Latest News

বেকারত্বে রাজ্য রসাতলে, প্রধানমন্ত্রী হতে ব্যাকুল মুখ্যমন্ত্রী, মমতাকে কটাক্ষ দিলীপের

দ্য ওয়াল ব্যুরো:‌ সবথেকে বেশির বেকারত্ব এ রাজ্যে। কোথাও কাজ নেই। রাজ্য রসাতলে যাচ্ছে, অথছ মুখ্যমন্ত্রী প্রোমোশন চান। চাইছেন প্রধানমন্ত্রী হতে। বক্তা দিলীপ ঘোষ।

আজ, শনিবারই দিল্লি থেকে কলকাতায় ফিরেছেন তিনি। ফিরেই স্বভাবসিদ্ধ তোপ মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের বিরুদ্ধে।

এদিন বিজেপির দলীয় কার্যালয়ে সাংবাদিক বৈঠকে দিলীপ বলেন, ‘‌বেকারত্বে আশেপাশের সব রাজ্যকে ছাপিয়ে গেছে এ রাজ্য। সল্টলেকের সিলিকন ভ্যালিতে গরু চড়ছে। সিঙ্গুরে কাশফুল ফুটেছে। রাজনীতি করতে গিয়ে আর বিরোধীদের আটকাতে গিয়ে চাকরি শূন্য, কিন্তু ওসব পরে আগে মুখ্যমন্ত্রীর প্রমোশন চাই, তিনি প্রধানমন্ত্রী হতে চান।’‌

পাশাপাশি তিনি বলেন, ‘‌ইস্টেবঙ্গল বিক্রি হয়ে গেল। দেশে তো কোনও সংস্থা বিক্রি হয়নি। অলাভজনক সংস্থাগুলির ভর্তুকি বন্ধ করা হয়েছে।’‌ বেআইনিভাবে টিকা সরিয়ে টিকাকরণের অভিযোগে দক্ষিণ ২৪ পরগনার সুভাষগ্রাম থেকে এক ব্যক্তিকে গ্রেফতার করেছে পুলিশ। ধৃতের নাম মিঠুন মণ্ডল। টিকাকরণের সঙ্গে যুক্ত ওই যুবক ভ্যাকসিনের ভায়াল সরিয়ে রেখে পরে টাকার বিনিময়ে টিকা দিতেন তিনি। কলকাতা পুরসভার উচ্চপদস্থ আইএএস পরিচয়ে জালিয়াত দেবাঞ্জন দেবও ভুয়ো ভ্যাকসিনের ক্যাম্প করেছিলেন। এই ঘটনাটাও তেমনই। বিষয়টিতে দিলীপ বলেন, ‘‌চলতি মাসে ৯০ হাজার ৭০ লক্ষ ভ্যাকসিন পাঠানো হয়েছে। এখানে কেন পাচ্ছে না। ঠিক মতো ভ্যাকসিন দিচ্ছে না। তৃণমূল নেতারা লিখে না দিলে ভ্যাকসিন পাচ্ছেন না সাধারণ মানুষ। শুধু এরাজ্যেই ভ্যাকসিন নিয়ে সমস্যা হচ্ছে। আর কোথাও সমস্যা নেই। এরাজ্যে কালোবাজারি হচ্ছে। তৃণমূল নেতারা ডোনেশন নিচ্ছেন।’‌

রাজ্য জুড়ে উচ্চমাধ্যমিক নিয়ে অশান্ত পরিবেশ তৈরি হয়েছে। পরীক্ষা হয়নি, অথচ অসংখ্য পড়ুয়া ফেল। এদিও বিভিন্ন স্কুলে বিক্ষোভে ফেটে পড়েছে পড়ুয়ারা। তাদের বক্তব্য, যেখানে পরীক্ষাই হলনা, সেখানে তারা কীভাবে ফেল করল। বিষয়টিতে দিলীপ ঘোষ বলেন,‘‌যেখানে পরীক্ষাই হলনা, সেখানে পাস বা ফেল কীসের। বিশেষ সম্প্রদায়কে খুশি করার জন্য ফলাফল করা হয়েছে। রাজ্য সরকার ও শিক্ষা বিভাগের ডামাডোল চলছে। মুখ্যমন্ত্রীই সবটা চালাচ্ছেন। ছাত্রদের আত্মবিশ্বাস নষ্ট করা হয়েছে।’‌

১৬ আগস্ট ‘‌খেলা হবে’‌ দিবস ঘোষণা করেছেন মুখ্যমন্ত্রী। দিলীপ বলেন, ‘‌যে খেলাটা চলছে ভোটের পরে, সেটা নিয়ে আমরা আওয়াজ তুলব। স্টেপ নেওয়া হচ্ছে। এটা রাজ্যের পক্ষে লজ্জাজনক। হিংসা হচ্ছে। এইসব ঘটনাই আসল খেলা। ১৬ তারিখ পশ্চিমবঙ্গকে ‘‌পশ্চিম বাংলাদেশ’‌ করার উদ্যোগ নেওয়া হয়ে। ওইদিন গ্রেট ক্যালকাটা কিলিং হয়েছে। সেরকম খেলার দিকেই মমতা এগিয়ে যাচ্ছেন। ওই দিন আমরা ‘‌পশ্চিমবঙ্গ বাঁচাও দিবস’‌ হিসেবে পালন করব।

You might also like