Latest News

ভাটপাড়ায় অর্জুনের বাড়ির সামনে বোমাবাজি, ভাঙচুর দোকান-বাড়িঘর

দ্য ওয়াল ব্যুরো: গত কয়েক দিন ধরেই ফের ধারাবাহিক ভাবে উত্তপ্ত থাকছে ভাটপাড়া। রবিবার রাতেও তার কোনও বদল হল না। তোলাবাজি নিয়ে ব্যাপক বোমাবাজি চলল ব্যারাকপুরের বিজেপি সাংসদ অর্জুন সিংয়ের বাড়ির কাছে।

স্থানীয়দের অভিযোগ, একদল দুস্কৃতী এসে ব্যাপক বোমাবাজি ভাঙ চুর করে দোকানে। বাড়ির ভিতরে ঢুকে হামলা চালায় বলে অভিযোগ তাঁদের। রাস্তার সিসিটিভিও ভেঙে ফেলা হয়েছে বলে জানা গিয়েছে। আক্রান্ত দোকান মালিকের স্ত্রী রেণুকা সাউ বলেন, “ওরা এসে টাকা চায়। তা না দেওয়ায় দোকান ভাঙচুর করে। শাসিয়ে গেছে, এরপর টাকা দিলে তবেই দোকান খুলতে পারব।”

রেণুকাদেবীর মেয়ে বলেন, “এই গুণ্ডাগিরির জন্য সবাই ক্ষতিগ্রস্ত হচ্ছে। এখানে হিন্দু, মুসলমান সবাই আক্রান্ত। আমি সমস্ত রাজনৈতিক দলকে বলছি, এসব বন্ধ করতে আপনারা উদ্যোগ নিন।”

রাতে ঘটনাস্থলে পৌঁছন ব্যারাকপুরের পুলিশ কমিশনার মনোজ বর্মা। তিনি বলেন, “একটা বিয়ে বাড়ির অনুষ্ঠানে বোমাবাজিকে কেন্দ্র করে এলাকায় দুটি গ্রুপের মধ্যেই ঝামেলা হয়। তবে পুলিশ এসে তা নিয়ন্ত্রণে এনেছে। তদন্ত শুরু হয়েছে।”

শুক্রবার রাতেও ভাটপাড়ায় ব্যাপক বোমাবাজির ঘটনা ঘটেছিল। সেই ঘটনায় শনিবার রাত পর্যন্ত ১০ জনকে গ্রেফতার করে পুলিশ। দুষ্কৃতীদের ধরার অভিযানে নিজে উপস্থিত ছিলেন ব্যারাকপুরের পুলিশ সুপার মনোজ বর্মা। জগদ্দল, কাঁকিনাড়া সহ বিভিন্ন এলাকা থেকে দুষ্কৃতীদের গ্রেফতার করা হয়।
দু’দল দুষ্কৃতীর সংঘর্ষে মুড়িমুড়কির মতো বোমা পড়ে জগদ্দলের পাল ঘাট রোডে। পুলিশ পৌঁছলে তাঁদের দিকেও বোমা ছোড়ে দুষ্কৃতীরা। আহত হন অভিজিত ঘোষ ও প্রসেনজিত বিশ্বাস নামের দুই এসআই।

গত লোক সভা নির্বাচনের পর থেকেই বারবার অশান্ত হয়েছে ভাটপাড়া, জগদ্দল, কাঁকিনাড়া-সহ সমগ্র ব্যারাকপুর শিল্পাঞ্চল। বারবার পুলিশ কমিশনার বদলেও লাভ হয়নি। এমন পরিস্থিতি হয়েছিল যে, ভাটপাড়া থানা উদ্বোধন করতে যাওয়ার পথে হিংসার ঘটনার খবর পেয়ে ডানলপ থেকে সেবার কনভয় ঘুরিয়ে ফিরে এসেছিলেন রাজ্য পুলিশের ডিজি বীরেন্দ্র।

সেই সময়ে তৃণমূল অভিযোগ করত, অর্জুন সিংয়ের নেতৃত্বে বিজেপির লোকজন হামলা চালাচ্ছে, তাদের কর্মীদের ঘরছাড়া করছে, পার্টি অফিস দখল করে নিচ্ছে ইত্যাদি প্রভৃতি। প্রসঙ্গত উনিশের সময় থেকে গেরুয়া গড় হয়ে যাওয়া ব্যারাকপুর শিল্পাঞ্চলে একুশের ভোটে ব্যাপক সাফল্য পেয়েছে তৃণমূল। একমাত্র ভাটপাড়া আসন ছাড়া সব আসনে জিতেছে ঘাসফুল শিবির। কিন্তু স্থানীয়দের প্রশ্ন একটাই, রাজনৈতিক শক্তির অদলবদল তো হচ্ছই, কিন্তু ভাটপাড়া শান্ত হচ্ছে কই?

You might also like