Latest News

‘স্পষ্ট কথা স্পষ্টভাবে বলতে পারেন’, বাম নেতা তন্ময়ের স্বীকারোক্তিতে মুগ্ধ ঋদ্ধি

দ্য ওয়াল ব্যুরো: একুশের বিধানসভা নির্বাচনে বাংলা থেকে কার্যত মুছে গেছে বামেরা। কংগ্রেস আর আব্বাস সিদ্দীকির দল আইএসএফের সঙ্গে জোট করে সংযুক্ত মোর্চার অন্যতম প্রধান শরিক বামফ্রন্ট এবারের নির্বাচনে পেয়েছে মাত্র ৪.৭৩ শতাংশ ভোট। জিততে পারেনি একটিও আসন। বামেদের এই ভরাডুবি নিয়ে ভোট গণনার দিনই শীর্ষ নেতৃত্বের বিরুদ্ধে তোপ দেগেছিলেন দমদম উত্তর বিধানসভা কেন্দ্রের পরাজিত সিপিআইএম প্রার্থী তন্ময় ভট্টাচার্য।

বাম নেতার এই স্বীকারোক্তি ও স্পষ্টবাদিতার ভূয়সী প্রশংসা করে এবার সরব হলেন টলিউডের তরুণ অভিনেতা ঋদ্ধি সেন। এদিন নিজের ফেসবুকের দেওয়ালে ঋদ্ধি লিখেছেন, “তন্ময় বাবুর মতো কিছু মানুষকে দেখে শ্রদ্ধা আরও বাড়ে, যাঁরা স্পষ্ট কথা স্পষ্টভাবে বলতে পারেন।” শুধু তাই নয়, পশ্চিমবঙ্গের বামপন্থী রাজনীতির অবস্থান নিয়েও এদিন সোশ্যালে মুখ খুলেছেন ঋদ্ধি।

অভিনেতা লিখেছেন, “‘স্বীকারোক্তি’ আর সত্যি কথা বলার ক্ষমতা কোনো রাজনৈতিক দলের নেতা নেত্রীদের মধ্যে প্রায় নেই বললেই চলে। তন্ময় বাবুর কথায় আবার স্পষ্ট হল, সিপিআইএম আর ‘বামপন্থা’ এক জিনিস নয়।” কেরলের কাছ থেকে বামপন্থার উদাহরণ শেখা উচিত বলেও দাবি করেছেন ঋদ্ধি। তাঁর কথায়, “যারা অজুহাতের জাহাজে ডুবে আছেন তারা একটু লজ্জা পান আর তন্ময় বাবুর কাছ থেকে একটু কিছু শিখুন।”

এবারের বিধানসভায় বিপুল সংখ্যাগরিষ্ঠতা নিয়ে কেরলে দ্বিতীয় বারের জন্য ক্ষমতায় ফিরেছে বামেরা। আর সেখানেই এক সময়ের দুর্ভেদ্য বাম গড় পশ্চিমবঙ্গ থেকে শূন্য হয়ে গেছে লাল পার্টি। ভোট গণনার দিন আলিমুদ্দিনের উদ্দেশ্যে কামান দেগে তন্ময় ভট্টাচার্য বলেন, “এই ব্যর্থতার দায় নেতৃত্বের। আমাদের নয়। নিচু তলার কর্মীদের নয়। লোকসভায় শূন্য হওয়ার পর কেউ দায় নেননি। বিধানসভায় হারের পর কেউ দায় নেবেন না। শুধু স্তালিন কপচাবেন তা হবে না। এটা স্তালিনের যুগ নয়।”

অনেকেই মনে করছেন কংগ্রেসের সঙ্গে হাত মেলালেও পীরজাদা আব্বাস সিদ্দিকীর সঙ্গে বামেদের জোট ভাল চোখে দেখেনি জনগণ। তারই ফল ভুগতে হয়েছে ভোট বাক্সে। তন্ময় ভট্টাচার্যের নিশানা যে ছিল বিমান বসু, সূর্য মিশ্র, মহম্মদ সেলিমের দিকে, তা বুঝে নিতে অসুবিধা হয়না। দলে থেকেও শীর্ষ নেতৃত্বের বিরুদ্ধে এই স্পষ্ট ধিক্কার প্রশংসা কুড়িয়েছে নানা মহলে।

You might also like