Latest News

বাংলায় অক্সিজেনের বরাদ্দ বাড়ান, দিনে ৫৫০ মেট্রিক টন করে লাগতে পারে, মোদীকে ‘জরুরি’ চিঠি মুখ্যমন্ত্রীর

দ্য ওয়াল ব্যুরো: বাংলায় মেডিক্যাল অক্সিজেনের বরাদ্দ বাড়ানো নিয়ে প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদীকে দ্বিতীয় বার চিঠি লিখলেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। চিঠিতে মুখ্যমন্ত্রী লিখেছেন, আগামী সপ্তাহ থেকে রাজ্যে দিনের হিসেবে মেডিক্যাল অক্সিজেনের চাহিদা আরও বাড়বে। সেই সঙ্গেই অন্য রাজ্যে অক্সিজেন পাঠানোর বিষয়টাও বিশেষ ভাবে উল্লেখ করেছেন তিনি। চিঠির ওপরে মুখ্যমন্ত্রী পেন দিয়ে লিখে দিয়েছেন ‘Very Urgent’ (খুব জরুরি)।

দায়িত্ব হাতে নিয়েই প্রথমে কোভিড মোকাবিলায় পদক্ষেপ করবেন বলে জানিয়েছিলেন আগেই। বুধবার তৃতীয় বার বাংলার মুখ্যমন্ত্রী হিসেবে শপথ নিয়েই সেই কাজে নেমে পড়েছেন মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। গত ৫ তারিখ প্রধানমন্ত্রীকে প্রথম চিঠি দিয়ে মুখ্যমন্ত্রী বলেছিলেন, রাজ্যে সংক্রমণ রুখতে হলে বিনামূল্যে সার্বিক টিকাকরণে জোর দিতে হবে। তার জন্য বাড়াতে হবে টিকার জোগান। সেই সঙ্গেই মেডিক্যাল অক্সিজেনের বরাদ্দ বাড়ানোর দিকেও গুরুত্ব দিতে হবে কেন্দ্রকে।

আগামী সাত থেকে আট দিনের মধ্যে রাজ্যে প্রতিদিনের হিসেবে মেডিক্যাল অক্সিজেনের জোগান বাড়ানোর আর্জি জানিয়েছেন মুখ্যমন্ত্রী। এদিনের চিঠিতে মমতা লিখেছেন, এখনই দিনের হিসেবে করোনা রোগীদের চিকিৎসায় ৪৭০ মেট্রিক টন করে অক্সিজেন লাগছে। আগামী সপ্তাহ থেকে তা বেড়ে হতে পারে ৫৫০ মেট্রিক টন।

চিঠিতে মুখ্যমন্ত্রী অভিযোগ করেছেন, কেন্দ্রীয় স্বাস্থ্যসচিবের সঙ্গে বৈঠকে মেডিক্যাল অক্সিজেনের জোগান বাড়ানোর বিষয়ে বিস্তারিত বলেছিলেন রাজ্যের মুখ্যসচিব, কিন্তু সেদিকে গুরুত্ব দেওয়া হয়নি। মমতার অভিযোগ, বাংলায় অক্সিজেনের বরাদ্দ না বাড়িয়ে বরং অন্যান্য রাজ্যে মেডিক্যাল অক্সিজেন বেশি পাঠাচ্ছে কেন্দ্র। আর বাংলায় উৎপাদিত অক্সিজেন থেকেই সেটা ভিন রাজ্যে পাঠানো হচ্ছে। মুখ্যমন্ত্রী লিখেছেন, গত দশ দিনে বাংলা থেকে প্রায় ২৩০ মেট্রিক টন করে মেডিক্যাল অক্সিজেন ভিন রাজ্যে পাঠানো হচ্ছে। রাজ্যের জন্য থাকছে ৩০৬ মেট্রিক টন। কিন্তু আগামী সপ্তাহ থেকে এই চাহিদা বেড়ে ৫৫০ মেট্রিক টনে পৌঁছে যাবে। তখন এ রাজ্যের কোভিড রোগীদের চিকিৎসায় মেডিক্যাল অক্সিজেনের সঞ্চয়ে টান পড়বে। তাই বিষয়টা গুরুত্ব দিয়ে দেখার আর্জি জানিয়েছেন মুখ্যমন্ত্রী।

প্রথম চিঠিতেও মুখ্যমন্ত্রী বলেছিলেন, রাজ্যের বড় কয়েকটি মেডিক্যাল কলেজ ও হাসপাতালে করোনা রোগীদের চিকিৎসার জন্য তরল অক্সিজেনের জোগান দিতে ৭০টি পিএসএ প্ল্যান্ট বসানোরও সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে। এই প্ল্যান্টগুলিতে তৈরি হবে লিকুইড মেডিক্যাল অক্সিজেন (এলএমও)। তবে প্ল্যান্টগুলি বসাতে সময় লাগবে। তার আগে হাসপাতালগুলিতে অক্সিজেনের জোগান পর্যাপ্ত রাখতে কেন্দ্রকেই সঠিক সময় সরবরাহ করতে হবে।

You might also like