Latest News

বিজেপিকে পরাস্ত করতে তৃণমূলকেও হারাতে হবে, বিহার অঙ্ক উড়িয়ে সাফ কথা সীতারামের

দ্য ওয়াল ব্যুরো: দিল্লি সিপিএমে বরাবরই তিনি বাংলাপন্থী। বঙ্গ সিপিএমের সংখ্যাগুরু অংশও তাঁকে পছন্দ করে। সেই তিনি সিপিএম সাধারণ সম্পাদক সীতারাম ইয়েচুরি শুক্রবার কলকাতায় সংবাদিক বৈঠক করে সাফ জানিয়ে দিলেন, ‘বিজেপিকে হারাতে হবে এটা আমাদের মূল লক্ষ্য। কিন্তু তৃণমূলকে না হারিয়ে তা সম্ভব নয়। বিজেপিকে পরাস্ত করতে হলে আগে তৃণমূলকে হারাতেই হবে।”

বিহারে বাম জোটের ভাল ফলের পর সিপিআইএম লিবারেশন সাধারণ সম্পাদক দীপঙ্কর ভট্টাচার্য বলেছিলেন, বাংলায় বামপন্থীরা এক শত্রু চিহ্নিতকরণের কাজ করতে পারছেন না। তৃণমূল আর বিজেপিকে এক করে দেখা ঠিক নয়। এতে বিজেপিরই সুবিধা করে দেওয়া হচ্ছে।

এদিন নিজেই বিহারের কথা তুলে সীতারাম বলেন, কেউ কেউ বিহারের উদাহরণ টেনে বিজেপিকে রুখতে সবাই কেন এক হচ্ছে না এই প্রশ্ন তুলছেন। কিন্তু রাজনীতি পাটিগণিত নয়, সেটা আগে বুঝতে হবে। তাঁর কথায়, বিহারের মহাজোটে সরকারি দল ছিল না। অর্থাত্‍ নীতীশ কুমার ও বিজেপি জোট সরকারের বিরুদ্ধে যে জনমত তৈরি হয়েছিল তার প্রতিফলন দেখা গিয়েছিল বাম-কংগ্রেস-আরজেডি জোটের দিকে।

তাঁর কথায়, তৃণমূলের বিরুদ্ধে যে বিপুল প্রতিষ্ঠান বিরোধিতা রয়েছে তাকে ব্যবহার করছে বিজেপি। এখন যদি তৃণমূলের সঙ্গে বামেরা যায় তাতে বিজেপির হাতই শক্ত হবে।

তা ছাড়া ধর্মনিরপেক্ষতার প্রশ্নেও সিপিএম সহ বামফ্রন্ট ভুক্ত দলগুলির বক্তব্য হচ্ছে তৃণমূল ছদ্ম ধর্মনিরপেক্ষ। আসলে বিজেপির সাম্প্রদায়িক রাজনীতির মাটি তৃণমূলই তৈরি করে দিয়েছে বাংলায়। দুদল মিলে প্রতিযোগিতামূলক সাম্প্রদায়িকতা চালাচ্ছে।

সীতরামের বক্তব্য, দেখানোর চেষ্টা হচ্ছে লড়াই আসলে বিজেপি আর তৃণমূলের। কিন্তু এর মধ্যে বাম, গণতান্ত্রিক, ধর্মনিরপেক্ষ বিকল্প শক্তি বাংলার রাজনীতিতে উদীয়মান শক্তি। তাঁর কথায় এই বিকল্প দানা বাঁধেনি বলেই গত ভোটে বিজেপি ফসল তুলেছিল। কিন্তু এবার তা হবে না। আব্বাস সিদ্দিকির প্রশ্নে আলিমুদ্দিনের সুরেই সীতারাম বলেছেন, “যে কোনও ধর্মনিরপেক্ষ, গণতান্ত্রিক শক্তিকে আমরা এই লড়াইয়ে সামিল করতে চাই।”

You might also like