঠে। কিন্তু সে সব ঢেঁকি এযুগে কোথায় মুখ লুকিয়েছে কেউ মনেই করতে পারবেন না। তবে মানুষকে অবাক করে দিয়ে সেই ঢেঁকির ট্র্যাডিশনই এখনও বজায় রেখে চলেছেন পূর্ব বর্ধমানের জামালপুরের শিয়ালিকোড়া গ্রামের বাসিন্দারা। ঢেঁকিছাঁটা চালের গুঁড়ো দিয়েই বছর বছর পৌষপার্বণে পিঠে পুলির উৎসব জমে ওঠে সেই গ্রামে।

গ্রামের মানুষ জানান, ঢেঁকিছাঁটা চালের গুঁড়ি দিয়ে বানানো পিঠের স্বাদই যে আলাদা। আর ঢেঁকিতে ছাঁটা চাল রেখেও দেওয়া যায় অনেকদিন।

গ্রামে যদিও একটি মাত্রই ঢেঁকি রয়েছে। পৌষ পার্বণের আগে সেই ঢেঁকিতে চাল ভাঙাতে আসেন গ্রামের মহিলারাই। ঢেঁকির পার দিয়ে চলেন তাঁরা। শীতের দিনে শোনা যায় সেই ঐতিহাসিক শব্দও।

এখন সব কিছু করারই অবশ্য যন্ত্র আছে। তার মধ্যে শিয়ালীকোড়া গ্রামের সেই কাঠের ঢেঁকির অস্তিত্ব সময়কে এক লহমায় থমকে দেয়। মকরসংক্রান্তির আগে এখন জোরদার ব্যস্ততা। গ্রামের রাস্তার পাশে সেই কাঠের ঢেঁকিতে চাল ঢেলে অন্যপ্রান্তে পা দিয়ে চলছে চাল গুঁড়নোর কাজ। যাকে স্থানীয়রা বলেন আঠা তৈরি। সেই চালের আঠা দিয়েই তৈরি হবে শীতের ভোরের ভাপা পিঠে।

এই ঢেঁকিছাঁটা চাল দিয়ে আপনিও বানাতে পারেন ভাপা পিঠে। এই চালের গুঁড়ি যদি একান্তই না পান, তবে যে কোনও চালগুঁড়ি দিয়েও আপনি বানাতে পারেন ভাপা পিঠে, মন্দ হবে না। দেখে নিন রেসিপি।

উপকরণ: ঢেঁকিছাঁটা চাল গুঁড়ো ২ কাপ, খেজুরের গুড়ের পাটালি ভেঙে নেওয়া, ১ কাপ। নারকেল কোরা ২ কাপ, নুন পরিমাণ মতো ।

প্রণালী: চালের গুঁড়িতে অল্প নুন মিশিয়ে হালকা করে জল ছিটিয়ে ঝুরঝুরে করে মেখে নিতে হবে। খেয়াল রাখতে হবে যেন দলা না পেকে যায়।

এবার নারকেল কোরা ও গুড় ভাল করে মিশিয়ে পুর তৈরি করে নিন। কাঁচাও রাখতে পারেন, জ্বাল দিয়ে পাকিয়েও নিতে পারেন।

হাতে করে খানিকটা চালের গুঁড়ি মাখা তুলে, চ্যাপ্টা করে, তাতে পুর ভরে গড়ে নিন পছন্দের শেপে।

এবার উনুনে বসান স্টিমার। তাতেই ভাপিয়ে নিতে পারেন পিঠেগুলো। যদি স্টিমার না থাকে, তাহলে একটি বড় হাঁড়ি বসান জল ভর্তি করে। হাঁড়ির মুখে বেঁধে দিন পাতলা সুতির কাপড়। তার ওপরে সাজিয়ে দিন পিঠেগুলি। ওপরে উপুড় করে ঢাকা দিয়ে দিন একটি বাটি। হাঁড়ির ভেতরের ফুটন্ত জলের ভাপে নরম হয়ে আসবে পিঠেগুলি।

কিছুক্ষণ পরে নামিয়ে গরম গরম পরিবেশন করুন। সঙ্গে খেজুরের ঝোলা গুড় ঢেলে দিতে ভুলবেন না যেন!

You might also like