Latest News

বুস্টার ডোজ নিতে কোউইনে নাম রেজিস্টার করতে হবে না, দরকার নেই কোমর্বিডিটি সার্টিফিকেট

দ্য ওয়াল ব্যুরো: কোভিড টিকার তৃতীয় ডোজ তথা প্রিকশনারি ডোজ নিতে কোউইন পোর্টালে নাম রেজিস্টার করার দরকার নেই। সরাসরি টিকাকরণ কেন্দ্রে গিয়েই বুস্টার ডোজ নেওয়া যাবে। বয়স্কদের জন্য সুবিধা আনল কেন্দ্রীয় স্বাস্থ্যমন্ত্রক।

স্বাস্থ্য ও পরিবার কল্যাণ মন্ত্রকের তরফে জানানো হয়েছে, কোভিড টিকার বুস্টার ডোজ যাঁরা নেবেন, তাঁদের আর নতুন করে কোউইন পোর্টালে নাম রেজিস্টার করার দরকার নেই। প্রথম সারির কোভিড যোদ্ধা ও ষাটোর্ধ্ব প্রবীণদের জন্য টিকার প্রিকশনারি ডোজ তথা বুস্টার ডোজ দেওয়া শুরু হবে আগামী ১০ জানুয়ারি থেকে। এই বুস্টার ডোজের জন্য ফের কোউইন পোর্টালে নাম নথিভুক্ত করতে হবে কিনা সে নিয়ে ধোঁয়াশা ছিল। কিন্তু স্বাস্থ্যমন্ত্রক জানিয়েছে, বয়স্কদের নতুন করে নাম রেজিস্টার করে স্লট বুক করার দরকার নেই। কাছাকাছি টিকাকরণ কেন্দ্রে গেলেই পাওয়া যাবে বুস্টার ডোজ।

বড়দিনে জাতির উদ্দেশে ভাষণে প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী ভ্যাকসিনের প্রিকশনারি ডোজ নেওয়ার কথা বলেছিলেন। প্রিকশনারি ডোজ মানে হলে ভ্যাকসিনের তৃতীয় ডোজ অর্থাৎ বুস্টার ডোজ। সেকেন্ড ডোজ নেওয়ার ৯ মাস পরে এই তৃতীয় ডোজ নেওয়া যাবে। স্বাস্থ্য়মন্ত্রকের গাইডলাইনে বলা হয়েছে, সেকেন্ড ডোজ নেওয়ার দিন থেকে ৩৯ সপ্তাহ পরে বুস্টার বা প্রিকশনারি ডোজ নেওয়া যাবে।

কারা নিতে পারবেন প্রিকশনারি ডোজ? প্রিকশনারি ডোজ সকলের জন্য নয়। প্রথম সারির কোভিড যোদ্ধা ও প্রবীণদের জন্যই এই প্রিকশনারি ডোজ। করোনা রোগীদের সংস্পর্শে থাকতে হয় যাঁদের বা পেশাগত কারণে জনবহুল জায়গায় থাকতে হয়, প্রবীণ যাঁদের কোমর্বিডিটি আছে ও হাই-রিস্ক গ্রুপে আছেন, শুরুতে তাঁরাই পাবেন এই ডোজ। পরে ভ্যাকসিনের জোগান বাড়লে সকলের কথা ভাবা যাবে।

কোমর্বিডিটির সার্টিফিকেট লাগবে না? প্রিকশনারি ডোজ নিতে হলে বয়স্কদের মেডিক্যাল সার্টিফিকেট জমা দেওয়ার কথা বলা হয়েছিল গাইডলাইনে। কী ধরনের রোগ রয়েছে বা রোগের চিকিৎসা চলছে তা দেখেই তৃতীয় ডোজ দেওয়ার সিদ্ধান্ত নেওয়া হবে। সেক্ষেত্রে রোগের তালিকাও দিয়েছিল স্বাস্থ্যমন্ত্রক। হার্ট, কিডনি, ফুসফুসের রোগ, ক্যানসারের মতো মারণ রোগও ছিল তালিকায়। তবে এখন নয়া নির্দেশিকায় বলা হচ্ছে, ষাটের বেশি বয়স্করা দুটি ডোজ নেওয়া হয়ে গেলে তৃতীয় ডোজ পাবেন। সেক্ষেত্রে মেডিক্যাল সার্টিফিকেট দেখানোর দরকার নেই। তবে চাইলে চিকিৎসকের পরামর্শ নেওয়া যেতে পারে।

ভ্যাকসিনের মিক্স অ্যান্ড ম্যাচ নয়– কেন্দ্রের স্পষ্ট নির্দেশ, বুস্টার ডোজের মিক্স অ্যান্ড ম্যাচ হবে না। অর্থাৎ দু’রকম ভ্যাকসিন মিলিয়ে ঝুলিয়ে দেওয়া চলবে না। প্রথম দুটি ডোজ যে ভ্যাকসিনের নেওয়া হয়েছে, তৃতীয় তথা বুস্টার ডোজ সেই ভ্যাকসিনেরই নিতে হবে। যদি কেউ কোভিশিল্ড টিকার দুটি ডোজ নিয়ে থাকেন, তাহলে থার্ড ডোজ কোভিশিল্ডেরই নিতে হবে। আবার যদি ফার্স্ট ও সেকেন্ড ডোজ ভারত বায়োটেকের কোভ্যাক্সিনের হয়, তাহলে বুস্টার ডোজে কোভ্যাক্সিনই নিতে হবে।

পড়ুন দ্য ওয়ালের সাহিত্য পত্রিকাসুখপাঠ

You might also like