Latest News

মালদহে শরীরচর্চা করতে গিয়ে অত্যাচারের শিকার ছাত্র, স্কুলের গাছ থেকে আম খসে পড়ায় বেধড়ক মার, বেঁধে ফেলা হল খুঁটিতে

থানায় অভিযোগ দায়ের করেছে অত্যাচারিত ছাত্রের পরিবার। অভিযুক্ত পলাতক।

দ্য ওয়াল ব্যুরো: নিজের স্কুলের মাঠে শরীরচর্চা করার সময় ঝাঁকুনি লেগে গাছ থেকে খসে পড়েছিল আম। তাতেই মালদহের শোভানগরে নির্মম অত্যাচারের শিকার হতে হল এক দ্বাদশ শ্রেণীর ছাত্রকে। তাকে নির্মম ভাবে মারা হয় বলে অভিযোগ, বেঁধে ফেলা হয় হাত-পা। সেই দৃশ্য মোবাইল ক্যামেরায় তুলেছেন কাছেই থাকা এক ব্যক্তি।

এলাকা সূত্রে জানা গেছে, আক্রান্ত ছাত্র শোভানগর উচ্চ বিদ্যালয়ের দ্বাদশ শ্রেণীর ছাত্র। শোভানগর স্কুলপাড়া এলাকাতেই তার বাড়ি। প্রতিদিনই সে শোভানগর বিদ্যালয়ের ময়দানে সকালের দিকে শরীরচর্চা করতে যায়। শুক্রবারও দৌড়ানোর পরে গাছের ডালে ঝুলে শরীরচর্চা করছিল। তখন দু’তিনটে আম ডাল থেকে খসে পড়ে। তখনই দৌড়ে এসে ওই ছাত্রকে ধরে ফেলে ওই বাগানের দায়িত্বে থাকা অনীন্দ্র ঝা নামে এক ব্যক্তি। এরপর তাকে নির্মম ভাবে সে মারতে থাকে। চড় থাপ্পড় ঘুসি মেরে ছাত্রটির হাত-পা বেঁধে দেওয়া হয় পাশের একটি বাঁশের খুঁটিতে। প্রথম থেকেই ওই ছাত্র কাকুতি মিনতি করে নিজেকে বাঁচানোর চেষ্টা করছিল।

পুরো ঘটনার ছবি ভাইরাল হতে শোরগোল পড়ে গেছে মালদহের শোভানগর এলাকায়।

বেদম প্রহারে ওই ছাত্র অসুস্থ হয়ে পড়ে। জানতে পেরে পরিবারের লোকজন ছুটে গিয়ে তাকে উদ্ধার করেন। তার শরীরের বিভিন্ন জায়গায় ক্ষত তৈরি হয়েছে। প্রাথমিক চিকিৎসার পরে সে বাড়িতেই আছে।

জানা গেছে ওই আম গাছটি বিদ্যালয় কর্তৃপক্ষের। প্রতিবছর ফলনের আম বিক্রি করা হয় স্থানীয় ব্যবসায়ীদের কাছে। সেই মতো এবছর বিক্রি করা হয়েছে সভানগর এলাকার বাসিন্দা অনীন্দ্র ঝা ওরফে বাবাই নামে এক ব্যক্তির কাছে।

ইতিমধ্যে আক্রান্ত ছাত্রর পরিবারের তরফে মিল্কি পুলিশ ফাঁড়িতে অনীন্দ্র ঝার নামে অভিযোগ দায়ের করা হয়েছে। ফাঁড়ির ওসি মনিরুল ইসলাম বলেন, “সবেমাত্র অভিযোগ এসেছে। তদন্ত হবে।” অভিযুক্ত পলাতক।

You might also like