Latest News

‘দুয়ারে স্বাস্থ্য’ নতুন বছরেই, দুয়ারে সরকার ক্যাম্প থেকে টিকা দেবে সরকার

দ্য ওয়াল ব্যুরো: জানুয়ারি মাস থেকেই দুয়ারে সরকার ক্যাম্প চালু হচ্ছে জেলায় জেলায়। ২ জানুয়ারি থেকে চলবে ১০ জানুয়ারি অবধি। তারপর মাসের শেষের দিকে ফের শুরু হবে ক্যাম্প। এই দুয়ারে সরকার ক্যাম্প থেকেই টিকাকরণের বড় উদ্যোগ নিচ্ছে রাজ্য সরকার।

টিকাকরণে গতি বাড়াতে বাড়ি বাড়ি গিয়ে ভ্যাকসিন দেওয়ার উদ্যোগ আগেই নেওয়া হয়েছে। নবান্ন জানিয়েছিল, বাড়ি বাড়ি গিয়ে খোঁজ নেওয়া হবে টিকার ডোজ কারা পাননি, দ্বিতীয় ডোজ বাকি আছে কাদের। সেই মতো প্রতিষেধক দেওয়ার ব্যবস্থা করা হবে। শয্যাশায়ী ব্যক্তি যাদের টিকা নিতে যাওয়ার ক্ষমতা নেই তাঁদের চিহ্নিত করে বাড়িতে গিয়েই টিকার ডোজ দেওয়া হবে। তবে দুয়ারে সরকার চালু হলে সেখান থেকেই টিকা দেওয়ার বন্দোবস্ত করা হবে। কোমর্বিডিটির রোগীদের স্বাস্থ্য পরীক্ষাও হবে।

রাজ্য স্বাস্থ্য দফতর থেকে জানানো হয়েছে, দুয়ারে সরকার ক্যাম্পেই মিলবে স্বাস্থ্যসাথীর সুবিধা। দুয়ারে সরকার ক্যাম্পে প্রচুর মানুষের সাড়া মিলছে। তাই এই ক্যাম্পকেই এবার টিকাকরণের মাধ্যম করতে চায় রাজ্য সরকার। দুয়ারে সরকার ক্যাম্পই হবে সরকারের ‘দুয়ারে স্বাস্থ্য’ পরিষেবা।

কিছুদিন আগেই সমস্ত জেলার জেলাশাসকদের সঙ্গে বৈঠক করেন মুখ্যসচিব হরিকৃষ্ণ দ্বিবেদী। তিনি বলেন, ভ্যাকসিনের প্রথম ডোজ নেওয়ার পরে সেকেন্ড ডোজ নেওয়ায় অনীহা দেখা যাচ্ছে অনেকের। সময় পেরিয়ে গেলেও ডোজ নিতে আসছেন না লোকজন। সেক্ষেত্রে কতজন বাকি পড়ছে, কারা সেকেন্ড ডোজ নিচ্ছেন না তার একটা তালিকা তৈরি করার নির্দেশ দেন জেলাশাসকদের। মুখ্যসচিব বলেন, টিকার দ্বিতীয় ডোজ নিচ্ছেন না যাঁরা, তাঁদের কী ভাবে ডোজ নেওয়ানো যায় তার একটা পরিকল্পনা করা দরকার। সেক্ষেত্রে দুয়ারে স্বাস্থ্য় ক্যাম্প টিকাকরণে গতি আনবে বলেই মনে করা হচ্ছে।

পাশাপাশি, কোমর্বিডিটি থাকলে তার পরীক্ষাও হবে এই ক্যাম্পে। ডায়াবেটিস, হার্ট ও ফুসফুসের রোগ, উচ্চ রক্তচাপ বা ক্যানসার থাকলে তার পরীক্ষা করে টিকা দেওয়ার ব্য়বস্থা করবেন চিকিৎসকরা।

বছর শেষের আগেই দেশের প্রাপ্তবয়স্কদের সকলকেই টিকার অন্তত একটি করে ডোজ দেওয়ার বৃহত্তর পরিকল্পনা আছে মোদী সরকারের। সেই লক্ষ্যে এগিয়ে যাচ্ছে পশ্চিমবঙ্গও। স্বাস্থ্য দফতরের রিপোর্ট বলছে, রাজ্যে এখনই ৬ কোটি মানুষকে টিকার প্রথম ডোজ দেওয়া হয়েছে। পিছিয়ে নেই কলকাতাও। সরকারি ও বেসরকারি ক্ষেত্র মিলিয়ে এ শহরে টিকার প্রথম ডোজ প্রাপকের সংখ্যা প্রায় দেড়শো শতাংশের কাছাকাছি।

ডিসেম্বরের মধ্যে রাজ্যবাসীকে কোভিড ভ্যাকসিনের একটি করে ডোজ দেওয়ার লক্ষ্যমাত্রা আছে নবান্নেরও। টিকাকরণে গতি আনতে বাড়ি বাড়ি গিয়ে অসুস্থ ও শয্যাশায়ীদের টিকার ডোজ দেওয়ার বড় উদ্যোগও নিতে চলেছে রাজ্য সরকার। কোথায় টিকার ঘাটতি হচ্ছে, ডোজ পাচ্ছেন না মানুষজন সেইসব খোঁজও নেওয়া হবে।

পড়ুন দ্য ওয়ালের সাহিত্য পত্রিকা সুখপাঠ

You might also like