Latest News

‘তুমি এক বার দিদির সঙ্গে কথা বলো’, শতাব্দীর বাড়িতে গিয়ে বললেন কুণাল, ফোন সুদীপ, সৌগতর

দ্য ওয়াল ব্যুরো: বীরভূমের তৃণমূল সাংসদ শতাব্দী রায় যে সুরে গাইছেন না তা বিষ্যুদবার সন্ধেবেলাই টের পাওয়া গিয়েছিল। শুক্রবার আবার তিনি এমন নতুন কিছু কর্ড যুক্ত করেছেন তাতে স্পষ্ট বোঝা গেছে, শতাব্দীর সুর কাটেনি। বরং অন্য ঘরানার গান ধরতে চাইছেন তিনি।

পরিস্থিতি যখন এমনই তখন শতাব্দীর অভিমান ভাঙাতে দৌত্য শুরু করল তৃণমূল। সূত্রের খবর, শতাব্দীকে ফোন করেছিলেন লোকসভায় তৃণমূল দলনেতা সুদীপ বন্দ্যোপাধ্যায়, সৌগত রায় এবং ডেরেক ওব্রায়েন।

শতাব্দী যখন তৃণমূলে ছিলেন, তখন তাপস পাল ছাড়াও তাঁর ভাল বন্ধু ছিলেন কুণাল। এক সময়ে অনেকে বলতেন, কুণালই শতাব্দীকে তৃণমূলে এনেছেন। এদিন দেখা যায়, দুপুরে শতাব্দীর বাড়িতে চলে গিয়েছেন কুণাল। পরে জানা গিয়েছে, কুণাল যখন শতাব্দীর বাড়িতে তখন নাকি আবার মুকুল রায়ের ফোন এসেছিল অভিনেত্রীর কাছে। তবে কুণাল শতাব্দীকে বলেছেন, একটা বড় রাজনৈতিক দল বড় হাঁড়ির মতো। ছোট খাটো ঠোকাঠুকি লাগতেই পারে। দিদির সঙ্গে একবার কথা বলে নিলেই হয়তো সব মিটে যাবে।

শতাব্দীর বাড়ি থেকে বেরিয়ে কুণাল সাংবাদিকদের বলেছেন, উনি তৃণমূলেই থাকছেন।

শুক্রবার সকালে অবশ্য শতাব্দী জানিয়েছিলেন, তিনি কাল দিল্লি যাবেন। অমিত শাহর সঙ্গে দেখা করার প্রশ্নে তাঁর জবাব ছিল, পরিচিত অনেকের সঙ্গেই দেখা হতে পারে। এর মধ্যে আশ্চর্যের কী আছে?

গতকাল ফ্যান পেজ থেকে ফার্স্ট পার্সন শতাব্দীর বয়ানে বলা ছিল, সিদ্ধান্ত নিলে শনিবার দুপুর দুটোর সময়ে জানাবেন। সেই সূত্র ধরে শনিবারই শতাব্দীর রাজধানী যাত্রা নিয়ে জল্পনা তৈরি হয়েছে। তবে কুণালের সঙ্গে দেখা করার পর শতাব্দী সংবাদমাধ্যমে এখনও কোনও মন্তব্য করেননি।

পর্যবেক্ষকদের মতে, এখন যা পরিস্থিতি তাতে বাংলার রাজনীতির আকাশ চেরাপুঞ্জির মতো। কখন কী হবে কেউ বলতে পারে না। রাজনৈতিক পর্যবেক্ষকদের অনেকে বলছেন, কুণালবাবু যতটা সহজ করে বলছেন ব্যাপারটা তেমন নাও হতে পারে। তাঁদের মতে, শুভেন্দু অধিকারীর সঙ্গে শ্যামবাজারের বৈঠকের পরও সৌগত রায় বলেছিলেন শুভেন্দু তৃণমূলে থাকছেন। পরের দিন কাঁথি থেকে ছোট্ট একটি টেক্সট মেসেজে সব জল্পনায় জল ঢেলে দিয়েছিলেন শুভেন্দু। তারপর কী হয়েছে সে তো দেখাই গেছে।

You might also like