Latest News

সম্পত্তির লোভে ছেলে-বৌমার অত্যাচার, পুলিশের দ্বারস্থ বৃদ্ধ মা-বাবা

দ্য ওয়াল ব্যুরো, উত্তর ২৪ পরগনা: সম্পত্তি পাওয়ার লোভে বৃদ্ধ মা-বাবার উপর অত্যাচার চালাত ছেলে-বৌমা। খেতে দিত না। চলত মারধর। আর সহ্য করতে না পেরে অবশেষে পুলিশের দ্বারস্থ হয়েছেন বৃদ্ধ মা-বাবা। এই অমানবিক ঘটনায় ছেলে-বৌমার বিরুদ্ধে পদক্ষেপ নেওয়ার দাবি তুলেছেন স্থানীয়রা।

ঘটনাটি ঘটেছে উত্তর ২৪ পরগনা জেলার হাড়োয়া থানার সোনাপুকুর এলাকার শঙ্করপুর গ্রামে। বৃদ্ধের নাম হেমন্ত ঘোষাল। তাঁর বয়স ৬২ বছর। তাঁর স্ত্রী সবিতা ঘোষালের বয়স ৫৬ বছর। বৃদ্ধ দম্পতির একমাত্র ছেলে ৩৫ বছরের রবিন ঘোষাল ও তার স্ত্রী ৩২ বছরের পিঙ্কি ঘোষালের বিরুদ্ধে অত্যাচারের অভিযোগ উঠেছে। হেমন্তবাবু ও সবিতাদেবী জানিয়েছেন, তাঁদের বেশ কিছু মাছের ঘের রয়েছে। সেই জমি লিখে দেওয়ার জন্য তাঁদের বেশ কয়েক বছর ধরেই জোর করছে ছেলে-বৌমা। কিন্তু তাঁরা তা লিখে না দেওয়ায় অত্যাচার বেড়েছে।

বৃদ্ধ দম্পতির অভিযোগ, তাঁদের উপর শারীরিক ও মানসিক অত্যাচার চালানোর পাশাপাশি দিনের পর দিন তাঁদের খেতে দিত না ছেলে-বৌমা। এর আগেও বারবার গ্রাম প্রধানের কাছে অভিযোগ করেছেন তাঁরা। গ্রামে শালিসি সভাও বসেছে। কিন্তু কোনও ফল হয়নি। মঙ্গলবার রাতে অত্যাচার অনেক বেড়ে যায়। বৃদ্ধ মা-বাবাকে বেধড়ক মারধর করে ছেলে ও বৌমা।

জানা গিয়েছে, অত্যাচার সহ্য করতে না পেরে গ্রামবাসীদের কাছে সাহায্যের জন্য ছুটে যান হেমন্তবাবু ও সবিতাদেবী। তারপরে গ্রামবাসীদের পরামর্শে হাড়োয়া থানায় গিয়ে ছেলে-বৌমার বিরুদ্ধে অভিযোগ দায়ের করেন তাঁরা। জানা গিয়েছে, অভিযোগের ভিত্তিতে হাড়োয়া থানার পুলিশ আধিকারিক বাপ্পা মিত্র পুরো ঘটনার তদন্ত করার নির্দেশ দিয়েছেন। অভিযুক্তদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেওয়ার দাবি তুলেছেন গ্রামবাসীরাও।

You might also like