Latest News

ঘাস কাটতে নিচু হতেই ঘাড়ে ঝাঁপাল বাঘ, রায়মঙ্গল পেরিয়ে সন্দেশখালিতে তাণ্ডব দক্ষিণরায়ের

দ্য ওয়াল ব্যুরো: বাঘের হানায় তটস্থ বসিরহাট মহকুমার সন্দেশখালির গ্রাম। রায়মঙ্গল নদী পেরিয়ে এবার লোকালয়ে ঢুকে পড়েছে পূর্ণবয়স্ক রয়্যাল বেঙ্গল। কিছুদিন আগেই নদীর চরে এক চাষির ওপর হামলা চালিয়েছিল। কোনওরকমে প্রাণে বেঁচে বাড়ি ফেরেন সেই চাষি। গ্রামের আরও অনেকজায়গায় দেখা গিয়েছে দক্ষিণরায়কে। দিনেদুপুরেই জানলা-দরজা বন্ধ করে আতঙ্কে কাঁপছিলেন গ্রামবাসীরা। তবে বাঘটিকে এখন কব্জা করা গেছে বলেই জানিয়েছে বন দফতর।

সন্দেশখালি দু’নম্বর ব্লকের মনিপুর গ্রাম পঞ্চায়েতের মিঠাখালি গ্রামে ঢুকে পড়ে রয্যাল বেঙ্গল। গ্রামবাসীরা বলছেন, নদী পেরিয়ে এর আগেও এক আধবার বাঘ ঢুকেছিল লোকালয়ে। এবার বাঘটি নদী সাঁতরে এসেই এক চাষির ওপর হামলা চালায়। ছাগলের জন্য ঘাস কাটতে গিয়েছিলেন ৫০ বছরের ছয়রাম কারিগর। নিচু হয়ে ঘাস কাটার সময়েই তাঁর ঘাড়ে ঝাঁপিয়ে পড়ে বাঘ। মানুষে-বাঘে ধস্তাধস্তি শুরু হয়। ডাকাবুকো চাষি বাঘকে পিঠ থেকে ফেলে কোনওরকমে পালিয়ে আসেন। তাঁর জখম মারাত্মক।

মিঠাখালি গ্রাম লাগোয়া জঙ্গলের ধারেই বাঘটিকে দিনকয়েক ঘোরাফেরা করতে দেখা গিয়েছিল। পরে সেটি লোকালয়ে ঢুকে আসে। প্রাণ বাঁচাতে দৌড়োদৌড়ি শুরু হয়ে যায়। লাঠি নিয়ে বাঘের দিকে তেড়ে যান স্থানীয়রা। মিঠাখালি থানার পুলিশ আধিকারিক মিনা খাঁ বন দফতরে খবর দিলে ঘটনাস্থলে হাজির হন ১৫ জন বন কর্মী। তাঁরা জাল দিয়ে এলাকা ঘিরে খাঁচা পেতে ফেলেন। বনকর্মীরা বলছেন, বাঘটি শিকারের লোভেই লোকালয়ে ঢুকেছিল। তাছাড়া এই সময়টা তাদের প্রজননেরও সময়। জঙ্গলে খাবারের অভাবে লোকালয়ে ঢুকে এসেছিল বাঘটি।

গোটা এলাকা জাল দিয়ে ঘিরে রাতে দক্ষিণরায়কে খাঁচাবন্দি করেন বনকর্মীরা। বাঘটির শারীরিক পরীক্ষার পরে তাকে এখন বসিরহাট রেঞ্জের বাগনা জঙ্গলের দিকে নিয়ে যাওয়া হচ্ছে। সেখানেই তাকে জঙ্গলে ছাড়া হবে।

পড়ুন দ্য ওয়ালের সাহিত্য পত্রিকাসুখপাঠ

You might also like