Latest News

বালির পরে রিষড়া! পরিবার ফেলে নিখোঁজ বধূ, ভিন্ রাজ্যে পাড়ি বলে অনুমান

দ্য ওয়াল ব্যুরো: দিন কয়েক আগেই বালির দুই গৃহবধূকে নিয়ে তোলপাড় পড়ে যায় সারা রাজ্যে। দুই রাজমিস্ত্রির সঙ্গে প্রেমের টানে ঘর ছেড়ে চলে গেছিলেন তাঁরা। মুম্বই চলে যাওয়ার পরে ফের এ রাজ্যে ফিরতে গিয়ে পুলিশ তাঁদের খোঁজ পায়। এবার বালির পড়শি স্টেশন রিষড়ায় ঘটল প্রায় একই কাণ্ড। স্বামী, সন্তান, পরিবার ফেলে ভিন্ রাজ্যে পাড়ি দিলেন গৃহবধূ! পুলিশের অনুমান, ফেসবুকে পরিচিত এক যুবকের সঙ্গেই পালিয়েছেন তিনি।

জানা গেছে, রিষড়ার মোড় পুকুরের আদর্শ নগর এলাকার বাসিন্দা ধর্মেন্দ্র সিংয়ের স্ত্রী কবিতা সিং নিখোঁজ হন গত ১২ জানুয়ারি, বুধবার। স্ত্রীর সন্ধানে বিভিন্ন জায়গায় খোঁজাখুঁজি করেও কোথাও কোনও খোঁজ পাননি ধর্মেন্দ্র। এর পরে ১৪ জানুয়ারি রিষড়া থানায় স্ত্রীর নিখোঁজ ডায়েরি করেন তিনি। অভিযোগ দায়েরের সাত দিন পরেও স্ত্রীর কোনও খোঁজ পাওয়া যায়নি। তাঁর মোবাইল ফোনটি বন্ধ রয়েছে।

গৃহবধূর স্বামী ধর্মেন্দ্র জানান, প্রায় ১৫ বছর আগে কোন্নগরের চটকল এলাকার বাসিন্দা কবিতাকে ভালবেসে বিয়ে করেন তিনি। মাঝে একবার এক যুবকের সঙ্গে মেলামেশা নিয়ে অশান্তি ছাড়া মোটামুটি তাঁদের সুখের সংসার ছিল। তাঁদের একটি তেরো বছরের ছেলে এবং ছ’বছরের মেয়ে রয়েছে। স্বামীর আবেদন, কোনও ভাবে পুলিশ যেন স্ত্রীকে খুঁজে বের করে দেয়, যাতে সন্তানরা তাদের মাকে ফিরে পায়।

ধর্মেন্দ্র জানান, গত কয়েকদিন ধরে তাঁর স্ত্রী ফেসবুকে কারও সঙ্গে গভীর রাত পর্যন্ত চ্যাট করত। হয়তো তিনি কারও ফাঁদে পা দিয়ে কোথাও চলে গেছেন।

পুলিশের হাতেও এসেছে এমনই কিছু সূত্র। জানা গেছে, সেদিন কবিতা দুই যুবকের সঙ্গে রিষড়া থেকে চলে যান। রিষড়া পুরসভার সিসিটিভি ফুটেজ পরীক্ষা করে এমনটাই দেখা গেছে। পুলিশ জানিয়েছে, একটি ওলা ট্যাক্সি সেদিন সকাল ন’টা নাগাদ রিষড়ায় এসেছিল। তাতেই চলে যান কবিতা।

সেই গাড়ির নম্বর দেখে ওলার মালিককে খুঁজে বার করে তাঁর সঙ্গে যোগাযোগ করে পুলিশ। জানা গেছে, কলকাতা থেকে ওলা নিয়ে রিষড়া এসেছিলেন দু’জন। তার পরে রিষড়ায় এক মহিলাকে তুলে তাঁরা খড়্গপুর যান।

পুলিশকে ধর্মেন্দ্র জানিয়েছে কবিতা আর কোনও ফোন ব্যবহার করতেন না। একটিই ফোন ছিল, সেই ফোন বন্ধ রয়েছে। তবে পুলিশের অনুমান, কবিতা আরও অন্য কোনও নম্বর ব্যবহার করতেন গোপনে। তা দিয়েই তিনি যোগাযোগ করেন তাঁর প্রেমিকের সঙ্গে।

প্রাথমিক তদন্তের পরে পুলিশ জানিয়েছে, সম্ভবত গুজরাতে চলে গেছেন কবিতা। দু’এক দিনের মধ্যেই তাঁর খোঁজ পাওয়া যাবে। খোঁজ পাওয়া গেলে তবেই জানা যাবে, কোথায়, কেন চলে গেছিলেন কবিতা!

You might also like